গ্যালারি

রেসিপিঃ ইন্ডিয়ান বাসমতী চালের পোলাউ (সোনামনিদের জন্য)


আমার প্রিয় ছোট সোনামনিদের জন্য অনেকদিন কোন রেসিপি পোষ্ট দেয়া হয় না। খাবার দাবারের ব্যাপারে আমি আমার ছোট সোনামনিদের একটু আলাদা করে ভাবতে চাই। কারন বড়দের (বৃদ্ধদেরকেও আমি সোনামনি ভাবি) খাবার আর ছোটদের খাবারে একটু ভিন্নতা আছে, ছোটদের খাবার ছোটদের মত করেই রান্না করা উচিত। তেল কম, ঝাল কম, মশলা কম দিয়ে আরো ঘুছিয়ে ছোট এবং বৃদ্ধদের জন্য রান্না করতে হয়।  রান্না ইচ্ছা মত করে টেবিলে সাজিয়ে দিলেই চলে না, রান্না যিনি করবেন তাকে প্রথমেই ভাবতে হবে কারা তার এই রান্না খাবে।  সুতারাং রান্নাকারীকে সব সময়েই মাথা খাটাতে হয়। আপনি আপনার মত করে রান্না করলেন আর সেই রান্না খেয়ে শিশু ও বৃদ্ধরা কষ্ট পেল তা হতে পারে না। সুতারাং ভেবে চিন্তে রান্না করুন।

আজকের রান্না হচ্ছে, বাসমতী চালের পোলাউ। এই ধরনের পোলাউ রান্না আমি আরো অনেক দেখিয়েছি আপনাদের, তবে এটা পরিমান গুলো কমিয়ে পুরাই বৃদ্ধ ও শিশুদের জন্য উপযুক্ত করে রান্না করা হয়েছে। খুব সাধারন এবং সহজ রান্না।

ইন্ডিয়ান বাসমতী চাল। বাসমতী চাল আমাদের সাধারন চালের তুলনায় লম্বা এবং শুনেছি বেশী পুষ্টিকর (শোনা কথা)।

পরিমান ও উপকরনঃ
– বাসমতী চালঃ ৬০০ গ্রাম (চার জনে পেট পুরে এক বেলা খাতে পারবে)
– পেঁয়াজ কুঁচিঃ মাঝারি তিনটে
– দারুচিনিঃ এক ইঞ্চির ২/৩টা
– এলাচিঃ ২/৩ টা
– আদা বাটাঃ ১ চা চামচ
– কাঁচা মরিচঃ ৩/৪টা (ঝাল বুঝে)
– লবনঃ পরিমান মত
– তেলঃ সয়াবিন তেল, হাফ কাপের কিছু কম (বাসমতী চালে তেল একটু বেশী লাগে, এক চা চামচ ঘি দিতে পারেন তবে না থাকলে নাই, আমারো ছিল না)
– পানিঃ পরিমান মত (রান্না শুরু করলে আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন)

অফশন্যাল আইটেমঃ দুইটা মাঝারি তেজপাতা ও গোটা দশেক কিসমিস (যদি থাকে, না থাকলে নাই, রান্নার সময় আমার কাছেও ছিল না তাই দেই নাই, তবে লিখে দিছি এই জন্য যে আপনার হাতের কাছে থাকলে দিতে পারেন, আরো ভাল লাগবে, স্বাদ বাড়বে।)

প্রনালীঃ

তেল গরম করে তাতে হাফ চামচ লবন যোগে পেঁয়াজ কুচি, আদা এবং এলাচি, দারুচিনি দিয়ে ভাল করে ভেজে নিন। (তেজপাতা দিয়ে দিতে পারেন এই সময়ে)


এই রকম হয়ে যাবে, পেঁয়াজ কুচি গুলো হলদে হয়ে যাবে।


এবার বাসমতী চাল ধুয়ে নিন এবং হাড়িতে দিয়ে দিন।


এবার কয়েকটা কাচা মরিচ দিন এবং ভাল করে মাধ্যম আগুনের আঁচে ভাল করে ভেজে নিন। মিনিট ৫/৭ এর মত।


এবার দুই কাপ পানি দিন (গরম পানি হলে ভাল, না হলেও চলবে) চালের উপর ইঞ্চি খানেক পানি থাকতে হবে। এই পানিতে লবন দেখে ফেলুন, এই পানিটা একটু কটা হতে হবে। লবন দিন (কারন শুরুতে যে পরিমান লবন দেয়া হয়েছে তা কমই ছিল)।  (কিসমিস এই সময়ে দিতে পারেন)


এবার ঢাকনা দিয়ে মিনিট ১৫ অপেক্ষা করুন তবে চুলার দুয়ার ছেড়ে যাবেন না! মাঝে মাঝে ঢাকনা উল্টে নাড়িয়ে দেবেন।


ঠিক এই অবস্থায় এসে যাবে। চাল গুলো টিপে দেখুন, বেশি শক্ত থাকলে সামান্য পানি ছিটিয়ে দিতে পারেন আর কম শক্ত হলে তাপেই হয়ে যাবে।


এবার শহুরে দম দিন! মানে একটা তাওয়ার উপর পোলাউএর হাড়ি রাখুন। আগুন কম আঁচে থাকবে। (আগের পোলাউ গুলোতেও এটা দেখিয়ে দেয়া হয়েছে)


দেখুন কি ঝক ঝকে এবং ফুরফুরে পোলাউ।


সরাসরি হাড়ি নিয়েই টেবিলে চলে যেতে পারেন। গরম গরম পরিবেশনা!


বৃদ্ধ ও শিশুদের জন্য কম ঝাল মশ্লায় রান্না যে কোন গোসত জাতীয় তরকারী দিয়ে পরিবেশন করুন।

আমি নিশ্চিত শিশুরা এই খাবার খেয়ে আপনার রান্নার তারিফ করবেই। মায়ের হাতের রান্না তো এমনি হওয়া উচিত। বাবারাও এগিয়ে আসুন, শুধু শুধু পিছনে বসে থাকবেন কেন? রান্নায় আসুন, নিজের অভিজাত্য বাড়িয়ে তুলুন।

সবাইকে শুভেচ্ছা। ভাল থাকুন সবাই।

Advertisements

9 responses to “রেসিপিঃ ইন্ডিয়ান বাসমতী চালের পোলাউ (সোনামনিদের জন্য)

  1. আমি বাসমতী কয়েকবার খেয়েছি। আমার কাছে ভাল লাগেছে।

    Like

  2. udraji vaiya apnak oneeeeek dhonnobaad amon shundor 1 ta page kholar jonno 🙂 Ami akdom e ranna pari na 😛 But 2 din holo ami apnar page ta peyechi r khuuub valo lagche & ranna kora o shikhai aagroho dekhachi :v Ami oneker page dekhechi but I think aita best 🙂
    kichu kichu aaltu faltu page o ase jekhane aage like coment er vikkha chawa hoi pore recipe dile o dewa hoi :/ But apnar ta akdom onnorokom.Sob step by step picture dewa.Sob ranna e easy mone hocche.Amr BD te o j ato shundor 1 ta page clo aafsos ami akhon jenechi…
    Best of luck vaiya 🙂

    Liked by 1 person

  3. Vai,nijer ranna ghore dhukar age apnar ranna ghore jai.regular job

    Liked by 1 person

  4. মাশা আল্লাহ খুব ভাল লাগ্ল ভাই এই রকম আর ভাল ভাল রেসেপি text করবেন সেই আসাই করি আমি এই দোয়াই করি আমার জন্য দোয়া কইরেন।

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s