গ্যালারি

রেসিপিঃ বিফ বিরিয়ানী (এক্সক্লুসিভ)


বিফ বিরিয়ানী, এটা আমাদের একটা এক্সপেরিমেন্ট রান্না এবং এক্সক্লুসিভ আইটেম, বেশি যত্ন নিয়ে করা। যাই হোক, বিরিয়ানী যদিও শুধু মাটন কিংবা চিকেনের হয়ে থাকে তথাপি গরুর গোশত দিয়ে নয় কেন? মাছ, ডিম, শাঁক সবজি দিয়ে এর আগে আপনাদের বিরিয়ানী রান্না দেখেছি তাই আমাদের এই বিশেষ আয়োজন! আসলে কয়েকদিন শাকসবজি খেতে খেতে মুখের অবস্থা যখন একটা বেগতিক অবস্থায় দাঁড়ায় তখন এমনি একটা রান্না না হলে জমে না! তবে এই রান্নার সাথে আমাদের দেশের জনপ্রিয় তেহারী রান্নার মিল আছে। হা হা হা…

উপকরন ও পরিমানঃ
– গরু মাংস, ১ কেজি
– পোলাউ চাল, ৭৫০ গ্রাম
– গোল আলু, হাফ কেজি
– পেঁয়াজ কুঁচি, হাফ কাপ
– আদা বাটা, দেড় টেবিল চামচ
– রসুন বাটা, দেড় টেবিল চামচ
– জিরা গুড়া, ১ চা চামচ
– কাঁচা মরিচ বাটা, দুই টেবিল চামচ (ঝাল বুঝে)
– গোল মরিচ বাটা, আধা চা চামচ
– জয়ত্রী বাটা, হাফ চা চামচের কম
– জয়ফল বাটা, এক চিমটি
– বাদাম বাটা, হাফ কাপ (কাজু বাদাম বাটা হলেও চলবে)
– গরম মশলা (এলাচি কয়েকটা, দারুচিনি কয়েক পিস)
– লবন, পরিমান মত
– টক দই, দেড় কাপ বা সামান্য বেশি
– কয়েকটা আস্ত কাঁচা মরিচ
– তেল, দেড় কাপ (তেল সামান্য বেশি হলে ভাল, আমি কম তেলেই রান্না করেছি)
– পানি (গরম হলে ভাল, রান্না শুরুর আগে কিছু পানি গরম করে রেখে দিতে পারেন তবে না হলে নাই, ব্যাপার না!)

প্রনালীঃ (ছবি কথা বলে)

ছবি ১, হাড় ছাড়া বিফ একটু বড় টুকরা করে নিন। কয়েক বার ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন।


ছবি ২, তেল গরম করে একে একে লবন সহ মশলা দিয়ে যেতে থাকুন।


ছবি ৩, উপরে উল্লেখিত মশলা গুলোর পরিমাণ দেখে নিন।


ছবি ৪, আদা রসুন বাটা দিন।


ছবি ৫, বাদাম বাটা দেয়ার পর দই দিন।


ছবি ৬, আগুন মাঝারি আঁচে থাকবে। ভাল করে গরম হয়ে ফুটে যেতে দিন।


ছবি ৭, এবার বিফ দিয়ে দিন।


ছবি ৮, মাঝারি আঁচে আগুন চলুক।


ছবি ৯, কয়েকটা কাঁচা মরিচ দিতে ভুলবেন না।


ছবি ১০ ঢাকনা দিয়ে দিন।


ছবি ১১, চুলার ধার ছেড়ে যাবেন না। মাঝে নাড়িয়ে দিন।


ছবি ১২, গোশত মজে গেল কি না দেখুন।


ছবি ১৩, এবার আলু দিন।


ছবি ১৪, এবার ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখা চাল দিন।


ছবি ১৫, এক লিটার বা কম (চালের ধরন বুঝে) পানি দিন।


ছবি ১৬, এবার ফাইন্যাল লবন দেখুন। পানি কিছুটা কটা হতে হবে।


ছবি ১৭, এবার ঢাকনা দিয়ে রাখুন। আগুনের আঁচ বুঝে মিনিট ১৫/২০ লাগবে।


ছবি ১৮, পাশে অন্য চুলায় তাওয়া গরম দিতে পারেন। দম দেয়ার জন্য।


ছবি ১৯, পানি গা গা হয়ে এলে হাড়ি তাওয়ায় ছড়িয়ে দিন এবং ঢেকে রাখুন।


ছবি ২০, পানি শুকিয়ে কিছুক্ষনের মধ্যেই এমনি হয়ে যাবে। যদি চাল শক্ত থাকে, তা হলে পানি ছিটিয়ে দিতে পারেন। আর যদি পানি বেশি হয় তবে ঢাকনা খুলে আগুন বাড়িয়ে নাড়িয়ে দিতে পারেন।


ছবি ২১, ব্যস হয়ে গেল ঝরঝরে বিফ বিরিয়ানী।


ছবি ২২, পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।


ছবি ২৩, দেখে বলুন কে না খেতে চাইবে।


ছবি ২৪, অপূর্ব!


ছবি ২৫, প্লেট পরিবেশনা, নিজের জন্য! খেয়েই শান্তি! আহ।

ফেবু লিঙ্কঃ https://goo.gl/Vs4X1D

সবাইকে শুভেচ্ছা।

কৃতজ্ঞতাঃ মানসুরা হোসেন

Advertisements

9 responses to “রেসিপিঃ বিফ বিরিয়ানী (এক্সক্লুসিভ)

  1. এটা পুরাই তেহারী বা আখনী হয়েছে। মাংসটাকে পোলাওয়ের ভাজে ভাজে দিলে আর কিছু বেরেস্তা ছিটিয়ে দিলে+ কেওড়া জল আর আলুটাকে ভেজে নিলেই বীফ বিরিয়ানী পারফেক্ট হবে! :p

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ আপা, সালাম নিবেন। অনেকদিন পর ব্লগে দেখাম। আজকাল ফেবুতেও আপনাকে দেখি না, এখন তো সময় আপনার, অনেক সময় হাতে পাচ্ছেন তবুও লিখছেন না কেন? লিখুন আপা, যা ইচ্ছা হয়।
      আপা, এই রেসিপি নিয়ে কিছু বলার নেই, আমি শুরুতে অবশ্য বলে দিয়েছি। হ্যাঁ, এটা তেহারী বা আখনীর একটা রান্না মাত্র!
      শুভেচ্ছা নিন। আশা করি আবারো দেখা পাব।

      Like

  2. বিরিয়ানির কালার টা অনেক সুন্দর হয়েছে।খেতে মন চাইছে। ভাইয়া,চাল কি ৭৫০ কেজি,নাকি ৭৫০ গ্রাম?

    Liked by 1 person

  3. Sahadat bhai apnar proti ta ranna r step dekhe ami onk pleased.ami kono ranna e partam but apnar step by step shb ranna r tutorial dekhe ami motamoti radhuni hochi.m

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ বোন। আমার কনসেপ্ট হচ্ছে যারা নুতন রান্না করতে চান তাদের নিয়েই! নেটে কম রেসিপি নেই, অনেক। কিন্তু সেই সব রেসিপি দেখে রান্না করতে পারে তারাই যারা রান্না জানেন তারাই। আমি সব সময়েই নূতনদের নিয়ে কাজ করতে চাই। প্রবাসী, ব্যচেলর্স ভাই বোনদের নিয়েই আমি কাজ করে যেতে চাই। আমি শুধু রান্না ঘরে নিয়ে যেতে চাই। যারা একটু সাহস করে আসবে, তারাই জেনে যাবে! আপনি রান্না করেন জেনে খুশি হলাম। আশা করি একদিন রান্নায় আপনার নাম ছড়িয়ে যাবে। শুভেচ্ছা নিন।

      Like

  4. ভাইয়া,আমি সবসময় আপনার ব্লগে আসি।কমেন্ট করা হয়না সবসময়। কিন্তু আপনার সব রেসিপি আমার দেখা শেষ, তা শুধু একবার না, কয়েকশ বার হবে।আপনার সব রান্না আমার অনেক প্রিয়। আপনার ব্লগ,আমার দেখা ব্লগের মাঝে সব চাইতে সেরা। ওয়াল্ড বেস্ট কুকিং ব্লগ।

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ বোন।
      আপনার কমেন্ট পড়ে আনন্দিত হলাম। তবে আমি আর একটু সুযোগ পেলে আরো জমিয়ে তুলতে পারতাম। সেটা পাই না, সারাদিন টাকা রুজির পিছনে পড়ে থাকি! বাসায় ফিরে রান্না এবং চেষ্টায় লাগি, সেটাও অনেক স্ময় দুরহ হয়ে দাঁড়ায়। সবাই যত সহজে বিপক্ষে দাঁড়িয়ে যায় তত হেল্পের নয়! বলা যায় নিজের কঠিন চেষ্টার মধ্য দিয়েই এগিয়ে চলছি। স্ত্রী পুত্রদেরো কখনো কখনো বুঝানো যায় না! আমি রাতে ১২টা থেকে ২টা জেগে লিখতে চাই, সেটাও অনেক সময় পাই না! কিছু না কিছু একটা বাঁধা এসে দাঁড় হয়ে যায়!

      তবুও চেষ্টা চালাবো। আপনাদের ভাল্বাসা ও দোয়া থাকলে আমি এগিয়েই যাব। তবে ভাল ভাল রান্নার জন্য বেশী বেশি টাকার দরকার, আমাকেও বাজারে ঘুরতে হয়! মশলা পাতির দাম কম নয়! কোনটা দিয়ে কোনটা হলে ভাল সেটাও ভাবনাতে আনতে হয়। কিছু জেলা উপজেলায় ঘুরতে পারলে কিছু আঞ্চলিক রান্না তুলে নিয়ে আনতে পারতাম, সেটাও পারছি না, অভাবে ও স্বভাবে! কখনো পারি না টাকার জন্য, কখনো স্ময়ের জন্য, কখনো পরিস্থিতি। মধ্যবিত্ত মানুষের যা অবস্থা আর কি!

      যাই হোক, মনের কিছু দুঃখের কথা বলে ফেললাম! না বলে আর কত চুপচাপ থাকবো! কাউকে না কাউকেতো বলতেই হবে। হা হা হা…

      শুভেচ্ছা। আশা করি সাথে থাকবেন!

      Like

  5. অ‌নেক ভ‌া‌লো লা‌গে পেইজ টা। ‌কিন্তু আমার কো‌নো বি‌রিয়া‌নি রান্নায় ঝরঝ‌রে হয়না। 😦 কেন?

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s