Gallery

রেসিপিঃ ক্যারোলীর গোশত রান্না (আলু পাতলা ঝোলে গরু, ঝটপট)


গরুর গোশত পছন্দ করেন না এমন বাংলাদেশী মুসলমান পাওয়া মুস্কিল আছে! তবে বয়স বেড়ে গেলে গরুর গোশত আর অনেকেই খেতে চান না! আমার অবস্থাও তা, এখন আর আগের মত গরুর গোশত কিনি না। তবুও পরিবারের অন্যান্ন সদস্যদের জন্য কিনতে হয়, আমার একার জন্য তারা খাবে না এটা কি করে হয়। শান্তি নগরের কসাই মাসুম আমাকে শিখিয়েছিল গরুর গোসতের মধ্যে সব চেয়ে স্বাদের মাংস হচ্ছে ক্যারোলীর গোশত, আমি গোশত কিনতে গেলে সে এই গোশত ই আমাকে দিত। এখন রাতের দিকে রামপুরা বাজার থেকে গরুর গোশত কিনতে গেলেও আমি ক্যারোলীর গোশত কিনে থাকি। গরুর সামনের পায়ের হাটুর উপরের দিক্র গোসতকেই ক্যারোলীর গোশত বলা হয়ে থাকে। কসাইগন কেন যেন সারা দিন নানা পদের গোশত বিক্রয় করে রাতে এই ক্যারোলীর গোশত ঝুলিয়ে রাখে, শেষ সময়ে ভাল জিনিষ বিক্রি করে বাসায় ফিরে যেতে চায় হয়ত!

যাই হোক, গরুর মত উপকারী প্রানী এই জগতে আর নাই। জীবন দিয়ে মানুষের উপকার করে যায় এই প্রানী। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত মানুষের কাজেই লাগে, শেষ মেষ মানুষ গরুর গোশত খেয়েও ধন্য হয়! আর গরুর চামড়া না থাকলে তো মানুষকে খালি পায়েই হাঁটতে হত! ভেবে দেখুন একবার!

চলুন সময় না নিয়ে রান্না দেখে ফেলি। এটাও একটা সহজ রান্না, গরুর গোসতের অনেক পদের রান্নাই তো হল, এবার ঝটপট রান্না দেখি, চলুন। গোশত রান্নার সকল মশলাপাতি প্রায়ই আমাদের ঘরে ঘরে পাওয়া যায়, সুতারাং চিন্তা কি!

উপকরণঃ
– মাংস, ১ কেজি
– মাঝারি সাইজের আলু, কয়েকটা
– পেঁয়াজ কুঁচি বা বাটা, এক কাপ
– আদা বাটা, দুই টেবিল চামচ (ইন্ডিয়ান)
– রসুন বাটা, দুই টেবিল চামচ (ইন্ডিয়ান)
– মরিচ গুড়া, এক চা চামচ (ঝাল বুঝে কম বেশী)
– হলুদ গুড়া, এক চা চামচ
– জিরা গুড়া, এক চা চামচ (শেষে)
– জয়ত্রী বাটা, হাফ চা চামচ
– জয়ফল বাটা, এক চিমটি
– গরম মশলা (এলাচি কয়েকটা, দারুচিনি কয়েক পিস)
– তেজপাতা, কয়েকটা (যদি থাকে)
– লবন, পরিমান মত
– ভিনেগার, এক চা চামচ বা হাফ কর্ক (অফশন্যাল)
– কয়েকটা আস্ত কাঁচা মরিচ
– তেল, ৩/৪ কাপ (কম বেশি)
– পানি

প্রনালীঃ (ছবি কথা বলে)

ছবি ১, আলু কেটে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। রান্নার সময় খুচরা কাজ গুলো আগে করে সাজিয়ে রাখলে রান্না তাড়াতাড়ি শেষ করা যায়।


ছবি ২, গোশত ধুয়ে তেল লবন সমেত সমস্ত মশলা ভেজষ দিয়ে দিন।


ছবি ৩, ভাল করে মাখিয়ে ঘন্টা খানেক সময়ের জন্য রেখে দিন। (সময় না থাকলে রাখার দরকার নেই, ডাইরেক্ট চুলায় বসিয়ে দিতে পারেন)


ছবি ৪, আগুন মাঝারি আঁচে থাকবে, ঢাকনা দিতে ভুলবেন না!


ছবি ৫, ২৫/৩০ মিনিটে এই রকম হয়ে যাবে।


ছবি ৬, গোশত নরম না হলে আরো পানি দিন।


ছবি ৭, তারো পর নরম না হলে হাফ কর্ক ভিনেগার দিন।


ছবি ৮, এই অবস্থায় এসে যাবে। গোশত নরম হল কিনা ভাল করে দেখে নিন।


ছবি ৯, এবার আলু দিয়ে দিন।


ছবি ১০, এক/দেড় কাপ পানি দিন।


ছবি ১১, এবার ঢাকনা দিয়ে আবারো মিনিট ২০/২৫ মাধ্যম আঁচে রাখুন।


ছবি ১২, এবার জিরা গুড়া ছিটিয়ে দিন।


ছবি ১৩, ফাইন্যাল লবন দেখুন, লাগলে দিন। কয়েকটা কাঁচা মরিচ দিন।


ছবি ১৪, পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।


ছবি ১৫, খেতে বসে পড়ুন। গরম ভাতের সাথে জম্বে বেশ।

(ছবি গুলো ভাল হয় নাই, কারন রান্নার পুরা সময়েই বিদ্যুত ছিল না, ছবি গুলো ফ্লাস দিয়ে অনুমান করে তোলা, ভাল হয় নাই। আর এদিকে  রান্নাটা মাস খানেক আগের, পোষ্ট হচ্ছে আজ।)

সবাইকে শুভেচ্ছা। দেশ বিদেশ যেখানেই থাকুন না কেন, নিজে রান্না করে খাবার চেষ্টা করুন, সময় কাটবে ভাল, শরীর থাকবে ফুরফুরে।

3 responses to “রেসিপিঃ ক্যারোলীর গোশত রান্না (আলু পাতলা ঝোলে গরু, ঝটপট)

  1. Karoli beef is my favourite also and whereas my assumption goes , left leg Karoli is more testy in comparisn with right leg, i have tested both type of Karoli at a time which was cooked in different pot on same day . This was done for an experiment by my mother according to my request . A funny experiment indeed.

    Liked by 1 person

    • হা হা হা।
      ধন্যবাদ ব্রাদার/সিষ্টার।
      আমি নিজেও ক্যারোলী গোশত খুব পছন্দ করি। সামনে পিছনে খুঁজি নাই কখনো। একবার মাসুম কসাই ধরিয়ে দিয়েছিল, বছর ১০/১২ আগে, সেই থেকে কিনেই যাচ্ছি। হা হা হা।

      আপনার আম্মাকে আমাদের সালাম দিবেন। উনাকে কখনো সম্ভব হলে আমাদের সাইটের কয়েকটা রেসিপি দিখিয়ে দেবেন। কিছু ভুল হচ্ছে কি না তিনি বুঝিয়ে আমাদের হেল্প করতে পারবেন।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  2. খালেদা এদিব খান

    মনে পড়ে কত কথা, বাংলাদেশে কি আর এত কিছু দেখে গরুর গোসত কেনা যায়। আমাদের এখানে আপনি যে অংশের গোসত চাইবেন সেটা পাবেন। দামের কিছু হের ফের আছে। আমি হাড় সহ গোসত পছন্দ করি।

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s