Gallery

রেসিপিঃ লবষ্টার উইথ মিক্স ভেজিটেবল (বোন রুমা আহমেদ রিকোয়েষ্ট)


ফেইসবুক দুনিয়াটাকে মোটামুটি এক করেই ফেলেছে। দুনিয়ার যে কোন জায়গাতে থেকেও মনে হয় আমরা কত কাছাকাছি। আমেরিকা, কানাডা, ইংল্যান্ড, ইতালী, সুইডেন, বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া যে যেখানে আছি, কিন্তু মনে হয় কত কাছাকাছি। ফেইসবুকে/ অনলাইনে থেকেই এখন সবার নজর রাখতে পারি, জন্ম মৃত্যু এবং বর্তমান অবস্থান। অস্ট্রিয়ায় চাচাত বোনের মেয়ে হল, এক নিমিশেই জেনে যাচ্ছি! শুভেচ্ছা বার্তাও পাঠিয়ে দিচ্ছি কত সহজে। আমি পিতা হলাম, ফেইসবুকের সাহায্যে সবাইকে জানিয়ে দিলাম! এভাবে কত কি! কত অচেনা বন্ধু আপন হল, কত প্রবাসীর সাথে মনে হয় দাঁড়িয়ে গল্প করছি!

সে যাই হোক, আমি আবার রেসিপি লিখে আপনাদের আরো কাছে কাছে থাকতে চাই। আমার খবরটা এখন আরো বেশি মানুষ জানেন এবং আমিও বেশি মানুষের সাথে থাকতে চাই, অনেকে অনেক বন্ধু পেতে চাই। এযাবৎ প্রায় সাড়ে চারশত রেসিপি লিখে আমি আপনাদের কাছে থাকার চেষ্টা করছি। কত রান্না প্রিয় বন্ধুর নামে রেসিপি লিখেছি, কত রান্না দিয়ে সবাইকে উৎসাহ দিয়েছি।

কিন্তু আমার নিজের নিকট আত্বীয় (এখন অনেক নিকট আত্বীয় ফেইসবুকে আছে, বিশেষ করে আমার ইয়ং চাচাত, ফুফাত, মামাত ভাই বোনরা) দেশ বিদেশের কোন সময় আমার কাছে কোন রেসিপি জানতে চান নাই, অতি সম্প্রতি আমার সুইডেন প্রবাসী ফুফাত ভাইয়ের স্ত্রী আমার কাছে একটা রেসিপি জানতে চেয়েছেন, Shahadat bhaia boro Chingri r sathe onno kichur ekta recipi (jhal) deben. মজার ব্যাপার এই কমেন্ট দেখার দিন আমি নিজেই কি মনে করে বড় গলদা চিংড়ি কিনে বাসায় ফিরছিলাম, আমি সারপ্রাইজড হয়ে পড়ছিলাম! কাকতালীয় ব্যাপার! যাই হোক, এই বড় চিংড়ি (গলদা) রান্না করেছিলাম, আমাদের মত করেই, বিদেশের মাটিতে আমার এই রেসিপি আমার এই ভাইয়ের স্ত্রীর আশা করি কাজে লাগবে। মশলা ও অনুসাঙ্গিক ভেজষ এবং সবজি তিনি সেখানে পাবেন বলে আশা করি।

(এই মডেল দিয়ে আর বেশী দিন ছবি তোলা যাবে বলে মনে হয় না, কারন এখন সে কিছুটা বুঝে যাচ্ছে তার এই ছবি গুলো সারা দুনিয়ার মানুষ দেখে! হা হা হা… কিশোর হয়ে যাচ্ছে!)

চলুন রেসিপিটা দেখে ফেলি। কয়েকটা ধাপে এই রেসিপি লিখা হয়েছে। ধাপ গুলো দেখেই বুঝে নেয়া যেতে পারে। রান্নায় ধাপ গুলোতে বুঝা যায় কোনটা আগে কোনটা পরে করতে হয়। যারা নুতন রান্না করছেন বা করতে চান আপনাদের প্রতি অনুরোধ থাকবে, ধাপ গুলো মনে রাখলেই রান্না সহজ ও সাধারণ হয়ে ধরা দেবে।

উপকরণ ও প্রনালীঃ
চিংড়ি প্রিপারেশন

চিংড়ি ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে এক চিমটি গোল মরিচ গুড়া, সামান্য হলুদ এবং সামান্য লবন দিয়ে ভাল করে মেখে কিছুক্ষন রেখে দিতে হবে।


এবার কড়াইতে সামান্য তেল দিয়ে চিংড়ি ভেঁজে নিন।


ভাঁজা হয়ে গেলে তুলে রাখুন। ভাঁজাটা বেশী না হলেই ভাল কারন পরে আরো রান্না আছে।

সবজি প্রিপারেশন –

এবার সবজি কেটে নিন। কি কি সবজি দেবেন তা আপনি নিজেও নির্ধারন করতে পারেন। আমরা ক্যাপ্সিকাম, পেঁয়াজ, গাঁজর, মাশরুম নিয়েছিলাম (পরিমান ২৫০ গ্রাম বা তার বেশি হবে হয়ত)। আপনি চাইলে ব্রকলি, মটর দানা সহ আরো এমন সবজি নিতে পারেন।


এবার সবজি গুলো একে একে লবন পানিতে আধা সিদ্ধ করে নিন। (একই লবন গরম পানিতে সব সবজি সিদ্ধ করা হয়েছে)


গাঁজর টাইপের শক্ত এবং কালার সবজি সবার শেষে করা যেতে পারে।

সবকিছু এভাবে তুলে রাখুন –

এভাবে মাছ ও সব সবজি সিদ্ধের পর তুলে রাখুন। মাশরুমকেও সামান্য সিদ্ব করে নেয়া হয়েছে।

মিক্স সস প্রিপারেশন –

এবার একটা সস মিক্স প্রস্তুত করে নিন, এটাই রান্নার মশলা হিসাবে কাজে লাগবে।
– টমেটো সস, ২ টেবিল চামচ
– সয়া সস, ১ চা চামচ
– ফিস সিস, ১ চা চামচ
– ওয়েস্টার সস, ১ চা চামচ
– গোল মরিচ গুড়া, হাফ চা চামচ
– চিনি, হাফ চা চামচ
– হাফ কাপ পানি
(প্রায় সসে লবন থাকে বলে আলাদা করে লবন দেয়ার দরকার নেই)

মুল রান্না –

সামান্য তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ দিন (পেঁয়াজ এখানে সবজি হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে, পেঁয়াজ সিদ্ধ করা হয় নাই, কারন পেঁয়াজ এমনিতেই নরম হয়ে যায়) এবং ঢাকনা দিয়ে কিছুক্ষন রাখুন যাতে পেঁয়াজ নরম হয়ে যায়।


এবার আধা ভাঁজা চিংড়িটা দিন প্রথমে এবং পরে মিক্স সস ঢেলে দিন। চিংড়ির পরিমান বুঝে আরো সামান্য পানি দিতে পারেন।


মাধ্যম আঁচে মিনিট ১৫ জ্বাল দিন। মাঝে চিড়িটা উলটে পাল্টে দিতে পারেন, যাতে মশলা ভিতরে যায়।


এবার হাফ সিদ্ধ করে রাখা সবজি গুলো ঢেলে দিন।


ভাল করে মিক্স করুন। মিনিট ৫ আগুন বাড়িয়ে নাড়িয়ে নিতে পারেন। ফাইন্যাল লবন দেখুন, লাগলে দিন, না লাগলে ওকে বলুন। নামাবার আগে কয়েকটা কাঁচা মরিচ বিচি ফেলে ছিরে দিতে পারেন, যারা ঝাল পছন্দ করেন তাদের ভাল লাগবে।

পরিবেশনা –

পরিবেশনটা আপনার উপর নির্ভর করছে! আপনি সাজিয়ে তুলতে পারেন, আপনার মত করেই। আমার সাজানোটা ভাল হয় নাই, চিংড়ির লেজ সবজি দিয়ে ঢেকে ফেলা উচিত হয় নাই! ভুলটা পরে বুঝতে পারছিলাম! হা হা হা…


অদ্ভুত, অসাধারণ স্বাদের খাবার। একবার রান্না করেই দেখুন না।

ধাপ একটু বেশি মনে হলেও এটা একটা সহজ রান্না, শেষের ধাপটা ছাড়া আগের গুলো যেটা আপনার আগে করতে ইচ্ছা হয় তা করে নিন।

সবাইকে শুভেচ্ছা।

Advertisements

4 responses to “রেসিপিঃ লবষ্টার উইথ মিক্স ভেজিটেবল (বোন রুমা আহমেদ রিকোয়েষ্ট)

  1. বোন রুমার ফেইসবুক কমেন্ট এখানে তুলে রাখলাম।
    Ruma Ahmed – Shahadat bhaia many many thanks for recipi. It seems to be very tasty. The way you described is simply excellent. We will do it next week Inshallah.

    Like

  2. দেখতে যেমন চমৎকার হয়েছে খেতেও তেমন মজাদার হবে সেটা বুঝতে পারছি ।

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s