Gallery

রেসিপিঃ চিকেন বিরিয়ানি (ইন্ডিয়ান বাসমতী চালে)


ভাল খাবার কে না খেতে চায়! বিশেষ করে উৎসবে, বিশেষ দিনে সবাই চায় তার আদরের, ভালবাসার মানুষ গুলোকে নিয়ে একটু ভাল খাবার খেতে। যাদের সামর্থ্য আছে তারা সাধারণত এই সকল বিশেষ দিনে পরিবারের সবাইকে নিয়ে হোটেল বা রেষ্টুরেন্টে খেয়ে থাকেন। আর যারা মধ্যবিত্ত কিংবা নিন্মবিত্ত তারা ঘরে যা আছে তা দিয়েই সামান্য ভাল খাবার রান্না করেন এবং এক সাথে সবাই মিলে খেয়ে থাকেন। দিন আনা গরীব মানুষ গুলোর কথা প্রায় ভাবি, সমাধান পাই না! নানান খাদ্য দ্রব্যের মুল্য দেখে আমাদের গরীব মানুষ গুলোর জন্য বেদনা বোধ করি, কিন্তু করার কিছুই দেখি না, ভেবেই যাচ্ছি! তবে ভাল খাবার মুখে পুরলে এই সকল দেশি গরীব ভাই বন্ধুদের কথা বেশী মনে পড়ে! কি করুন সমাজে আমরা বাস করছি!

যাই হোক, সবই উপরওয়ালার ইচ্ছা। তিনিই জানেন কেন এই ব্যবস্থা করে রেখেছেন! বেহেস্ত দোযগ আছে বলেই কি, এমন পার্থক্য! যারা এই দুনিয়াতে পাবে না, তারা নিশ্চয় বেহেস্তে পাবে! তবে এদিকে মধ্যবিত্তদের নিয়ে আবার ভাবনা! এরা যাবে কোথায়! না পেল দুনিয়া, না পাবে বেহেস্ত! এদেরই মনে হচ্ছে কঠিন বিচার হবে!

খাবার সময় দুনিয়ার সব মানুষেরাই একটু আড্ডা দিয়ে থাকেন, আমরা বাংলাদেশীরাও কম যাই না। ভাল খাবারে একটু বেশী আড্ডা হয় বটে! চলুন, আজ বাসমতী চালে চিকেন বিরিয়ানি রান্না দেখে ফেলি। কঠিন রান্না নয়, একটু সাহস করলেই হল! এবং আর একটু বেশি ভালবাসা! এই তো!


ইন্ডিয়ান বাসমতী চাল কিনতে পারেন! দেশী পোলাউ চালেও অসাধারন হয়। আমি ইচ্ছা করেই ইন্ডিয়ান বাসমতী চাল কিনেছি কারন অনেকদিন এই চাল খাওয়া হয় নাই। তা ছাড়া ছেলে বড় হচ্ছে, সেও কয়েকদিন আগে জানাল, বাসমতী চালের স্বাদ নাকি ভুলে গেছে! এক কেজি বাসমতী চালের টাকায় দুই কেজি দেশী পোলাউ চাল পাওয়া যায়। তবুও কিনতে হয়!

কয়েক ভাবেই বিরিয়ানী রান্না করা যায়, তবে মশলা প্রায়ই এক ধরণের। মশলাতে এদিক সেদিক করার উপায় নাই। চাইলে কিছু যোগ করা যায় তবে কিছুই বাদ দেয়া চলে না! আমরা আগেও বিরিয়ানি রান্না দেখিয়েছি, তবে এটা সামান্য রান্নায় ভিন্নতা এনেছি। গোসত এবং মশলা এক সাথে মেখে এই রান্না। চলুন দেখে ফেলি!

উপকরণ ও পরিমানঃ
– মুরগীর মাংস, ১ কেজি
– বাসমতী চাল, ১ কেজি
– নূতন গোল আলু, ২৫০/৩০০ গ্রাম
– পেঁয়াজ কুঁচি, হাফ কাপ
– আদা বাটা, দেড় টেবিল চামচ
– রসুন বাটা, দেড় টেবিল চামচ
– জিরা গুড়া, ১ চা চামচ
– কাঁচা মরিচ বাটা, দুই টেবিল চামচ (ঝাল বুঝে)
– গোল মরিচ বাটা, আধা চা চামচ
– জয়ত্রী বাটা, হাফ চা চামচ
– জয়ফল বাটা, এক চিমটি
– বাদাম বাটা, হাফ কাপ বা তার কম (কাজু বাদাম বাটা হলেও চলবে)
– গরম মশলা (লবঙ্গ কয়েকটা, এলাচি কয়েকটা, দারুচিনি কয়েক পিস)
– লবন, পরিমান মত
– চিনি, হাফ চা চামচ
– কিসমিস, দুই টেবিল চামচ
– খেজুর, স্লাইস করে কাটা, একটা
– দুধ, দেড় কাপ
– কয়েকটা আস্ত কাঁচা মরিচ (বুঝে)
– তেল, পনে দুই কাপ (বাসমতী চালে তেল একটু বেশি লাগে, তেল কম হলে বাসমতী চাল খসখসে দেখায়, স্বাদ কমে যায়, দেশী পোলাউ চালে তেল কম দিলেও চলে)
– ঘি, তিন চামচ (ঘি না থাকলে নাই)
– পানি (গরম হলে ভাল, রান্না শুরুর আগে কিছু পানি গরম করে রেখে দিতে পারেন তবে না হলে নাই, ব্যাপার না!)

  • নন স্টিকি পাত্রে রান্নাই উত্তম। সাধারন সিলভারের পাত্রে রান্নায় আরো বেশি মনোযোগী হতে হবে এবং আগুন সব সময়েই মাঝারি আঁচে রাখতে হবে।

প্রস্তুত প্রনালীঃ
১। চাল প্রিপারেশন

বাসমতী চাল ধুয়ে আধা ঘন্টার জন্য পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এর পর আলাদা একটা হাড়িতে চাল গুলোকে হাফ সিদ্ধ (ফুটিয়ে) করে পানি ঝরিয়ে রাখুন। বাসমতী চাল শক্ত এবং সহজে মজে না ফলে এই হাফ সিদ্ধ করে নিতে হবে।

২। মশলা প্রিপারেশন

আপনি চাইলে গোল মরিচ, জয়ত্রী, জয়ফল,  বাদাম,  গরম মশলা (লঙ্গ, এলাচি কয়েকটা, দারুচিনি কয়েক পিস) একসাথে সামান্য ভেজে তার পর বেটে নিতে পারেন (এতে স্বাদ বাড়ে তবে সেই স্বাদ বুঝতে হলে জিহব্বার উপর আস্তা রাখতে হবে। হা হা হা)। আর আলাদা আলাদা করে বাটা থাকলেতো কথাই নেই! মারহারা!

৩। আলু প্রিপারেশন

আলু ছিলে হাফ সিদ্ধ করে সামান্য তেলে আলু গুলোকে ভেজে রাখতে হবে।

৪। মুল রান্নাঃ

যে পাত্রে (পাত্র সিলেকশনে খেয়াল রাখতে হবে, সব কিছু মিলিয়ে পাত্রে কত কেজি জায়গা হয় তা আগেই বুঝে নিতে হবে) বিরিয়ানী রান্না করেবেন তাতে মুরগীর মাংস দিন এবং তেল সহ উপরে উল্লেখিত সব মশলা, ভেজষ এবং লবন/চিনি দিয়ে ভাল করে মাখিয়ে নিন।  (দুধ ছাড়া)


হাফ কাপ পানি সহ এবার চুলায় মাধ্যম আঁচে পাত্রে ঢাকনা দিয়ে মিনিট ২০ জ্বাল দিতে থাকুন। মাঝে মাঝে নাড়িয়ে দিতে ভুলবেন না।


ঠক এই অবস্থায় এসে যাবে। এখানে বলে রাখি দেশী মুরগী হলে আরো একটু পানি দিতে হত।


এবার ভেজে রাখা আলু গুলো দিয়ে দিন।


এবার দুধ দিন এবং ভাল করে মিশিয়ে কয়েক মিনিট জ্বাল দিন।


এবার হাফ সিদ্ধ করে রাখা বাসমতী চাল দিয়ে দিন।


অতিরিক্ত আর পানি লাগার কথা নয়। তবে হাতের কাছে পানি রাখুন, লাগলে দেয়া যেতে পারে। এই পর্যায়ে লবন দেখুন। এই ভেসে থাকা পানিটাইয় একটু বেশি লবন হতে হবে, যাকে আমরা কটা স্বাদ বলি। এবার ঢাকনা দিয়ে মাধ্যম আঁচে মিনিট ১৫ রাখুন। মাঝে উলটে দেখে নিবেন। চাল বেশীক্ষন ভিজিয়ে রাখলে সময় কম লাগতে পারে। চুলার ধার ছেড়ে যাবেন না।


ঠিক এমন অবস্থায় এসে যাবে।


এবার শহুরে দমের (চুলায় একটা তাওয়া দিয়ে তার উপর বিরিয়ানির পাতিল রাখুন, আগুন মাধ্যম আঁচে থাকবে বা কমিয়েও দেয়া যেতে পারে) ব্যবস্থা করুন।


ঠিক চাল এই রকম ঝরঝরে হয়ে উঠবে। (যদি/ইনকেইস চাল শক্ত থাকে তবে সামান্য পানি ছিটিয়ে আবারো ভাল করে নাড়িয়ে দিতে পারেন এবং দমেই হয়ে উঠবে।)


সময় না থাকলে কিংবা রান্নায় দেরী হয়ে গেলে (!) খাবার টেবিলেই হাড়ি নিয়ে রাখতে পারেন। যার যা ইচ্ছা গরম গরম উঠিয়ে নিয়ে খেতে পারে।


এই হচ্ছে আমার প্লেট! আমি সাধারণত এই ধরনের খাবার কম খেতে চাই! হা হা হা, পেলে কিন্তু কয়েক প্লেট সাবাড় করি নিমিষেই!

আমাদের রান্না টেষ্টার বুলেট বাসমতী চাল পছন্দ করতে পারল না। সে জানাল দেশী কালিজিরা চালেই আরো বেশী মজা হত। আমি মনে মনে বলছিলাম, ব্যাটা এই কথাটা আগে বললে তো আমাকে ইন্ডিয়ান বাসমতী চাল কিনতে হত না। টাকা বেঁচে যেত কিংবা আরো একদিন আমরা পোলাউ খেতে পারতাম!

সবাইকে নুতন বছরের শুভেচ্ছা। ভাল থাকুন সবাই। ২০১৪ইং, নূতন বছরে আমাদের সবার জীবন আনন্দে ভরে উঠুক। এই বছরে সরকার আমাদের জন্য ভেজালমুক্ত খাদ্য পাবার ব্যবস্থা করবেন বলে আশা করি। খাদ্যে ভেজালকারীর ফাঁসি চাই। খাদ্যে ভেজালের জন্য কত পরিবার নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছে, কত মানুষ অকালে প্রান হারাচ্ছে, যা মেনে নেবার মত নয়, মানা যায় না। আমাদের আকুতি চলবেই!

কৃতজ্ঞতাঃ মানসুরা হোসেন

রেসিপিঃ বিরিয়ানি (মাটন)

44 responses to “রেসিপিঃ চিকেন বিরিয়ানি (ইন্ডিয়ান বাসমতী চালে)

  1. Dekheito sushadu mone hocce…khub khete icche hocce vai 😦

    Liked by 1 person

  2. বুলেট ঠিকই বলেছে, আমিও দেখেছি আমাদের কালিজিরা চাল বাসমতি চালের চেয়ে অনেক মজাদার!

    Liked by 1 person

  3. বাসমতী চাল আমার কাছেও ভাল লাগে না, মনে হয় ভাতের চালের মত!! আমাদের দেশের চিনিগুড়া বা কালিজিরা এর ফ্লেভার ও টেস্ট ২ টাই এর থেকে বেটার।
    অবশ্য এখন আসল কালিজিরা চাল পাওয়া যায় না বললেই চলে

    আর চিকেন বিরিয়ানির রেসিপিটা আসলেই অনেক ভালো হয়েছে!!! রান্নার সিস্টেম আর চেহারা দেখেই বোঝা যায় এর স্বাদ নামীদামী রেস্টুরেন্ট গুলোর থেকেও কোন অংশে কম নয় বরং বেশি এ হবে!!!!
    আম্মুকে দেখিয়েছি এই রেসিপি!!! রাতে রান্না হবে এটা!! খেয়ে জানাব!!! 😀

    অফ টপিক : আপনার দেয়া রেসিপি অনুসারে ৩১স্ট নাইটে পিজ্জা বানিয়েছি!!! নিজেই বিশ্বাস করতে পারছি না এত ভাল হল কিভাবে!!! 😀 একদম পারফেক্ট !!! যেকোনো বড় পিজা শপের মতই হয়েছে!!! আপনার রেসিপির জন্যই নিজে এই দায়িত্ব নিতে ভরসা পেয়েছিলাম !! এবং সফল হলাম!! 😀 ( ইচ্ছা করলে ফেসবুকে ছবি শেয়ার করা আছে, দেখতে পারেন 🙂 ) ধন্যবাদ আপনার রান্নাঘরকে আমাকে এইভাবে এনকারেজ করার জন্য !!!

    শুভেচ্ছা ও ভালোলাগা 🙂 🙂 😀

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ আঙ্কেল।
      আপনার কমেন্ট গুলো পড়ে মন ভাল হয়ে যায়।

      চিকেন বিরিয়ানি আশা করি ভাল হবেই।

      আপনার ফেসবুক একাউন্ট দেখে এলাম। পিজার ছবি দেখে ভাল লাগল। আমরা অনেক দিন হয়ে গেল পিজা বানাই নাই। সময় এবং সুযোগ এখন খুব পাওয়া যাচ্ছে না। আশা করি, আগামীতে একদিন আবার বানাবো।

      খাবারের চেয়ে আর কি আনন্দ আছে? তবে আবার বেশী বেশী খাবার নয়। মোটা হয়ে গেলে আবার আর এক কষ্ট! হা হা হা।।

      ভাল থাকুন। আপনাদের সবার জন্য শুভেচ্ছা।

      Like

      • নাহ, আপনার চিকেন বিরিয়ানি রান্না হলো না!!! আব্বু মুরগির বদলে গরুর মাংস এনেছিলেন বাসায়, তাই আপনার দেয়া রেসিপি অনুযায়ী খানদানি তেহারি রান্না করা হয়েছে বোনের জন্মদিনে!!
        ওফ!!! আপনাকে কি আর বলব!! অসাধারণ হয়েছে তেহারিটা!!! সবাই খুব ই প্রশংসা করেছে!! আর আম্মু আপনাকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাতে বলেছেন!!! আপনার এই অসাধারণ রেসিপির কল্যাণে পার্টি জমেছে বেশ!!!

        ধন্যবাদ আপনাকে এবং আপনার রান্নাঘরকে এত অসাধারণ কিছু রেসিপি উপহার দেবার জন্য!!!

        শুভেচ্ছা ও ভালোলাগা 😀 😀 😀

        Liked by 1 person

        • ধন্যবাদ ভাতিজা।
          আমাদের চেষ্টা চলবেই। আমাদের উদ্দেশ্য পরিস্কার, ব্যচেলরদের (রান্না না জানা) রান্নাতে আগ্রহী করা এবং যারা জানেন তাদের মনে করিয়ে দেয়া। হা হা হা… আপনার আম্মাকেও আমাদের সালাম জানাবেন। তিনি খুব মজাদার রান্না জানেন এটা আপনার কথা শুনেই আমি বুঝতে পারি।

          আপনাদের পরিবারের সবার জন্য আমাদের ভালবাসা থাকবেই। আনন্দে আপনাদের সময় কাটুক।

          শুভেচ্ছা।

          Like

  4. মোরগ পোলাও খুব পছন্দের খাবার। অবশ্য ঢাকাইয়্যা মানুষ বলে সব ভারী খাবারই পছন্দের। গল্পের সাথে সুন্দর করে রেসিপি দেবার আপনার সাথে কারও তুলনা হয়না প্রিয় সাহাদাত ভাই। অনেক ভাল লাগলো পোস্ট বা রেসিপিটা। আর শেষে ভাতিজা বুলেটের কথা পড়ে বেশ মজা পেলাম। অনেকদিন রান্নাবান্না করা হয়না আমার, ক’দিন আগে শুধু আপনার ভাবির জন্য ম্যায়নিজ তৈরি করেছিলাম। মাঝে মাঝে রান্নাবান্না করলে মন ভাল থাকে এটা লক্ষ্য করেছি।

    শুভ কামনা জানবেন। Happy New Year!!

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ দাইফ ভাই।
      আমি তো রান্নাঘরে এমন মজা পেয়েছি যে, প্রতিদিন অফিস থেকে ফিরে কিছু না কিছু রান্না করেই ফেলি। বুলেট আমার রান্নার জন্য হা হয়ে বসে থাকে! আমি নাকি ভাল রান্না করি, হা হা হা…

      আজ রান্না করেছি ক্যাবেজ উইথ প্রন (থাই স্টাইলে) ভাল লেগেছে। রেসিপি আগামীকাল লিখবো।
      ছবি এখানে দেখতে পারেন।
      https://www.facebook.com/groups/Foodography1/permalink/347965665345400/

      সময় পেলে মাঝে মাঝে আসবেন। আপনাদের সময় আনন্দে কাটুক।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  5. u can use frame for all picture, also make all picture. make micture “auto correct light.

    Liked by 1 person

  6. Shb moshla dea doi ebong pudina patha done patha.,kuchi dea marinate kore rakhun overnight…tarpor tele piyak veje murgi koshiye rakun..alada patre vijiye rakha chal 50 done…kore jjrire jere chikene r chal layer kore ..protone 5min beshi agune thn dim ache dea rakhun ..20 min pore dkna khule dekun chal shiddo hoyeche kina….doi er raita shate khan khub e yummy hou..bashmoti chal kharap na…

    Liked by 1 person

  7. ভাইয়া, আমার বিরিয়ানি ঝরঝরে হয় না কেন? 😥

    Like

    • ধন্যবাদ ব্রাদার।
      বিরিয়ানীর শেষে দম ঠিক মত না দিলে বিরিয়ানী ঝরঝরে হয় না! পানি টান দিলেই দমে (আমি যা দেখাই তা হচ্ছে তাওয়ার উপর দিয়ে দেয়া) দিয়ে দিতে হয়। পানির পরিমানটা জরুরী।

      অভিজ্ঞতায় সব ঠিক হয়ে যায়।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  8. আসসালামু আলাইকুম। আপনার রেসিপি গুলো খুব ভালো হয়। কিন্তু আপনার একটা কথার সাথে এগ্রি করতে পারছিনা। আপনি বল্লেন যে উপর ওয়ালা আমাদের জন্য এই ব্যবস্থা করে রেখেছে। কিন্তু আমরা তো আল্লাহর দেয়া জীবন ব্যবস্থা ফলো করছিনা। পুঁজিবাদী জীবন ব্যবস্থা ফলো করে আজকে আমাদের এই দুর্দশা। এইখানে গরীব অােরা গরিব হবে আর ধনী অােরা ধনী হবে। ইসলাম কখনো তা সমর্থন করে না। আমরা ইসলামিক জীবন ব্যবস্থাকে ফিরিয়ে আনতে পারলেই ধনী দরিদ্র বৈষম্য ঘুচবে। ইতিহাস দেখলে বোঝা যায় যে ইসলামি শাসন ব্যবস্থায় খলিফা কিভাবে ধনী গরিব…. মুসলিম অমুসলিম দের হক বাস্তবায়ন করেছিল।
    ধন্যবাদ।

    Liked by 1 person

  9. ভাই খেজুর কি বেটে দিবো?

    Liked by 1 person

  10. পিংব্যাকঃ রেসিপিঃ বিফ বিরিয়ানি উইথ মিন্ট ফ্লেভার | রান্নাঘর (গল্প ও রান্না)

  11. আমার খুব মজার খাবার
    বিরিয়েনি আপনাকে দন্যবাদ
    রেসিপি দেয়ের জন্য

    Liked by 1 person

  12. Acha dhud koto ta lagbe ota to bollel na.

    Liked by 1 person

  13. খুব সুন্দর একটা রেসিপি শিখলাম আপনার কাছে।
    বিরিযানির উপর অনেক দিন থেকে আমার একটা লোভ ছিলো, এবার সেটা পুরন করবো।

    Liked by 1 person

  14. বাসমতীর চেয়ে কালিজিরা চালের বিরিয়ানি কিন্তু নেক বেশি মজা।

    Liked by 1 person

  15. ধন্যবাদ ব‌িষয় টা জানাছ‌িল না, এখন ন‌িজ‌েই বানাত‌ে পারব৷আর রোজই খাব৷

    Liked by 1 person

  16. Ei recipe ta bhalo na. Ami ajke ranna korlam. Shob chal thik moto shidhho hoi na. Onek bar pani debar por o kisu chal thik e holo na. 😔😔

    Liked by 1 person

  17. এটা কোন বিরিয়ানি রান্নার রেসিপিই নয়। যত সব ফালতু পোষ্ট

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ আপনাকে। চালের কারনে আপনার চেষ্টা বৃথা গেল। চাল কেমন সময় ভিজিয়ে রেখেছিলেন সেটা বিবেচ্য হতে পারে। যাই হোক, আগামীতে রান্না করলে আগে চাল হাফ সিদ্ধ করে নিয়ে মাড় ঝরিয়ে তার পর রান্না করবেন। আমিও আগামীতে রান্না করলে এমনি করবো। বাসমতী চালে আর বিশ্বাস করা যাচ্ছে না। শুভেচ্ছা।

      Like

  18. যত দ্রুত সম্ভব এই রেসিপিটা মুছে ফেলুন। না হলে আপনার সাইটের বারটা বাজবে। এটা কোন বিরিয়ানি রান্নার রেসিপি হল বলুন? যত জল দেয়না কেন চাল মোটে সিদ্ধই হয়না। রান্না শেষে বিরিয়ানি তো দুরে থাক খিচুড়ি ও হলো কিনা সন্দেহ। শুধু শুধু আমার হাজার টাকা নষ্টতো হলোই সাথে দূর্নামে ঘাটতি হলোনা।

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ ভবেশ ভাই। আপনার কমেন্ট পড়ে হাস্তে হাস্তে আছি। আমি এমনি কত রান্না করে টাকা নষ্ট করেছি তার হিসাব নেই। রান্না স্বাদের না হলে তা রেসিপি আকারে কখনোই পোষ্ট দেই না। যাই হোক, আপনার কষ্টের কারন বুঝতে পারি। চালটা আপনাকে ভুগিয়েছে! এমন হতে পারে, পুরানো চাল হলে। যাই হোক, আগামী বার আশা করি আরো ভাল রান্না হবে, আমিও থাকবো আপনার সাথে। শুভেচ্ছা।

      Like

    • সরি ব্রাদার। এই রেসিপিটা আবারো দেখিয়ে দেবে বলে ভাবছি।

      Like

  19. সুন্দর এবং সহজে ভাল খাবার রান্নাকরার ব্যবস্থা করার জন্য আপনার এ পদ্ধতি খুবই উপকারী।ধন্যবাদ আপনাকে।
    ,

    Liked by 1 person

  20. খুব ভালো রেসিপি

    Liked by 1 person

  21. দারুণ ।কিছু বলার নেই ।Thank you

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s