Gallery

রেসিপিঃ পটেটো চিপস (বিকালের নাস্তা)


আমাদের এবারে সিজনে আলুর ফলন বেশী হয়েছে, এদিকে খাবার লোক নেই! সস্তায় দিলেও কেহ আলু কিনতে চাচ্ছে না। আসলে আলু আমাদের খুব দরকারি সবজি হলেও আমাদের দেশে এখনো আলুর ব্যাপক ব্যবহার নাই বলেই আমার মনে হয়! পরিবারে নিত্য দিনের খাবারে আলু থাকলেও আলু এখনো সেরা খাবারের আসতে পারে নাই!  ইউরোপ আমেরিকায় আলু দিয়ে নানান ধরনের খাবার তৈরী করা হয় এমন কি আলুর নানান প্যাকেটজাত খাবার আছে, সময়ে অসময়ে সবাই সেই সব খাবার খেয়ে থাকে। আমাদের দেশে এখনো প্যাকেটজাত খাবার বেশি চালু হয় নাই, উপরন্ত দাম বেশি এবং ভেজালের কারনে এই সকল খাবারে সাধারণ মানুষ বিশ্বাস করতে পারে না। যাই হোক, আমাদের আলুকে রাপ্তানীর তালিকায় তুলে ফেলা দরকার। নানান প্রসেসিং ইউনিট করে আলু দুনিয়ার নানা দেশে পাঠানোর প্রয়োজন হয়ে পড়ছে। দুনিয়ার কত দেশে আলু খেতে চায় কিন্তু পায় না!

আলুর দাম মেনে নেয়া যায় না তবে পক্ষে বিপক্ষে অনেক যুক্তি আছে, ফেলনা নয়। আমি আমার পূর্বের লেখা থেকে দেখলাম ২০১১ সালের নম্ভেবর, ২০১২ সালের ডিসেম্ভর এবং এই সময়ে ২০১৪ সালের জানুয়ারীতে আলুর দাম সর্বনিম্ম। ঢাকার বাজারে কেজি সাইজ ভেদে ৮ টাকা থেকে ১৫ টাকা। যাই হোক, আলু দিয়ে নানা পদের খাবার রান্না করুন, বেশী করে আলু কিনুন। এতেও মেহনতি কৃষকের কিছুটা কষ্ট লাগব হবে।

যাই হোক, চলুন আলু দিয়ে একটা সাধারণ চিপস দেখে ফেলি। বরাবরের মতই খুবই সাধারণ এবং সহজ রান্না। আপনি চাইলেই আলু দিয়ে এমন চিপস বানিয়ে বিকেলে সবার সাথে চা খেতে পারেন। ছেলে, বুড়ো সবাই এটা পছন্দ করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। এদিকে এটা শিশুদের স্কুলের টিফিন হিসাবেও দেয়া যেতে পারে।

পরিমান ও উপকরনঃ
– আলু, চিপস এর মত কাট
– লবন, আলু চিপস সিদ্ধ করতে পরিমান মত
– বিট লবন, পরিমান মত
– তেল/পানি, পরিমান মত

প্রস্তুত প্রনালীঃ (ছবি দেখেই বুঝা যাবেন তবুও লিখে দিচ্ছি)

বেশী বড় আলুর দাম একটু বেশী, চিপস দেখতে সুন্দর হয়। তবে আপনি চাইলে যে কোন সাইজের আলু দিয়ে এই সাধারণ চিপস বানাতে পারেন।


আলু ছিলে এভাবে কেটে নিয়ে সামান্য লবন যোগে হাফ সিদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে রেখে দিন।


এবার ফ্রাই প্যানে তেল গরম করে পানি ঝরিয়ে রাখা চিপস গুলো ভেজে নিন।


তেল কম খরচ করতে চাইলে অল্প অল্প করে দফায় দফায় ভেজে নিন। ডুবো তেলে ভাঁজার মতই হবে।


এই রকম সোনালী হলে তেল ঝরিয়ে তুলে নিন।


ভেজে এভাবে জমা করুন।


বিট লবন নিন। এবার বিট লবন ছিটিয়ে দিন। (যদি বিট লবন না থাকে তা হলে কি খাওয়া যাবে না, কেন নয়!)


বাটি উল্ট পাল্ট করে মিশিয়ে নিন।


গরম গরম পরিবেশন করুন।


এক ভাঁজার চিপস গুলো কিছুক্ষন বাইরে রাখলেই (ঠান্ডা হয়ে গেলে) নেতিয়ে পড়ে। আপনারা যদি মচমচে চিপস ভাজতে চান তবে, প্রথমে সামান্য ভেজে তুলে রাখতে হবে এবং ঠান্ডা হয়ে গেলে আবার ভাজতে হবে। এই দ্বিতীয় ভাঁজার পর চিপস অনেক সময় ধরে মচমচে থাকে।

যাই হোক, এই পটেটো চিপস খুবই সাধারন এবং সহজ রান্না। একদিন নিজেই বানিয়ে দেখুন না! অসাধারণ স্বাদ। এভাবে রান্না করতে করতেই কে জানে আপনিও হয়ে উঠতে পারেন জগত বিখ্যাত! আপনার এই সামান্য কষ্টে আপনি আপনার বন্ধুদের মাঝেও হিরো হয়ে যেতে পারেন!

সবাইকে শুভেচ্ছা।

[আলু কিনে নানান খাবার বানিয়ে খান এবং আলু চাষীদের উৎসাহ দিন। আমাদের ছোট ছোট কাজ একদিন অনেক বড় হয়ে উঠবে।]

Advertisements

11 responses to “রেসিপিঃ পটেটো চিপস (বিকালের নাস্তা)

  1. Vaijan, yes, it is ফটেটো চিপস Bkz, this is বড় আলুর চিপস. small size’r আলু holo পটেটো চিপস……..ha ha ha….@Radowan.

    Like

    • সরি রেদোয়ান ভাই, শুধু হেডিং এ বানানটা ভুল হয়েছিল, পোষ্টে ঠিক ছিল। ঠিক করে দিলাম। যাই হোক, লিখার সময় বানান ভুল ধরতে পারি না, চোখেও পড়ে না! সরি। তাড়াতাড়ি পোষ্ট করার চিন্তায় খেয়াল রাখাও মুস্কিল। লিখার পর বার বার দেখার সময় ও ইচ্ছাও হয় না। কাজে কাজেই ভুল থেকে যায়। ভুল না করার ইচ্ছা সব সময়েই মাথায় রাখি। শুভেচ্ছা।

      Like

      • Are vaijan, ami to moja korlam……Kisu vul valo lage …. Ami to maximum time apner recipe dekhi jodio sob somoy montobbo kora hoy na….)

        Like

        • ধন্যবাদ রোদোয়ান ভাই।
          না, ব্যাপার না। আমি আসলেই বাবানের ব্যাপারে খুব সতর্ক থাকি। কিন্তু তবুও আমার ভুল থেকে যায়। বানান ভুল করা উচিত নয় এটা আমি মনে করি। যাই হোক, চলুক, বানান ভুল দেখলে জানাবেন, আমি ঠিক করে দিব।

          আমি আপনাকে জানি। আপনি আমার পুরানো পাঠক। আপনারা আমাদের পছন্দ করেন বলেই আমরা সাহস পাই।

          শুভেচ্ছা নিন।

          Like

  2. অসাধারণ!!!

    আলুর যেকোনো খাবারের মধ্যে প্রিয় খাবার একটা এটা !!!

    শুভেচ্ছা ও ভালো লাগা

    Like

    • ধন্যবাদ ভাতিজা।
      আলুর চিপস খাবার এটাই সময়। অনেক বড় বড় আলু এখন মাত্র কেজি ১০টাকা করে (যদিও কৃষকের জন্য মায়া হয়)। আমি আজও দুই কেজি কিনলাম। বাসায় সবাই বড় বড় আলু দিয়ে নানা পদের খাবার খেয়েই চলছে।

      খুব কম সময়ে তৈরী এটা আমার কাছেও ভাল খাবার। খেয়ে এক কাপ চা! আহ…

      শুভেচ্ছা।

      Like

  3. এই চিপস কতদিন মখমলে থাকবে,পলি করে বিক্রি করার পদ্ধতি কি।

    Like

  4. আমার খুব ভালো লাগল

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s