গ্যালারি

রেসিপিঃ পুষ্টিকর নুডুলস (সোনামনিদের জন্য)


ছোট সোনামানিকরা প্রতিদিন নুতন নুতন খাবার চায়, একই খাবার প্রতিদিন দেখলে মেজাজ দেখিয়ে ফেলে। কিন্তু যারা তাদের জন্য নাস্তা বা অন্যান্য খাবার রান্না করেন তারা পড়েন বিপদে। কত নুতন খাবার রান্না করা যায়! তা ছাড়া প্রতিদিন নুতন নুতন খাবারের আযোজনে প্রচুর টাকার দরকার। ভাল/নুতন খাবার রান্না করতে গেলে নুতন আইটেম কিনতে হয় আর আমাদের দেশের খাবারের আইটেমের দাম তো আকাশ ছোঁয়া।

– একটা মাঝারি ক্যাপ্সিকামের দাম কমের পক্ষে ৫০ টাকা, দেশে উৎপাদিত দাম এত বেশী কেন?
– মাশরুম, দামের কারনে কাছেই যাওয়া যায় না, ২৫০ গ্রাম আমি কিনেছি ২৫০ টাকায়, ভাবাই যায় না!
– সাধারন গাঁজর, এখন কেজি ৬০ টাকা, খাবো কি!

এই তো! আমাদের দেশের মধ্যবিত্তরা কি করে খাবার খান আমার মাথায় ধরে না! তবুও প্রতিদিন নয়, মাসে ছয় মাসে একবারতো কিনতে হয়। যে সকল খাবার প্রতিদিন খাবার কথা আমারা তা না খেয়ে কোনভাবে দিন পার করছি মাত্র!

যাই হোক, সোনামনিদের জন্য কার না ইচ্ছা হয় ভাল খাবারের আযোজন করতে! চলুন আজ নুডুলস রান্না দেখি, নুডুলসের অনেক পদের রান্না আগেও দেখিয়েছি।

প্রয়োজনীয় উপকরনঃ
– চার প্যাকেট ম্যাগি নুডুলস (হাফ সিদ্ব করে পানি ঝরিয়ে রাখতে হবে)
– কয়েকটা পেঁয়াজ ফালি
– গাঁজর, পাতলা বা থ্রেড করে কাটা, হাফ কাপ
– ক্যাপ্সিকাম, যতটুকু পারা যায়
– মাশরুম, যতটুকু পারা যায়
– একটা ডিম (আপনি চাইলে দুটো দিতে পারেন)
– হাফ চামচ বা কম গোল মরিচ গুড়া
– নুডুলসের টেষ্ট মেকার গুলো (মশলা)
– লবন (এক চিমটি বা পরিমান মত)
– তেল (পরিমান মত, ননষ্টিকি পাতিল/প্যান হলে তেল কম লাগবে)

প্রনালীঃ

সবজি গুলো এভাবে কেটে রাখুন। কাঁচা মরিচ কুঁচি করে নিন।


কড়াইতে তেল গরম করে সামান্য লবন যোগে প্রথমে পেঁয়াজ কুঁচি এবং গাঁজর কুঁচি ভেঁজে নিন। এই সময় ঢাকনা দিন এতে গাঁজর তাড়াতাড়ি নরম হয়ে যাবে।


গাঁজর নরম হয়ে গেলে এবার মাশরুম এবং ক্যাপ্সিক্যাম কুঁচি দিন।  ভাল করে মিশিয়ে ভেঁজে নিন।


এবার নুডুলস এর প্যাকেটে থাকা টেষ্ট মেকার মশলা ও গোল মরিচ গুড়া দিন। যত প্যাকেট নুডুলস তত প্যাকেট টেষ্ট মেকার দিন। ভাল করে কম আঁচে ভাঁজুন।


সবজি গুলো এক সাইড করে অন্য সাইডে একটা ডিম ভেঙ্গে দিন এবং ডিমটা সাথে সাথেই ভেঙ্গে ফেলুন।


এই রকম দেখাবে।


এবার হয়ে গেল ফাইন্যাল।


এবার নুডুলস (হাফ সিদ্ব করে পানি ঝরিয়ে রাখা) দিয়ে দিন।


মাধ্যম আঁচে ভাল করে মিশিয়ে নাড়িয়ে নিন। ফাইন্যাল লবন/স্বাদ দেখুন, লবন লাগলে দিন না লাগলে ওকে।


ব্যস পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত। মজাদার, সুস্বাদু এবং পুষ্টিকর তো বটেই।

* আপনারা চাইলে আরো নুতন সবজি যোগ করতে পারেন কিংবা এই সব সব্জির বদলে আমাদের শীত কালীন সবজি ব্যবহার করতে পারেন। যেমন ফুল কপি, মটরশুটি ইত্যাদি।

* ম্যাগি ছাড়া আপনি চাইলে অন্য নুডুলস দিয়েও রান্না করতে পারেন।

সবাইকে শুভেচ্ছা।

কৃতজ্ঞতাঃ মানসুরা হোসেন

Advertisements

11 responses to “রেসিপিঃ পুষ্টিকর নুডুলস (সোনামনিদের জন্য)

  1. ভাই একদিন দাওয়াত দেন। পেট ভইরা না মন ভইরা খাই।

    Like

    • ধন্যবাদ নিজাম ভাই। কেমন আছেন আপনি? আপনার দেয়া ব্যানার গুলো এখনো চালাছি!

      দাওয়াত তো আপনার জন্য ওপেন! আর বড় দাওয়াত তো আমার ছেলের বিয়েতে! হা হা হা…

      শুভেচ্ছা। আপনিও ভাল থাকুন। (আপনার লাইক গুলো আমাদের অনেক আনন্দ দেয়)

      Like

  2. Where I can found Mashrum as per your pic, also plz advise the price range, thanks!

    Like

    • ধন্যবাদ রেদোয়ান ভাই, এই ধরনের মাশরুম আপনি একমাত্র বড় গ্রোসারী ছাড়া অন্য কোথায়ও পাবেন কিনা জানি না। তবে নিউমার্কেটে খোলা দোকানেও পাওয়া যায়। আগোরা, স্বপ্ন ইত্যাদিতে পেতে পারেন। আমি আগোরা থেকে কিনেছি, ২৫০ গ্রাম বা তার কিছু বেশী হতে পারে, দাম নিয়েছে ২৫০ টাকা + ভ্যাট! হা হা হা…

      শুভেচ্ছা নিন।

      Like

  3. ভাইয়া, আর যাই করেন, নুডলস বানানোতে আমাকে হারাতে পারবেন না। হা…হা… আমার তৈরী নুডলস শুধু আমার বাসায় না… আমাদের পুরো ফ্ল্যাটের Favorite… ইস… যদি আপনাকে একদিন খাওয়াতে পারতাম… 🙂

    Like

    • ধন্যবাদ বোন,
      হা হা হা…। আপনি যেভাবে রান্না করেন তার রেসিপিটা এখানে তুলে দিন। আপনার মত করে রান্না করে খেয়ে দেখবো। আশা করি আপনার মতই ভাল হবে।

      রান্না দিয়ে মানুষের ভালবাসা কিনুন, এটাই চান্স।

      শুভেচ্ছা।
      (দেরীতে উত্তর দেয়ার জন্য দুঃখিত, সরি)

      Like

  4. Best recipe site…ভাইয়া লেখা বন্ধ দিয়েন না কিন্তু… আর ছবি সহকারে পোস্ট দেয়াতে বেশি helpful হচ্ছে পোস্টগুলো। Thanks so much ভাইয়া

    Like

    • ধন্যবাদ বোন। আপনার কমেন্ট পেয়ে খুশি হলাম। প্রায় ৫০০ রেসিপি আছে, আশা করি আপনাদের কাজে লাগবে। না, যতদিন বেঁচে আছি লিখেই যাব। প্রবাসী ও ব্যচেলর ভাই বোনদের সাথে আমি আছি সব সময়েই। শুভেচ্ছা।

      কি করে আমাদের এই ব্লগের কথা জানতে পারলেন, জানালে খুশি হব।

      Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s