গ্যালারি

রেসিপিঃ কাতলা মাছ এবং ফুল কপি (কুমিল্লা স্টাইল)


আমার দেখা ও জানা ভুল হতে পারে, আগেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি! আমি যতদুর দেখেছি বা শুনেছি কুমিল্লা অঞ্চলে যে কোন মাছ রান্নার সময়ে আগে ভেঁজে নেয়া হয়, এমন কি মাছ তাজা থাকলেও ভেঁজে নেয়া এই অঞ্চলের মাছ রান্নার একটা বিশেষ দিক। মাছ তাজা হলে ভাঁজবে কেন, এই প্রশ্ন আমার দীর্ঘ দিনের হলেও আমি এর কোন উত্তর পাই নাই! যদিও আমার শশুড়বাড়ী এই অঞ্চলেই! হা হা হা, আমার শশুড়বাড়ীতেও নিয়মিত মাছ ভেঁজে খাওয়া হয়! আমাদের তাজা মাছ সরাসরি রান্না এখনো আমার ব্যাটারী পছন্দ করেন বলে আমার মনে হয় না! বেঁচে থাকা কালীন সময়ে আমার শশুর, আমাদের এই কাঁচা মাছ রান্না নিয়ে উনার মেয়েকে অনেক মজার কথা শুনাতেন! তবে বর্তমানে মাছ তাজা হলে তিনি আর ভাজেন না, আমার মুখের দিকে চেয়ে!

আমার কথা হচ্ছে, প্রতিটা মাছের আলাদা ঘ্রান ও স্বাদ আছে, তাজা থাকলে ভেঁজেই সেই স্বাদ ও ঘ্রান কিছুটা হলেও নষ্ট করে ফেলা হয়! তাজা মাছ রান্না করে সেই মজাই যদি আমরা না লুটতে পারি তবে কেন বেশী টাকা দিয়ে তাজা মাছ কিনে আনবো! যাই হোক, কারো বুঝ, কারো তরমুজ!

স্বামী স্ত্রী একসাথে রান্না করছেন, আড্ডা দিচ্ছেন, কথা বলছেন, এমন দৃশ্য আমি মনে করি দুনিয়ার সেরা দৃশ্যের একটা! কিন্তু বাস্তবে এই দুনিয়ার বেশীর ভাগ স্বামী স্ত্রীর জীবনে এমন দৃশ্য তেমন একটা আসে না! (ছবিঃ নেট থেকে)

চলুন রান্নাটা দেখে ফেলি। ভাঁজার পর্ব গুলো খেয়াল করে দেখবেন। এদিকে আমি লক্ষ করেছি, সাধারণত আমাদের দেশের মাঝারি/নিন্ম ভাতের হোটেল গুলোতে সব সময়েই মাছ বা তরকারী আগে একদফা ভেঁজে ফেলা হয় যাতে রান্না হলে তা ভেঙ্গে না যায়!

উপকরণঃ
– কাতলা মাছের কয়েক টুকরা
– ফুল কপি (একটা)
– পেঁয়াজ কুঁচি (হাফ কাপ)
– কাঁচা মরিচ (কয়েকটা)
– হলুদ গুড়া (হাফ চা চামচ, সামান্য কাঁচা মাছে মেখে নিতে লাগবে)
– লাল মরিচ গুড়া (ঝাল বুঝে, হাফ চা চামচ)
– রসুন বাটা (এক টেবিল চামচ)
– আদা বাটা (এক চা চামচ)
– জিরা গুড়া (হাফ চা চামচ)
– লবন (পরিমান মত)
– তেল (এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ)
– পানি (পরিমান মত)
– কিছু ধনিয়া পাতা কুচি

প্রনালীঃ
মাছ ভেঁজে নেয়াঃ

ছবি ১


ছবি ২


ছবি ৩, মাছ গুলো তুলে অন্য কোন প্লেটে রাখুন।

ফুলকপি ভেঁজে নেয়াঃ

ছবি ৪, সেই তেলেই ফুলকপি (যা আগেই কেটে ধুয়ে রাখা হয়েছিল) সামান্য পানি (হাফ কাপ) যোগে ভাঁজুন।


ছবি ৫, ঢাকনা দিয়ে অল্প আঁচে রাখতে হবে এবং মাঝে মাঝে ঢাকনা খুলে খুন্তি দিয়ে নাড়িয়ে দিতে হবে।


ছবি ৬, খেয়াল রাখতে হবে, যেন পুড়ে না যায়। ফুলকপি সামান্য নরম হয়ে গেলে চুলা বন্ধ করে রেখে দিন।

মুল রান্নাঃ

ছবি ১


ছবি ২


ছবি ৩


ছবি ৪


ছবি ৫


ছবি ৬


ছবি ৭


ছবি ৮


ছবি ৯


ছবি ১০


ছবি ১১


ছবি ১২


ছবি ১৩, যারা রান্না করেন তাদের অনেকেই তরকারীতে লবন দেখা নিয়ে একটু গাফেলতি করে থাকেন! লবনের কম বেশী তরকারীর স্বাদের বারটা বাজিয়ে দেয়! তাই কষ্ট করে হলেও রান্নার শেষ পর্যায়ে ভাল করে লবন দেখে নিন! তবে রান্না শুরুর দিকে কম লবনেই রান্না শুরু করুন, শেষ পর্যায়ে এসে লবন লাগলে দিন, না লাগলে ‘ওকে’ বলে আগে বাড়ুন!


ছবি ১৪

পরিবেশনাঃ

ছবি ১, খাবার দাবার পরিবেশন একটা গুরুত্ব পূর্ন ব্যাপার। আপনি যা রান্না করলেন তা কেমন বাটিতে পরিবেশন করবেন তা নিজেই ভেবে নিতে পারেন। কারন যারা খাবে তারা আপনার বাটি বা পরিবেশনা দেখে আরো আনন্দ পেতে পারেন।


ছবি ২, স্বাদ অসাধারণ।

সুপ্রিয় পাঠক/পাঠিকা ভাই বোন, বন্ধু, রান্না আসলেই মানব জীবনে একটা চ্রম ভালবাসা, এঁকে অবহেলা করবেন না। দুই দিনের দুনিয়াতে এই ভালবাসা কেন নিজের করে নিবেন না!

সবাইকে শুভেচ্ছা।

Advertisements

6 responses to “রেসিপিঃ কাতলা মাছ এবং ফুল কপি (কুমিল্লা স্টাইল)

  1. Dui bar mach vajle tel bashi lage.

    Like

  2. ami to jani sobai mach veje khay , sudhu apni onno dole …..

    Like

  3. ভাইয়া, জিরা গুঁড়াটা কি মশলা কষানোর সময়ই দিয়ে দিলেন?

    Like

  4. Most of the fishes eaten around Comilla is from ponds and are usually of grass eating carp category and have a muddy odour and frying them eliminates this muddy odour from the fish

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s