গ্যালারি

রেসিপিঃ ডালিমের জুস (স্বাদ মনে পড়বেই)


অফিস ফেরার পথে ফুটপাতে ফলের দোকানে দেশী ডালিমের বেচাকেনা দেখে আমি তিনটে ডালিম কিনে নাই। ডালিমের জুস অনেক দিন পান করা হয়নি, স্বাদও ভুলে যাচ্ছিলাম। বাসায় ফিরে ডালিম গুলো নিয়ে বসলাম। ছোট বেলায় ডালিমের জুসের কথা মনে পড়ছিলো এবং সেভাবেই হাতে বানানোর চেষ্টায় লেগে গেলাম।

দেশে ফল ফলাদির দাম এখন আগুনের মতই!

উপকরনঃ
– খোসা ছাড়িয়ে ডালিম রসালো বিচি
– লেবুর রস
– চিনি
– কিছু পানি (রস বেশি হলে পানি না দিলেও চলবে)

প্রনালীঃ

খোসা ছাড়িয়ে এভাবে জমিয়ে নিন।


ব্লেন্ড করা যেতে পারে কিন্তু ব্লেন্ডার না থাকলে কি করা যাবে, এভাবে একটা গ্লাস দিয়েও সহজে রস বের করা যেতে পারে। এভাবে করলে বিচি না গলে রস বের হয়ে আসবে।


লেবুর রস দিয়ে দিন।


যতদুর সম্ভব রস বের করুন।


সামান্য পানিও মিশাতে পারেন।


বিচি ফেলে দিয়ে চিনি মিশান (চিনির পরিমান আপনি ভেবে নিন)


এবার জগে ছেঁকে নিন এবং ফ্রীজে ঠান্ডা হবার জন্য রেখে দিন।


সময় মত গ্লাসে ঢেলে পরিবেশন করুন।


দারুন, দেখেই প্রান জুড়ায়।


অসাধারণ।


ইফতারে এই রকম এক গ্লাস ঠান্ডা জুস পুরাই আলাদা শান্তি এনে দেবে মনে ও প্রানে।

একদিন বাসায় বানিয়ে পান করে দেখুন, দুনিয়াতে কত কি স্বাদ আছে তা উপভোগ করুন। এত সহজ কাজ গুলো নিজে করে পরিবারের সবাইকে সামান্য হলেও আনন্দ দিন।

সবাইকে শুভেচ্ছা।

Advertisements

12 responses to “রেসিপিঃ ডালিমের জুস (স্বাদ মনে পড়বেই)

  1. ভাইয়া, অনেক দিন পর আপনার ব্লগে এসেই ডালিমের জুস দেখে ভাল লাগল। আমাদের বাড়ির উঠানের কোনায় একটা ডালিম গাছ ছিল, আমরা অনেক ডালিম খেয়েছি তবে এখন আর পাই না। কখনো বড় আনার পেলে খাই তবে জুস কখনো করি নাই। জেনে রাখলাম। শিশুদের সকল স্বাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়া দরকার। আপনি সেই কাজটা আমাদের দেখিয়ে দিচ্ছেন। ভাল থাকবেন। আজ অনেক গুলো রেসিপি দেখে যাব।

    Like

  2. ওয়াও, ডালিমের জুস বানানো যায় এটাই জানতাম না। দেখেই খেতে মন চায়। রোজা হালকা হয়ে যায় আপনার রেসিপি দেখলে… হা হা

    Like

  3. ডালিম আরো লাল হলে রঙ টা আরো কড়া হত। আমিও একদিন চেষ্টা করবো।

    Like

  4. Apnar juice khub valo. Abar Amloki r tormujer juice sikhaben ki

    Like

  5. ডালিমের জুস না,শুধু ডালিমের রস খেয়েছি। আপনার রেসিপি দেখে মনে হল এটা অসাধারণ হবে!!

    আর ডালিমের যে দাম!!! এইরকম এক্সপেনসিভ ফ্রুটস কেউ কেনার আগে দুবার ভাববে। যদিও রোগীর খাওয়ার জন্য ডালিমের রস একটি উত্তম দাওয়াই।

    শুভেচ্ছা

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s