গ্যালারি

আড্ডাঃ কেভিয়ার রেস্টুরেন্ট, মালিবাগ (Caviar Restaurant, Malibagh)


কেভিয়ার রেস্টুরেন্ট, মালিবাগ (শহীদ বাক্কী সড়ক) আমার বাসার পাশেই।  এই বাসায় ভাড়া উঠে আসার পর বলা চলে বাসায় রান্নার পরে এই হোটেলের খাবারই বেশি খেয়েছি! মানে, বাসায় রান্না হয় নাই ক্যাভিয়ার থেকে নিয়ে আসো, বাসায় চুলায় আগুন নেই, ক্যাভিয়ার থেকে নিয়ে আসো, বাসায় মেহমান আছে, ক্যাভিয়ার থেকে নিয়ে আসো।  আর স্ত্রী বেড়াতে গেলে আমি মোটামুটি ক্যাভিয়ারের পারমানেট ক্যাষ্টমার হয়ে যাই! ৬৫০ টাকার খাবার কিনলে আমার চার বেলা আরামসে চলে যায়, অফিস থেকে ফিরে চিন্তা ছাড়া খেয়ে ঘুমাতে পারি! ৩৩০টাকার কেভিয়ার মিক্স ভেজিটেবল এবং ৩২০টাকার ফ্রাইড রাইস! এই ক্যাভিয়ারের মোটামুটি সবাই আমাকে, আমার ছেলেদ্বয়কে চিনে থাকে, গার্ডদের লম্বা সালাম পেয়ে পেয়ে অভ্যাস খারাপ হয়ে পড়ছে! বাসার গার্ডের চেয়ে এদের সালাম আমার কাছে বেশি দামী মনে হয়, ফলে ঈদে চাঁদে এদের আমার বেশী বকশিস দিতে হয়! রিক্সা থেকে নামলে হাতে কিছু থাকলে এরা এগিয়ে আসে, আমাদের বাসার গার্ড দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখে! যাই হোক, আমাদের বাসার গার্ড গুলো মনে করে শুধু পাহারা দেয়াই কাজ, অন্য কিছু নয়।  অথচ একটু হেল্প করলে যে একজনের মনের কোঠায় জায়গা করে নেয়া যায় সেই ট্রেনিং হয়ত এদের দেয়া হয় নাই!

এই কাছের রেস্টুরেন্ট, এত খেয়েছি অথচ এদের নিয়ে এখনো ব্লগে কিছু লেখি নাই, এটা ভাল বিষয় নয়! কিছু কাজ আছে করা হয়ে উঠে না, এই কাজটা এমন হল! যাই হোক, আজ সেই সময় এসেছে।  আমি প্রথমেই বলবো, ক্যাভিয়ারের খাবার ভাল, দাম রিজনেভল এবং সেবার মানও বেশ ভাল।  এই রেস্টুরেন্টটা মুলত এই চৌধুরি পাড়ার অনেক পুরাতন হোটেল এবং পার্টি হাউস।  এই রাস্তায় এখন শতাধিক রেস্টুরেন্ট হলেও এটা তার সেই আগের মান ও সন্মান ধরে আছে।  প্রায় প্রতিদিন এরা বিবাহ, জন্মদিন, গায়ে হলুদ কিংবা এমনি নানান পার্টির আয়োজন পেয়ে থাকে। দেশি, চায়নিজ, থাই ফুডের যে কোন আইটেম যে কোন সময়ে করে দিতে পারে।  খাবার কিভাবে রান্না হবে কিংবা কি কি দেয়া যাবে না তাও বলে দিতে পারেন।  যেমন আমি আমার খাবারে সব সময়েই বলে দেই ‘টেস্টিং সল্ট’ দিবেন না! চলুন ছবি দেখে নেই!

20180313_222603
ছবি ১, পুরো বিল্ডিং জুড়েই এই রেস্টুরেন্ট, রাতে আলো জ্বলমল করে থাকে।

IMG_20170815_212513
ছবি ২, সেই আদি ডিজাইন!

IMG_20170815_212521
ছবি ৩, খাবারের অর্ডার।

IMG_20170815_214435
ছবি ৪, পানির অপর নাম জীবন।

IMG_20170815_214617
ছবি ৫, শিশুদের খেলার জায়গা আছে।

IMG_20170815_214705
ছবি ৬, বেশ খোলামেলা পরিবেশ, বসে খেয়ে গল্প করে আনন্দ পাওয়া যায়।

IMG_20170815_214824
ছব ৭, ক্যাভিয়ার স্পেশাল ফ্রাইড রাইস।

IMG_20170815_214857
ছবি ৮, ক্যাসুনাট সালাদ।

IMG_20170815_214912
ছবি ৯, মিক্স ভেজিটেবল, এটা ডিস টা আমার পছন্দ।

IMG_20170815_214958
ছবি ১০, বিফ।

IMG_20170815_214916
ছবি ১১, মোটামুটি এই তো সাধারণ রেস্টুরেন্টের খাবার, তবে আরো কত কি আইটেম আছে, সেই সব আবার আমাদের মত সাধারণ পাব্লিক ওয়ার্ডার করতে পারে না, ভয়ে! খেতে পারবে কি না! আর মেনুতে লেখা সব খাবারই সে তারা করে দিতে পারবে তাও নয়! প্রায় রেস্টুরেন্টে মেনুতে অনেক খাবার লিখে রাখে, কিন্তু চাইলে বলে হবে না! ক্যাভিয়ারে এমন হয় কি না জানি না!

IMG_20170727_221818
ছবি ১২, রাতের জ্বলমলে রেস্টুরেন্ট!

সবাইকে শুভেচ্ছা।  আসুন একবার, এখানে এসে আমাকে ফোন করলে, আমিও আপনাদের সাথে যোগ দিতে পারবো, তবে তা অবশ্যই রাতের খাবারের সময় হতে হবে!

2 responses to “আড্ডাঃ কেভিয়ার রেস্টুরেন্ট, মালিবাগ (Caviar Restaurant, Malibagh)

  1. ভালো লাগলো।

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s