গ্যালারি

রেসিপিঃ কৈ কোরাল রান্না (সামুদ্রিক মাছ রান্না, তেঁতুল টকে)


সামুদ্রিক মাছ আমি বেশ পছন্দ করি! কাটা কম এবং খেতে মজাদার বলেই হয়ত! তবে সামুদ্রিক মাছ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভাঁজা ভাল লাগে। গত কয়েকদিন আগে বাজার থেকে তিন পদের সামুদ্রিক মাছ কিনেছিলাম। তার মধ্যে গতকাল কৈ কোরাল মাছটার কয়েক টুকরা আমাদের সাধারণ রান্নার মত করে রান্না করেছি। এমন রান্নায় এই মাছ কেমন স্বাদ হয় সেটা দেখার বিষয় ছিল! সাধারণত সামুদ্রিক মাছ ভাঁজাই উত্তম এবং তখন স্বাদ নিয়ে আর চিন্তা থাকে না! চলুন বেশি কথা না বলে ছবি দেখি এবং রান্নার পর্যায় গুলো দেখি! ছবি কথা বলবে!

ওহ, একটা কথা বলি, অভিজ্ঞতায় দেখেছি ইন্ডিয়াতে মাছ রান্নায় সব সময়েই তেতুলের টক বা রস দেয়া হয়, আমরা এই রান্নায় সেই স্বাদ নেয়ার জন্য টক দিয়েছি। তেতুল ভিজিয়ে তার রস বা পানি দিয়েছি! ছবিতে দেখুন। মাছ রান্নায় আমাদের দেশে তেঁতুলের টক দেয়ার নিয়ম নাই, তবে দিলে কেমন হয় সেটাও দেখতে চেয়েছি! আগেই বলে দেই, তেঁতুলের রস দেয়াতে স্বাদ বেড়েছে এবং তরকারীর রঙ ফেকাসে হয়ে গেছে, তবে মন্দ নয়!

20180902_115043
ছবি ১, এই সেই মাছ! ফেবুতে ছবি দিয়েছিলাম!

20180902_124830
ছবি ২, মাছের সাধারণ রান্না কাজেই সামান্য হলুদ ও লবন যোগে মেখে সামান্য সময় রেখে দিয়েছি।

20180902_125003
ছবি ৪, হালকা ভাঁজা, যাতে রান্নার সময় মাছ না ভেঙ্গে যায় বা স্বাদ একটু বেশী লাগে।

20180902_125300
ছবি ৫, এক পিট হয়ে গেলে অন্য পিট উলটে দিন।

20180902_130931
ছবি ৬, ভাঁজা মাছ গুলো তুলে রাখুন। পরের ধাপ মুল রান্না!

20180902_131125
ছবি ৭, পাত্রে তেল গরম করে সামান্য লবন যোগে তেল ভাঁজুন।

20180902_131213
ছবি ৮, এবার রসুন বাটা, জিরা গুড়া এবং সামান্য আদা বাটা দিন, মাছে অনেকে আদা দিতে চান না তবে বড় মাছে সামান্য আদা দিলে ভাল লাগে!

20180902_131312
ছবি ৯, এবার হাফ কাপ পানি দিন।

20180902_131335
ছবি ১০, এবার ঝাল বুঝে হাফ চা চামচ গুড়া মরিচ এবং হাফ চামচের বেশি গুড়া হলুদ দিন।

20180902_131623
ছবি ১১, ভাল করে ভাঁজুন, কয়েকটা কাঁচা মরিচ দিন। তেল উঠে যাবে।

20180902_131631
ছবি ১২, এবার ঝোলের পানি দিন, হাফ কাপের মত (এই পানি পরে দিলেও চলত)

20180902_132237
ছবি ১৩, এবার তেতুলের রস দিন।

20180902_132629
ছবি ১৪, ভাঁজা মাছ গুলো এই ঝোলে বিছিয়ে দিন।

20180902_132726
ছবি ১৫, মাধ্যম আঁচে ঢাকনা দিয়ে মিনিট ১০ রাখুন।

20180902_133632
ছবি ১৬, পাত্রের দুই হাতল ধরে নাড়িয়ে দিন।

20180902_140604
ছবি ১৭, এমন চমতকার অবস্থায় এসে যাবে। এবার ফাইন্যাল লবন দেখুন, মনে রাখুন রান্নায় লবন স্বাদ একটা বিশেষ ব্যাপার। লবন সঠিক হলে স্বাদ ভাল লাগবেই! লবন কম বেশি হলে ভাল রান্না বা কষ্টের রান্নাও জলে ভেসে যায়!

20180902_140759
ছবি ১৮, ধনিয়া পাতার কুঁচি ছিটিয়ে দিন।

20180902_153441
ছবি ১৯, ব্যস হয়ে গেল।

20180902_153451
ছবি ২০, সাদা ভাত নিয়ে বসুন। চমৎকার স্বাদ ছিল। তেঁতুল টকে মন্দ লাগে নাই! তবে এর পরিমান সুন্দর করে দিতে হবে, বেশি দেয়া চলবে না, বেশি হলে টক গ্রহন মাত্রার উপরে উঠে গেলে, খেতে ভাল লাগবে না!

সবাইকে শুভেচ্ছা।

কৃতজ্ঞতাঃ মানসুরা হোসেন।

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s