গ্যালারি

রেসিপিঃ মোরগ রান্না (কম মশলা তেলে, পুরোই ভালবাসা)


রান্না আসলে এমন একটা ব্যাপার যে, যেখানে পুরোটাই হচ্ছে ভালবাসা। হৃদয়ে, মনে ভালবাসা না থাকলে কখনোই ভাল রান্না করা সম্ভব নয়। ফাঁকি ঝুঁকি কিংবা মনের মাঝে পঙ্কিলতা নিয়ে কখনোই ভাল রান্না সম্ভব নয়। কুটুচালে রান্না হবে ঠিকই কিন্তু কেহ খেতে পারবে না, খেলেও শরীরে বেঁধে যাবে রোগের বাসা, সাথে হারাবো টাকা কড়িও! যাই হোক, কথা গুলো এইজন্য বললাম যে, আপনি চাইলে রান্না করেই কাউকে ফাতুর করে দিয়ে পারেন আবার রান্না করেই কারো পুরো মন জয় করে নিতে পারেন, পারেন কম টাকায় ভাল রান্না করে সবাইকে নিয়ে সুখে দিন কাটতে।

আমি যখন রান্না জানতাম না, তখন এই সব চাল বুঝি নাই, এখন বুঝি অনেক কিছুই এবং আরো শেখার অনেক কিছুই বাকী! ঘটনা এমনি যে, আপনি খাইয়েই আপনার পাশের জনকে মেরে ফেলতে পারেন, অসহায় বেচারা না পারবে সইতে, না পারবে কাউকে কইতে, বললে মানুষ ভাব্বে, সাহাবুদ্দিন সাহেব পাগল হয়ে গেছে! প্রতিদিন বেশি তেল মশলায় রান্না করে খুব কম বয়সেই পাশের বেচারাকে আধমরা করে ফেলতে পারেন! হাল্কা ঝালে ঝালে বেচারার জীবন প্রায় শেষ করে দিতে পারেন? গ্যাট্রিক, হাপানি, কাঁপানী, আইলস, পাইলস সব কিছুই তাকে আক্রমন করে ফেলবে বয়স চল্লিশ পার হবার আগেই! প্রথম প্রথম বেচারা হয়ত প্রতিবাদ করবে, আপনি শুধু একটার পর একটা আলাদা যুক্তি দেখিয়ে যাবেন, ব্যস! এক সময়ে দেখবেন বেচারার মুখে আর কোন কথা নেই! আর সাথে বেচারার পকেটের টাকা রান্না করে ফুরিয়ে ফেলতেও পারেন। এক চামচ তরকারীতে এক চামচ বেসিনে ফেলেও বেচারার টাকার বারটা বাজিয়ে দিতে পারেন! কে দেখবে? আপনার রান্নাঘরে প্রবেশ করার সাহস কি ওই বেচারার আছে? দুরের মানুষের কথা তো বাদ দিলাম!

যাই হোক, বললে অনেক কথা বলতে হবে, আপনাদের আবার সেই ধৈর্য নাই, জানি! এক কেজি পেঁয়াজ দিয়ে ৮টা মুরগী রান্না করা যায়, আবার এক কেজি দিয়ে দুইটা মুরগীও রান্না করা যায়! পেঁয়াজের কেজি আমি বলে দিলে নিশ্চয় আপনি এই সহজ হিসাব বের করতে পারবেন! পেঁয়াজ সহ অন্যান্য মশলা বেশী দিলে স্বাদের কথা চিন্তা করতে হবে না এটা জানি, তবে রান্না কি শুধু স্বাদ নিয়েই, স্বাদের পাশাপাশি কি আর অন্য কিছু চিন্তা করা চলে না! আপনার পাশাপাশি বেজগার করা লোকটার কথা কি একবার আপনার মনে পড়ে না, একটু বেশি খরচা করলে তাকেও তো একটু  খাটতে হবে কিংবা তাকেই তো চলে যেতে হবে ঘুষ, চুরি, ডাকাতি, দূর্নীতির সহ নানান অবৈধ রোজগারে, যার পথ একটাই একবার প্রবেশ করলে আর বের হয়ে আসা যায় না! একটা কথা মনে রাখবেন, পুরুষেরা রাস্তা একবার চিনলে, সেই পথে বার বার হাটেই! হা হা হা… (বুঝলে বুঝেন না বুঝলে আমি কি করবো, যা সত্য তা বলে দিলাম। আপনি আপনার কাছের জনকে ভালবাসবেন নাকি দূরে ঠেলে দিবেন, সেটা আপনার ইচ্ছা। তবে আমি মনে করি রান্না দিয়েও আপনি তাকে আপনার কাছে ধরে রাখতে পারেন, তাকে সৎ পথে চলতে সাহায্য করতে পারেন! ভুল পথে চলে যেতে লোকটা অন্তত ভাব্বে, বাইবর্ন ক্রিমিনাল না হলে সঠিক পথেই থাকবে!)

চলুন রান্না দেখি। এস ইট ইস! আমাদের সাধারন রান্নাই, কম মশলা তেলে রান্না। আগেই বলে রাখি, এটা আমার মায়ের হাতের রান্না। আমি অনুরোধ করে উনাকে রান্নাঘরে নিয়ে গিয়েছিলাম।  রান্না করতে গিয়ে মোবাইল (ক্যামেরা নষ্ট) দিয়ে কিছুতেই একা ছবি ও রান্না করতে পারছিলাম না বলে এবং সাথে উনার রান্না দেখতে ইচ্ছা হচ্ছিলো বলে উনাকে দিয়ে এই রান্না করিয়ে নিয়েছি। তবে সব কিছু আমি ঘোছায়ে দিয়েছি এবং সাথে থেকেছি। অভিজ্ঞতা কাকে বলে, রান্না না দেখলে বোঝানো যাবে না!

উপকরন ও পরিমানঃ (ছবি দেখেও অনুমান করতে পারেন, সাধারন রান্নার চেয়েও কম মশলা ব্যবহার করা হয়েছে)
– মুরগীঃ দেশি, ৭০০ গ্রাম প্রায়, ১ টা হাড় গোড় সব মিলিয়ে
– পেঁয়াজ কুঁচিঃ হাফ কাপের কম
– দারুচিনিঃ ২ সেমি, ২ টুকরা
– এলাচিঃ ২ টা
– রসুন বাটাঃ ১ চা চামচ (কম)
– আদা বাটাঃ ১ চা চামচ (কম)
– লাল মরিচ গুড়াঃ হাফ চা চামচের কম (ঝাল বুঝে)
– হলুদ গুড়াঃ হাফ চা চামচ
– জিরাঃ হাফ চা চামচ
– লবনঃ পরিমান মত, দুই ধাপে
– পানিঃ পরিমান মত, ঝোল থাকবে না তবে গোশত নরম হতে যে পরিমান লাগে
– কাঁচা মরিচঃ কয়েকটা
– তেলঃ কয়েক চামচ (অনুমান আপনি করে নিতে পারেন)

প্রনালীঃ (ছবি কথা বলে)

ছবি ১, আজকাল রান্নায় আমি বড় কড়াই ব্যবহার করছি! কড়াইতে তেল গরম করে সামান্য লবন দিয়ে পেঁয়াজ কুঁচি ভেঁজে নিন।


ছবি ২, পেঁয়াজ কুঁচি হলদে হয়ে এলে, এতে একে একে মশলা দিন। দারুচিনি, এলাচি, আদা, রসুন, জিরা বাটা দিন। ভাল করে ভাঁজুন।


ছবি ৩, এবার মরিচ ও হলুদ গুড়া দিন। ভাঁজুন।


ছবি ৪, দারুণ একটা ঘ্রান বের হবে।


ছবি ৫, এবার মুরগীর গোশত (আগেই কেটে ধুয়ে রাখা) দিন, ভাল করে মিশিয়ে নিন।


ছবি ৬, আগুন মাঝারি, কয়েক মিনিট ভেঁজে নিন। কাঁচা মরিচ দিন।


ছবি ৭, এক কাপ পানি দিয়ে দিন। কষান।


ছবি ৮,  আগুন মাঝারি আঁচ থেকে কম থাকবে।


ছবি ৯, এবার ঢেকে দিন। মাঝে মাঝে এসে দেখে যাবেন। নাড়িয়ে দেবেন।


ছবি ১০, গোশত সিদ্ধ হল কি না দেখুন, সিদ্ধ না হলে বা আরো পানি লাগলে দিতে পারেন। তবে বুঝে।


ছবি ১১, গোশত নরম হয়ে গেলেও ঝোল বেশী মনে হলে, আগুন বাড়িয়ে নাড়িয়ে ঝোল কমিয়ে নিতে পারেন কয়েক মিনিটেই!


ছবি ১২, ব্যস, হয়ে গেল। তবে এবার ফাইন্যাল লবন দেখুন, লাগলে দিন। না লাগলে এগিয়ে চলুন, মানে চুলা বন্ধ করে কয়েক মিনিট ঢাকনা দিয়ে রাখুন। তার পরেই পরিবেশনার জন্য বাটিতে তুলে নিতে পারেন।


ছবি ১৩, দেখে যেমন আনন্দ পাচ্ছিলাম, খেয়েও তেমন মজা পেয়েছি। গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন।


ছবি ১৪, এত কম মশলা তেলে রান্না এত স্বাদ হতে পারে, এটা বুঝতে হলে আপনাকেও চেষ্টা করতে হবে, রান্না করতে হবে। একবার রান্না করে দেখুন। এত দিন আপনি অনেক অনেক তেল মশলা দিয়ে তো রান্না করলেন, খরচ করলেন তো হাজার হাজার টাকা, এবার থামুন, যিনি টাকা রুজি করছেন, উনাকে একটু অবসর দিন, উনাকে আর কত চাপ দিয়ে যাবেন! একটা লাইট ফ্যানের সুইচ যথা সময়ে অফ করে যেমন উনাকে হেল্প করতে পারেন, তেমনি রান্নায় কম মশলা তেল ব্যবহার করে উনার জীবন দীর্ঘস্থায়ী করতে পারেন, পারেন উনার ভালবাসা পেতে।

আশা করি আমাদের সাথেই থাকবেন। সবাইকে শুভেচ্ছা।

কৃতজ্ঞতাঃ আম্মা ফিরোজা বেগম ও ব্যাটারী মানসুরা হোসেন

Advertisements

8 responses to “রেসিপিঃ মোরগ রান্না (কম মশলা তেলে, পুরোই ভালবাসা)

  1. bhaijan, murgi naki morog?? konta ranna korlen?? tobe rannar cobi kheye test pelam…

    Liked by 1 person

  2. সুন্দর রান্না সাথে সুন্দর কিছু কথা। খুব ভাল লাগল।

    Liked by 1 person

  3. দারুণ লোভনীয় খাওয়ার আয়োজন
    ছবিতে কথায় একদম মাখামাখি

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s