গ্যালারি

রেসিপিঃ ভর্তা (মিক্স, মুখের রুচি)


বয়স হয়ে গেলে ঝাল ঝুল খেতে ভাল লাগে! এই মিন আমি ভর্তার কথা বলছি! ভর্তা হলে চারটে ভাত (প্রথম প্লেট) আনন্দে খাওয়া যায়! যাই হোক, অনেক দিন ধরে আমাদের বাসায় ভর্তা হচ্ছিলো না। গতকাল ছুটির দিনে বাজারে গিয়ে এই বছরে প্রথম সিম কিনলাম। বাজারে দাঁড়িয়েই সিদ্ধান্ত নিলাম, আজ একটা ভর্তা হয়ে যেতে পারে!

আমাদের ভর্তা সেকশনে এই রকম ভর্তা আরো আছে। তবে এই ভর্তায় কাঁচা মরিচের বদলে শুকনা মরিচ ব্যবহার করা হয়েছে! আপনারা চাইলে কাঁচা মরিচ দিয়েও বানিয়ে নিতে পারেন। ভর্তা একটু ঝাল না হলে চলে না। ভর্তা ঝাল করে বানালে শিশুদের থেকে দূরে রাখবেন। চলুন দেখে ফেলি। খুবই মজাদার একটা খাবারের আইটেম! আমি মনে করি আপনাদের ঘরে সবই আছে, ইচ্ছা করলেই বানিয়ে নিতে পারেন।

উপকরন ও পরিমানঃ (পরিমান আপনি নিজেও করতে পারেন) 
– মাছের টুকরা, রুই মাছ বা এই ধরনের বড় মাছ হলে ভাল, মাছের টুকরায় সামান্য হলুদ মেখে নিতে হবে।
– আলু,  একটা
– সিম, পরিমান আপনি নিজেও করে নিতে পারেন
– মরিচ, কাঁচা মরিচ বা শুকনা মরিচ, ঝাল বুঝে নিন
– পেঁয়াজ, মাঝারি একটা
= ধনিয়া পাতা, ইচ্ছা
– লবন, বুঝে
– তেল, সামান্য ভাঁজার জন্য (ছবি দেখুন)

প্রনালীঃ (ছবি কথা বলে)

ছবি ১, সামান্য তেলে এভাবে ভাঁজুন। কম আঁচে। তাওয়া বা খোলায়।


ছবি ২, সামান্য সময়ে ঢাকনা দিয়ে রাখুন।


ছবি ৩, এক পিট হয়ে গেলে অন্য পিট উল্টে দিন, এভাবে ভেঁজে তুলে রাখুন। মাছের ভেতরটা সিদ্ধ হল কি না, তা দেখতে হবে।


ছবি ৪, এবার সিম গুলো এভাবে সামান্য লবন দিয়ে একই কায়দায় ভেঁজে তুলে রাখুন।


ছবি ৫, ঢাকনা দিয়ে ভাঁজতে হবে।


ছবি ৬, ভাঁজা হয়ে গেলে এভাবে তুলে রাখুন।


ছবি ৭, এবার মরিচ ভাঁজুন। কাঁচা মরিচ হলেও এভাবে ভাঁজতে বা পুড়িয়ে নিতে হবে।


ছবি ৮, এবার একে একে সব বেঁটে নিতে হবে।


ছবি ৯, খুব একটা মিহিন বাটা না হলেও চলে।


ছবি ১০, মাছের কাটা বেছে এভাবে বেঁটে নিতে হবে।


ছবি ১১, আলুটা সবার পরে বাটতে হবে।


ছবি ১২, এবার সামান্য লবন যোগে কাঁচা পেঁয়াজ বাটুন।


ছবি ১৩, ধনিয়া পাতা বাটুন।


ছবি ১৪, ব্যস, ভাল করে মিশিয়ে নিন।


ছবি ১৫, এই মিশানোর উপর ভর্তার স্বাদ নির্ভর করে। ভাল করে মিশিয়ে নিন। এই সময়ে ফাইন্যাল লবন স্বাদ দেখুন, লাগলে দিন।


ছবি ১৬, ব্যস, পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।

দেখুন কত মজাদার খাবার। আশা করি বাসায় একবার বানিয়ে খাবেন। সবাই আনন্দে থাকুন।

সবাইকে শুভেচ্ছা।

কৃতজ্ঞতাঃ মানসুরা হোসেন

Advertisements

10 responses to “রেসিপিঃ ভর্তা (মিক্স, মুখের রুচি)

  1. Yummyyy!!Borboti,chingri aar alu olpo lebur ros diea evabei vorta kore dekhben onek moja hoi khete.

    Liked by 1 person

  2. আমি পেঁয়াজও অন্যান্য উপকরনের মতো ভেজে নেই। এতে ভর্তা বেশি সময় ভালো থাকে।

    Liked by 1 person

  3. একদম অন্যরকম একটা ভর্তার রেসিপি দিলেন। এরকম কোন ভর্তা আমি আগে খাইনি। আমি আজকেই বানাব।

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s