Gallery

বিয়ে শাদীর খাবার দাবার ও অন্য কিছু – ৯ (ডাঃ লিসার বিয়ে)


ডাঃ লিসা, আমার মেঝো ফুফুর মেঝো মেয়ের বড় মেয়ে, সোজা কথায় আমার ভাগিনি। কয়েক বছর আগে ডাক্তারি পাশ দিয়েছে, লিসা ও বিন্তু দুই বোন। মনে হয় এই তো সে দিনের কথা, ওরা দুই বোন কত ছোট ছিল। ওদের সাথে আমি কত দুষ্টামি করতাম, আমি এক সময়ে ওদের প্রিয় মামা ছিলাম! সবই সময়। মামারা বড় হয়েছে, আমি এই মামু বুড়োদের দলে নাম লিখাতে চলেছি! যাই হোক, লিসার বিয়েতে যাব না তো কার বিয়েতে যাব!


দুলাভাই (লিসার বাবা আমাদের দুলাভাই) মনে হয় আগামীতে  এমপি ইলেকশন করবে! সারা দেশ দাওয়াত দিয়ে লিসার বিয়েকে বেশ জাঁকজমক করে ফেলেছে। শুনেছি প্রায় ১৩০০ জন দাওয়াতি ছিল, এটাতেও নাকি বেশ কিছু বাদ পড়েছে! হা হা হা। যাই হোক, এত বড় লোক সমাবেশের বিয়ে অনেক দিন পর খেলাম!

অডিটরিয়ামের এসি আর কুলাচ্ছিলো না। গরমের শিশুরা বেশ কষ্ট পেয়েছে, সাথে বাবারাও! বিয়ে শাদীতে একটা কারবার লক্ষ করেছি, মায়েরা ছেলে মেয়েদের পিতার হাতে তুলে দিয়ে আরামে গল্প গুজবে লেগে পড়েন! হা হা হা। যাই হোক, ব্যাপার না, এটাও বিবাহের অনুষ্ঠানের একটা আনন্দের দিক!

লোকজন বেশী হওয়াতে ৩য় ব্যাচে বুলেট ব্যাটারীকে (এই নাম গুলো নিয়ে কোন প্রশ্ন তোলার দরকার নাই। এ গুলো উনাদের ভার্চুয়াল নেইম এবং এতে উনাদের কোন আপত্তি নেই) ও পরিবার পরিজনকে খেতে বসিয়ে আমি ব্যালটকে নিয়ে রাস্তার ধারে চলে যাই, কারন ও কান্না শুরু করে দিয়েছিল! যাই হোক,রাস্তায় ধারেও দাঁড়ানো কঠিন ছিল, গাড়ী গোড়ার হর্ন, ধুলোবালি এবং যানজটে রাত দশটার দিকেও স্বস্তি ছিল না!

খাবার পরে উনাদের বাসায় পাঠিয়ে দিয়ে আমি একলা অপরিচিত জনদের সাথে খেতে বসি। আমার দুই পাশে দুইজন গাড়ি চালক ছিলেন, উনারা দাওয়াতের মেহমান নিয়ে এসেছিলেন। এরা দুইজনেই ছিল বয়সে তরুণ, খাবারের টেবিলে উনাদের পেয়ে আনন্দিত হয়েছিলাম। আমি খাবার খেতে উনাদের উৎসাহ দিয়েছি কিন্তু একজন তেমন কিছুই খেল না, অন্যজন মাশাআল্লাহ, ভাল সাটিয়েছেন! ব্যাপার না! বিয়ে শাদীতে দাওয়াত দেয়াই হয়, যত পার তত খাও এই কন্সেপ্টেই! আমি নিজেও খাই, তবে আজকাল আর পারি না!


লাকী তের নাম্বার টেবিলেই আমার সিট পড়েছিল। বোরহানীর ব্যবস্থা না থাকায় সাদা পানি নিয়েই বসেছিলাম।


আলু বুখারার আঁচার! চাটনী!


পোলাউ।


রোষ্ট।


খাসির কোরমা।


গরুর গোসতের রেজালা।


বোরহানী এবং জদ্দার পরিবর্তে ছিল, পানীয় এবং আইসক্রিম! এটাও মন্দ নয়।

তবে চতূর্থ ব্যাচে খেতে বসে আমরা অনেক আরো দুটো আইটেম মিস করেছি (শেষ হয়ে গিয়েছিল, এটা আমি পরে জেনেছি) একটা হচ্ছে, আমরা কোন সালাত পাই নাই, অন্য আইটেম হচ্ছে, একটা মিক্স সব্জিও নাকি করা হয়েছিল! দুলাভাইকে ধরতে হবে! হা হা হা। ব্যাপার না!


না, আজকাল আর বিবাহের এই আইটেম গুলো তেমন খেতে পারি না! একজন ব্যক্তিকে যদি বিবাহের এই সকল আইটেম প্রতিদিন দুইবেলা করে দিন দুই খাওয়ানো হয়, আমি নিশ্চিত তিনি হাত জোড় করে মাফ চেয়ে পালিয়ে যাবেন! আমি কয়েকদিন ধরে এই খাবারের উপরেই আছি! বিবাহের খাবার দাবার, মাস ছয়ে বা বছরে একবার ভাল লাগে! তাও ভাল রান্না হতে হবে। তবে এত বেশি লোকের জন্য  কি আর করা যায়! আমি মনে করি বিবাহের খাবার দাবারে আমাদের দেশে এখন একটা চেঞ্জ আনা দরকার! আর কত এই খাবার চলবে! (সুযোগ পেলে অন্য কোথায়ও আরো ব্যাপক আলোচনা করবো!)


আমি যেহেতু প্রায় শেষের দলে খেতে বসেছিলাম, তাই পান সুপারীর দশাও তাই! ব্যাপার না, আমার ভাগিনির বিয়ে, খেতে ও আনন্দ পেয়েছি এটাই বড় বিষয়! হা হা হা।


ডাঃ লিসা, ব্যালট ও ব্যাটারী। বুলেটকে ছবি তোলাতে রাজী করানো যায় নাই!


পাত্র পাত্রীর স্টেজে আলোর স্বল্পতা ছিল। ফলে আমার মোবাইলে তোলা ছবি গুলো তেমন ভাল হচ্ছিলো না!


এই ফটোগ্রাফার মনে হয় পাত্রের বন্ধু! ছবি তোলায় ওর কসরত দেখার মত ছিল! তবে একটা ভাল ছবি এভাবেই উঠে!


এই হচ্ছে ডাঃ লিসা ও ডাঃ সাব্বির, আমার মামারা! তোমরা সুখি হও। তোমাদের আনন্দে জগতের সব ফুল ফুটুক। দোয়া করি, শুভেচ্ছা থাকলো।


এই ছবিটা না দিলে নয়! পাত্রপাত্রীর পাশে আমার অন্য দুইজন ভাগিনি, ছবি তুলতে ওদের না নেই! হা হা হা। এবং আমি নিশ্চিত, এই ছবি না দিলে এবং ওরা আমার এই পোষ্ট পড়ে হয়ত বলেই ফেলবে, “মামা বিয়েতে তুমি আমাদের দেখ নাই, আমরাও ছিলাম”!

ধন্যবাদ রেসিপি প্রিয় বন্ধুরা, আজ এখানেই, আবারো দেখা হবে নুতন কোন বিবাহে এবং সেই বিবাহের খাবার দাবারে! ভাল থাকুন সবাই।

যারা বিবাহ যোগ্য আছেন কিন্তু এখনো বিবাহ করছেন না তাদের বলছি বিবাহ করে ফেলুন! আর যারা বিবাহ করেছেন এবং বিবাহিত দিনকাল কাটাচ্ছেন, অনুগ্রহ করে চুপ থাকুন, আপনাদের কথা বলার দরকার নেই! খালি দেখে চলুন!

বিয়ে শাদীর খাবার দাবার ও অন্য কিছু – ৮ (তুরিনের বিয়ে)

Advertisements

2 responses to “বিয়ে শাদীর খাবার দাবার ও অন্য কিছু – ৯ (ডাঃ লিসার বিয়ে)

  1. once again ekta josh lekha porlam…kisu kotha chilo ato hasir ami hasi thamatei parchilam na 🙂 thx vi ya

    Liked by 1 person

  2. সুলতানা জামান

    ভাইয়া, ভাল লাগলো। খাবার খান বা না খান, নিয়মিত বিবাহে যাবেন, আমরা দেখে যেতে চাই।

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s