গ্যালারি

রেসিপিঃ কোয়েল পাখির ডিম (কোন কারিগর বানাইলো!)


দুনিয়া বড় বিচিত্র! এই দুনিয়াতে মানুষ আমরা উপরওয়ালার সেরা সৃষ্টি! মানুষকে সেরা বলার কারন, মানুষের মাঝেই আছে সারা দুনিয়ার সকল প্রানীর গুনাবলী। হা হা হা… দুনিয়ার অন্যান্য প্রানীকুলের আলাদা আলাদা যে সত্তা আছে তা মানুষ কুলের মধ্যে আছেই আছে! তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে, দুনিয়াতে এত মানুষ (আসছে এবং গেছে) একজনের চোহারার সাথে অন্য জনের মিল নেই! অন্যান্ন্য প্রানীর মধ্যে এই সমস্যা নেই! সবাই এক! যেমন ইলিশ মাছ, প্রায় সবাই এক চোহারার! ইলিশ মাছ গুলো একে অপরকে কি করে চিনে থাকে তা আমার এন্টিনায় ধরে না!

যাই হোক, আমি প্রানী বিজ্ঞানী নই। সাধারন আম জনতা মাত্র! আমাদের এত কিছু নিয়ে ভাবলে কি চলে! তবে দুনিয়াতে কখন কে খাবে, কোথায় খাবে তা মনে হয় একমাত্র উপরওয়ালাই তার নিজের খাতায় লিখে রাখেন! মানুষ বা জগতের কোন প্রানী যদি এটা জানত তবে দুনিয়ার অবস্থা কিছুটা হলেও ভিন্ন হত। ‘এক সেকেন্ডের নাই ভরসা’ আবার মানুষের মধ্যেই বেশী! হা হা হা। খাবার দাবার না থাকলে জগতের প্রানী কুলের মধ্যে সব সময় একটা ভাল ভাব থাকত! মানুষ যদি হাওয়া খেয়ে বাঁচতে পারত তবে সারা দুনিয়ার জন্য মঙ্গল হত! খাবার চিন্তা না থাকলে কত সুন্দর করে ‘হাওয়া মে উরতা যায়ে……’ গান গাইতে পারত। আহ…

সে যাই হোক, কাজের কথায় আসি। গত পরশুদিন আমার রেসিপি টেষ্টার বুলেট আমাকে জানাল, সে কোয়েল পাখির ডিম খেতে চায়। শিশুদের কখন কি খেতে মনে চায়, এটাও মনে হয় উপরওয়ালার ইচ্ছা! সে কোথায় যেন শুনেছে, আজকাল কোয়েল পাখি (আসল কি না জানি না) ডিম খাচ্ছে অনেকেই! (আজকাল খরগোশ সহ নানান ধরনের বিচিত্র খাবার হরহামেশাই চলছে) আমি ভাবছিলাম কোথায় পাওয়া যাবে। বিকালে বেইলী রোড়ে বের হতেই চোখে পড়ে গেল, একজন বিক্রেতা। যিনি মহিলা সমিতির উলটা পাশে কিছু পাখি এবং এই ডিম বিক্রয় করছেন। পেয়ে আমি মহা খুশি। এক ডজন কিনে ফেললাম। ডজন ৩৬ টাকা।

কোয়েল বলে বিক্রয় করলেও আসলে এগুলো এক ধরনের মুরগীর বানসাই প্রজাতির (আমার এই বিষয়ে বিস্তারিত জানা নেই) ডিম বলে আমি দেখেছি। ছোট সাইজের পাখির মত, আবার দেখতে চোহারায় মুরগী! এই বিষয়ে চান্স পেলে বিস্তারিত জেনে নিব। ডিম গুলো বাসায় এনে, কি করে রান্না করে খাওয়া যায় ভাবছিলাম, স্বাদ দেখা যায় তা ভাবছিলাম। বিচিত্র কোন রান্না মনে আসছে না, সাধারন ডিম ভাঁজির মত করেই পেঁয়াজ কাঁচা মরিচ দিয়ে! চলুন দেখে ফেলি!

প্রনালীঃ

ডিমের চোহারা চমৎকার! কোন কারিগর বানাইলো!


সিদ্ব করে খোসা ছড়িয়ে নিলাম। এবং কিছু দাগ দিয়ে নিলাম।


সামান্য তেল গরম করে তাতে এক চিমটি লবন দিয়ে ডিম গুলো ছেড়ে দিলাম এবং এক চিমটি হলুদ।


ডিম গুলো সামান্য সময়ে ভেঁজে নিলাম।


ডিম গুলোর চোহারা হলদে হয়ে গেলে কিছু পেঁয়াজ কুঁচি এবং কাঁচা মরিচ কুঁচি দিয়ে দিলাম।


ভাল করে হালকা আঁচে কিছুক্ষন ভাঁজলাম।


এবার সামান্য গোল মরিচের গুড়া ছিটিয়ে দিলাম।


আরো কিছু ক্ষন ভাঁজলাম।


ব্যস পরিবেশনার জন্য প্রস্তুত। দেখতে অপূর্ব!


স্বাদেও চমৎকার। আমাদের বুলেট বাবাজী খেয়ে আমাকে জানালো, ফ্যান্টাস্টিক! আমি নিজেও খেয়ে দেখেছি, আসলেও ফ্যান্টাস্টিক!

ধার্মিক লোকেরা বলেন, দুনিয়াতে কারো ইচ্ছাই উপরওয়ালা অপূর্ন রাখেন না! আর কর্মঠ লোকেরা বলেন, ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়! হা হা হা…। এই দুয়ের মাঝামাঝি এই দুনিয়াতে আরো এক শ্রেনীর মানুষ আছে, যারা সঠিক সময়ে সঠিক সিদান্ত নিয়ে কোন দলেই যেতে পারে না! মরার পর এদের কি হবে!

সবাইকে শুভেচ্ছা।

Advertisements

14 responses to “রেসিপিঃ কোয়েল পাখির ডিম (কোন কারিগর বানাইলো!)

  1. ঢাকায় গেলে সিএসডিতে প্রায়ই দেখি কোয়েলের ডিম। তবে খাওয়া হয়নি। তবে ঐ ডিমগুলো পুরোটাই সাদা ছিলো। এটা কি তিতিরের ডিম?

    Like

    • ধন্যবাদ আপা,
      কোয়েল বলছে তবে আমার মনে হয় না এটা কোয়েলের ডিম। এটা ভিন্ন একটা পাখি। ঢাকা শহরে এই নিয়ে কয়েকবার দেখলাম।

      পাখিটা সাইজে ছোট, দেখতে অনেকটা মুরগীর মত। আমি আবার পেলে ডিটেইলস জানবো। এটা মনে হয় ফার্মে চাষ করা কোন পাখি। দেখতে খুব নিরিহ। ছবি তুল্লে ভাল হত।

      দেখা যাক আমাদের অন্য বন্ধুরা কি বলেন।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  2. কোয়েলের ডিম বেশ উপাদেয়। বেশ অনেকদিন ধরেই সুপারস্টোরগুলিতে কোয়েলের ডিম পাওয়া যাচ্ছে… অনেকেই রেসিপিতে কোয়েলের ডিম রাখতে পছন্দ করেন। উইকি-র এই পেইজটা দেখতে পারেনঃ
    http://en.wikipedia.org/wiki/Quail

    Like

    • ধন্যবাদ শরীফ ভাই।
      পেইজটা দেখে এলাম। হা, অনেক কিছু জেনে গেলাম।
      এটাই সে পাখি, যাকে কোয়েল বলেছিল বিক্রেতা।

      আমরা কোয়েল বলতে অন্য একটা পাখি বুঝি, যা গ্রামে জংগলের বড় বড় গাছে দেখা যেত।

      শুভেচ্ছা।

      Like

      • গাছে গাছে যে কোয়েল দেখা যায় সেটি হচ্ছে কোকিল, যার ইংরেজী নাম হলো এশিয়ান কোয়েল। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে এগুলির বেশ দেখা মিলবে। এই পাখির ছবি তোলা নিয়ে বেশ কিছু স্মৃতি আছে। 🙂

        Like

  3. এটা কোয়েলেরই ডিম। এখন তো কোয়েল পালন করা হয়।অনেক ডিম দেয়।

    রেসিপিটা সুন্দর হয়েছে

    শুভেচ্ছা ও ভালোলাগা

    Like

  4. আমি কিন্তু খাদ্যরসিক নায়।
    আমার মুখে বারোমাস রুচি থাকেনা।:p
    এইটা লইয়া কিছু লেখেন।

    Like

  5. ভাই কি ছবি দিলেন !!!!!!!!!!!! এখনত খাইতে ম্নচাচ্ছে । এত রাইতে কোই পাই। , পোস্টের জন্য ধন্যবাদ

    Like

  6. bhai khub valo laglo, amio koyel pakhir chas korte chai,

    Like

  7. পিংব্যাকঃ এক নজরে সব পোষ্ট (https://udrajirannaghor.wordpress.com) | BD GOOD FOOD

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s