গ্যালারি

রেসিপিঃ শুকনা পুঁটি শুঁটকি ভুনা (পোলাউ এর সাথে দারুন খাবার)


গল্পটা পুরানো, আবারও নুতন করে বলি! এক সরকারী চাকুরে ঘুষ নিতে নিতে এমন পর্যায়ে গেলেন যে, তিনি অফিসে এসেই ঘুষ নিতে থাকেন, ঘুষ ছাড়া আর কিছুই বুঝেন না, ঘুষ নেয়ার যাবতীয় মন্ত্র তিনি মুখস্থ করে ফেলেছেন! এদিকে তাকে নিয়ে অফিসের সবাই তটস্থ! বড়কর্তা তার প্রসঙ্গে শুনে শুনে কান ঝালাপালা করে ফেলেছেন! একদিন বড়কর্তা সিদ্ধান্ত নিলেন, সেই ঘুষখোরকে আর অফিসে ডিউটি দিবেন না, তিনি তাকে নদীর পাড়ে বসিয়ে দিলেন, এতে যদি সে ঘুষ না নিয়ে থাকতে পারে! বললেন, তোমার ডিউটি এখানেই, বসে বসে নদীর ঢেউ গুনে আমাকে রিপোর্ট করবে। ঘুষখোর কিছু সময় ঢেউ গুনেই দেখলো নদীতে চলাচলকারী নৌকা, লঞ্চের কারনে ঢেউ গোণা যাচ্ছে না, ঢেউ ভেঙ্গে যাচ্ছে! সে নৌকা, লঞ্চের চালকদের সাথে বিরাট চিল্লাচিল্লি লাগিয়ে দিল, ব্যাটারা তোরা আমাকে ঢেউ গুনতে দিচ্ছিস না, তোদের চলাচলে নদীর ঢেউ গুনতে পারছি না, তোদের চলাচল বন্ধ! চালকরা কি আর করবে, ঘুষখোরকে ঘুষ দিয়ে চলাচল করতে লাগলো! আর ঘুষখোর নদীর ঢেউ গুনতে লাগল! (বর্তমানে এমন মেধা সম্পন্ন ঘুষখোরেই ভরে আছে আমাদের চারিদিক!)

গল্প ও রান্নাতে গল্প না করলে কোথায় যেন একটা ফাঁকা থেকে যায়। কিন্তু গল্প করতে সময়ের দরকার, সেই সময় কোথায় পাই! এদিকে মুল গল্প গুলো আবার আড্ডা বা লেখা পড়া থেকেই সংগ্রহ করতে হয়। আড্ডা দেয়া এবং পড়াশুনাও এখন কঠিন কাজ হয়ে পড়ছে। উপরের গল্পটা বেইলী রোডের এক আড্ডা থেকে জেনেছি, সেদিন বাংলাদেশের সরকারী অফিস আদালতের অবস্থা নিয়ে বন্ধুদের মধ্যে আলোচনা হচ্ছিলো। আসলে বর্তমান বাংলাদেশের অবস্থা এমনি। আমরা যারা সরকারী অফিস আদালতে যাই, আমরা বুঝি, কি হচ্ছে এখন। যাই হোক, চলুন রান্নায় চলে যাই, বাংলাদেশ একদিন উঠে আসবেই এই আশা করি।

আমাদের আজকের রান্না হচ্ছে, শুকনা পুঁটিমাছের শুঁটকি ভুনা। এই রকম ভুনা আমরা আপনাদের আগেও দেখিয়েছি তবুও আজকের এই রান্নাটার একটা বিশেষ দিক আছে, তা হচ্ছে আজ এই রান্নাটা করা হয়েছিল, পোলাউ দিয়ে খাবার জন্য। ঘরে একজন মেহমান ছিলেন, তিনি শুঁটকি খেতে পছন্দ করেন বলে আমরা এই রান্নাটা করেছি। আশা করছি, আপনারাও এই রান্না করে দেখতে পারেন, ভাল লাগবে। সাধারণ ও সহজ রান্না! তেমন জটিল কিছু নয়। চলুন দেখে ফেলি।


শুঁটকি মাছ ভাল করে সামান্য কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হয়। ছোট শুঁটকি মাছের মাথা ফেলে দিতে পারেন। পুঁটি মাছের চ্যাপা শুঁটকি অনেকেই দেখেছেন, কিন্তু পুঁটি দিয়ে এই শুকনা শুঁটকি হয়ত অনেকে দেখেন নাই। আগে গ্রামে মাছ বেশি পেলে এমনি শুকনা শুঁটকি বানিয়ে রেখে দিতেন এবং সারা বছর তা কাজে লাগত! আমাদের জন্য এই শুঁটকি নিয়ে এসেছেন আমাদের বরিশালের প্রতিবেশী, উনাদের আগেই ধন্যবাদ জানিয়ে দিচ্ছি।

উপকরণঃ (অনুমান আপনি নিজেও করতে পারেন)
– শুকনা পুঁটি শুঁটকি, ১০০ গ্রাম বা কম।
– পেঁয়াজ কুঁচি (হাফ কাপ)
– কয়েকটা কাঁচা মরিচ (ঝাল বুঝে, আগে ও পরে)
– দুই চা চামচ রসুন বাটা
– ধনিয়া পাতা কুঁচি (কয়েক চামচ)
– লবন (পরিমান মত)
– তেল (শুঁটকীতে একটু তেল বেশী অনেকই পছন্দ করেন)
– পানি (পরিমান মত বা সামান্য, শুঁটকি রান্নাতে কম পানি লাগে)

প্রনালীঃ

ছবি ১


ছবি ২


ছবি ৩


ছবি ৪


ছবি ৫


ছবি ৬


ছবি ৭


ছবি ৮


ছবি ৯


ছবি ১০


ছবি ১১


ছবি ১২


ছবি ১৩


ছবি ১৪

এই শুঁটকি রান্না নিয়ে ফেবুতে একটা স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম, বরিশালের শুকনা পুঁটি মাছের শুঁটকি ভুনা রান্না, পোলাউ এর সাথে খেতে খুব আরাম! কমেন্টে অনেকই দেখলাম, অনেকই এখনো পোলাউ এর সাথে শুঁটকি মাছ রান্না খেয়ে দেখেন নাই। আমি নিজেও বা আমাদের পরিবারেও এমন দেখেছি বলে মনে পড়ে না। বিবাহের পর এবং আলাদা সংসার করার পর, কত কিছুই না দেখলাম এবং খেলাম। অন্যদিকে রান্না শিখে তো কত কিছু এক্সপেরিমেন্ট করলাম! পোলাউ এর সাথে শুঁটকি ভর্তা বা ভুনা আসলেও দারুন লাগে। আমি অনেক বার খেয়ে দেখেছি। আর যারা এখনো খান নাই, তাদের বলবো, একবার খেয়ে দেখুন। পোলাউ এখন আর বিশেষ খাবার নয়, অনেক পরিবারে প্রায় নিত্য পোলাউ সাধারণ ভাতের মতই খাওয়া হয়, কাজে কাজে যে কোন কিছু দিয়েই পোলাউ খাওয়া যেতে পারে, মাইন্ড চেঞ্জ মাত্র!

সবাইকে শুভেচ্ছা।

(আমরা আসছি আরো নুতন নুতন খাবার নিয়ে)

Advertisements

3 responses to “রেসিপিঃ শুকনা পুঁটি শুঁটকি ভুনা (পোলাউ এর সাথে দারুন খাবার)

  1. Ami sutki khai kintu onakdin paina.

    Like

  2. vhiaa cake decoration er cream bananor recipie step by step din plz

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s