গ্যালারি

উপহারঃ রাজশাহীর আম


উপহার পেতে কার না ভাল লাগে এবং তা যদি কোন অপরিচিত (এটা এই অর্থে যে আপনি তাকে দেখেন নাই বা তার সাথে কথাও বলেন নাই) কারো কাছ থেকে হয় তবে সেই উপহার তো আর উপহার থাকে না, সেটা হয়ে যায় বিরাট পাপ্তি কিংবা ভালবাসা। আমি আমার জীবনে এমন অনেক ভালবাসা পেয়েছি। এবং শুরুতে আরো বলি, এই উপহার গুলো যারা দিয়ে থাকেন তারা অনেক বড় মনের মানুষ কারন এমন না দেখা মানুষকে উপহার দেয়া সবার পক্ষে সম্ভব নয়। টাকা কড়ি দুনিয়ার অনেক মানুষের থাকে বা আছে কিন্তু এই উপহার দেয়ার মন কয়জনের থাকে। আমি নিজেও এখনো এত উদার নই, যদিও বন্ধুত্বের সব চেষ্টা আমি করি এবং নিজকে সব সময়েই একজন ভাল মানুষ হিসাবে প্রমান করি বা চেষ্টা করি ভাল থাকার।

যাই হোক, গতকাল রাজশাহী থেকে এক বন্ধু ‘ওয়াহিদ শিবলী’ আমাদের জন্য অনেক গুলো আম পাঠিয়েছেন। তিনি আমাদের ‘গল্প ও রান্না’ সাইট পছন্দ করেন এবং এই সাইট থেকেই তিনি আমাদের চিনে থাকেন। এই চেনা জানা থেকেই তিনি আমাদের জন্য এই উপহার পাঠিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, এই আম গুলো উনাদের আম বাগানের এবং আমাদের চিন্তা করেই আগে থেকে ভেবে রেখেছিলেন, আম হলে আমাদের জন্য পাঠাবেন।

এর পূর্বের রাতের গল্প বলি! অফিস থেকে বাসায় ফেরার পর আমার স্ত্রী (আপনাদের পরিচিত ব্যাটারী আপা) আমাকে জানালেন, বড় ছেলে আম খেতে চেয়েছে। আমি বললাম, বাজার থেকে আম কিনতে সাহস হয় না, ঢাকার সারা রাস্তা এখন আমে পরিপূর্ন, দামেও কম কিন্তু আম গুলো দেখলেই কেন যেন মনে হয়, আমে বিষ মেশানো বা জোর করে পাকিয়ে, কেমন যেন এক ধরনের পাউডার দেয়া! আর আমি টাকা দিয়ে বিষ কিনে শিশুদের খাওয়াবো? রাস্তায় হেঁটে চলার সময়ে কত কি ফল দেখি কিন্তু মন থেকে কিছুতেই নিশ্চিত হতে পারি না যে, এই ফল গুলোতে ভেজাল মিশানো হয় নাই। এখনো বাস্তব সত্য যে, ভেজাল মিশানো হচ্ছেই!

এবার ভেবে দেখুন, এই অবস্থায় সরাসরি এমনি ভেজাল বিহীন আম ফল উপহার পেলে কি আনন্দ হতে পারি। ধন্যবাদ ওয়াহিদ শিবলী ভায়া। আপনাকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা এবং ধন্যবাদ, আমাদের মনে রাখার জন্য। আপনি ভাল থাকুন, আপনার সময় গুলো আনন্দে কাটুক।


ছবি ১ঃ অফিস ফেরার পথে এভাবে কুরিয়র সার্ভিস থেকে আমের ঝুড়ি ডেলিভারী নিয়ে বাসায় ফিরি।


ছবি ২ঃ ছোট ছেলের আমভর্থনা!


ছবি ৩ঃ রাজশাহী/ চাপাই নবাব গঞ্চের আম বাগানের লোকজন আমের ঝুড়ি প্যাকিং করতে এখন এতই দক্ষ যে, এই ঝুড়ি এভাবে বিদেশেও পাঠানো হলেও কোন সমস্যা হবে না। ঝুড়ির আম গুলো একটাও নষ্ট হবে না।


ছবি ৪ঃ এমন আম দেখে কার না মন ভরবে!


ছবি ৫ঃ ঝুড়িতে এত আম!


ছবি ৫ঃ এত আম  বিলি বন্টন না করে কি খাওয়া যায়? আমাদের আশে পাশের সব প্রতিবেশীকে বিলি করা হয়েছে, কিছু আত্মীয় স্বজনকেও দেয়া হয়েছে। আজ সকালে অফিসে যেতে আমাদের কয়েকজন অফিস কলিগের জন্যই নিয়ে গিয়েছিলাম, কাল কিছু আম আমাদের আরেক চাচীমায়ের জন্যও পাঠাবো বলে ভাবছি।


ছবি ৬ঃ রাতে ব্যাটারী আমাদের জন্য কয়েকটা আম কেটে নিয়েছিলেন।


ছবি ৭ঃ অসাধারন স্বাদ। খেতে খেতে মনে হয়েছে, কত দিন এমন আম খাই নাই। আহ…।। কি সুমিষ্ট! ফলফলাদির জন্য উপরোয়ালাকে স্মরণ করতেই হয়, দুনিয়ার স্থলে বাস করা সকল প্রানীর গাছের ফলাফলের প্রয়োজন আছেই।

আবারো ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা থাকলো শিবলী ভায়ার জন্য (যাকে আমি এখনো দেখি নাই), যতদুর জানি তিনি এখনো বিয়ে করেন নাই, দোয়া করি যেন জলদি বিয়েটা হয়ে যায়! হা হা হা…।

(আমাদের বাড়ি থেকেও কিছু আম এনেছিলাম কয়েকদিন আগে, সে গুলো অনেক টক ছিল, সব মাটিতে আম হয় না, আমাদের রাজশাহী অঞ্চলের মাটি মনে হয় আমের জন্যই!)

Advertisements

One response to “উপহারঃ রাজশাহীর আম

  1. Amar pokkho theke Shibli bhai ke best wishes janaben….

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s