গ্যালারি

নোটিশঃ মা বাবাকে ভুলে যাবেন না, উনাদের হক আদায় করুন সবার আগে, উৎসবে উনাদের উপহার ও বাড়তি টাকা দিন।


দুনিয়াতে আমরা কেহই অমর নই। আমাদের একদিন এই স্বাদের দুনিয়া ছেড়ে চলে যেতেই হবে! চাইলেও কেহ আমরা বেঁচে থাকতে পারবো না। আমাদের দাদা, দাদী সহ আশে পাশে এমন সব মৃত্যু আমরা প্রায় সবাই দেখেছি। বাংলাদেশের মানুষ হিসাবে মৃত্যুর অভিজ্ঞতা আমাদের আরো বেশি কারন এই দেশে অকাল মৃত্যু অনেক বেশি। বাসা থেকে বের হয়ে শত শত মানুষ আর বাসায় ফিরতে পারে না, অনেকে লাশ হয়ে পড়ে কিংবা কারো খবর আর সারা জীবনেও পাওয়া যায় না! ফলে আমাদের দুনিয়ার অন্যান্য দেশের মানুষের তুলনার আরো বেশি সতর্ক থেকে জীবন যাপন করতে হয়, বেঁচে থাকাটাই এখন আমাদের দেশের জন্য একটা বড় ব্যাপার। যাই হোক, এই সব কথা নুতন নয় আপনারাও জানেন আমিও জানি।

আজ আমি আপনাদের সামান্য সময় নিয়ে যা বলবো, তা হচ্ছে প্রিয় ভাইবোনেরা, আপনাদের যাদের বাবা মা বেঁচে আছেন তাদের খবরটা একটু বেশি বেশি নিয়েন। উনারাও একদিন এই দুনিয়া থেকে বিদায় নিবেন এবং নিয়ম মোতাবেক আপনার আগেই। আজ আপনি যে অবস্থানে আছেন, যা কিছু করছেন এটা উনাদের জন্যই করছেন। বাংলাদেশে বর্তমান এমন কোন জেনারেশন নেই যে বলতে পারবে, যাদের মানুষ করার পেছনে বাবা মায়ের কষ্টকর অধ্যায় নেই। আমি নিশ্চিত আপনাকে মানুষ করতে, আপনার বাবা মাকে অনেক বেলা হয়ত না খেয়ে থাকতে হয়েছে! এর চেয়ে আর দুঃখজনক কি হতে পারে!

আজ আপনার সব হয়েছে বা হবে, আপনি নিজে বিয়ে করেছেন, আপনার সুন্দর স্ত্রী আছে, সুন্দর সন্তানেরা আছে, বড় চাকুরী বা ব্যবসা করেন, আরো হবে সব কিছু। দয়া করে বাবা মায়ের খবরটা নিয়েন, মাসে মাসে একটা নিদিষ্ট টাকা তাদের জন্য পাঠাবেন, আপনার কম পড়বে না! মাঝারি মানের একটা হোটেলে না হয় এক বেলা খাবেন না, দুইহাজার টাকা বেঁচে যাবে, সেই টাকাই উনাদের পাঠিয়ে দিয়েন।

অনেক স্ত্রীরাই বাবা মা এবং আপনার মধ্যে একটা দুরত্ব/দেয়াল তৈরী করে দেন, প্লিজ বিবেক বোধ জাগান, দোয়াল ভাঙ্গুন, স্ত্রীকে স্ত্রী জায়গায় রাখুন বাবা মাকে তাদের পাপ্য মর্যদা দিন। বাবা মাকে টাকা দিতে কিংবা সেবা করতে স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করে দিতে/করতে হয় না। স্ত্রীকে বোঝাতে চেষ্টা করুন, একদিন তিনিও আর সুন্দরী থাকবেন না, চামড়া কুচকে যাবে, তিনিও একাকী হয়ে পড়বেন, তিনিও মারা যাবেন, এতেও কাজ না হলে আপনি আপনার পথেই থাকুন। একটু ভেবে দেখুন এই যে, আপনি প্রতিটা বেলা ভাল খাচ্ছেন, আপনার বৃদ্ধ বাবা মা কি খাচ্ছেন!

আসলে, এই বিষয়ে কিছু বলার দেখি না, আমি জানি আপনারা আমার চেয়ে আরো আরো বেশি বুঝেন। তবুও যখন গ্রামে/শহরে বৃদ্ধ মানুষ গুলোর শুকানো মুখ দেখি, তখন প্রশ্ন উঠে যায়! আপনি আমি আমাদের বাবা মাদের যঠিক যত্ন নিচ্ছি না বলেই তো উনার এমন মলিন হয়ে পড়ছেন!

আবারো বলি, মা বাবাকে ভুলে যাবেন না, উনাদের হক/সেবা আদায় করুন সবার আগে, উৎসবে উনাদের উপহার ও বাড়তি টাকা দিন, উনারা নিশ্চিন্তে দিন কাটাক, জীবনের শেষ কয়েকটা দিন অন্তত!

সামু ব্লগে এক যোগে প্রকাশিতঃ
http://www.somewhereinblog.net/blog/udraji/30250408

2 responses to “নোটিশঃ মা বাবাকে ভুলে যাবেন না, উনাদের হক আদায় করুন সবার আগে, উৎসবে উনাদের উপহার ও বাড়তি টাকা দিন।

  1. vhaia ,bhalo laglo post ta dekhe.ami baba k hariechi onk choto belaie.6 vhai 2 boner sober choto ami.amr baba chilo primary school er teacher.amr 6 bhai highly educated and tara amader boro korechen.amr boro boner onk boro barite bia hober por ok r amader basai beshi aste dite chaito na or sosur barir lokera.Tai amr ma Alawys namaj pore pray korto amr jeno kachakachi Bia hoi and onake jeno ami weekly ontoto dekhte pari.Allah oner parhona Shunechen.Ami ma k sokale bathroom korie,insulin dia office a asi aber rat 11-12 tai aber onek dekhte jai.R amr sosurbarir karo kno complain o nei amr a regular jaoate. Akta kotha akahne boli amr boro bhabi amr ma k prochondo bhalobashen…oner kachei achen amr ma.aj 2 yrs holo amr ma bed a pora.oner chele mera onake onk bhalo basen.Vhaia Amr Maer jonno Pray korben Please.Thanks.

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ বোন, আপনার কমেন্ট অনেকবার পড়লাম। আসলে এটা হচ্ছে ছাড় দেয়ার মানষিকতা, যে বেশি ছাড় দিবে তার জীবন তত সুন্দর হবেই। বৃদ্ধ বা শিশুকে যারা একটু বেশি ভাল বা একটু বেশি যত্ন নেয় তারা এই জগতে সুখী মানুষ। ইহকাল পরকাল দুই দিকের কথাই আমাদের চিন্তা করতে হয়, ফলে ছাড় দিয়েই চলতে হবে। আর মৃত্যুতো নিকটেই, এই চিন্তা করেও ভাল থাকা যায়! আপনার জন্য দোয়া করি। আপনার আম্মার জন্য দোয়া থাকলো। শুভেচ্ছা।

      Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s