গ্যালারি

রেসিপিঃ ভেজিটেবল রাইস (সাধারন)


খাবার দাবার ছাড়া আর কি আছে এই দুনিয়াতে! যে কোন উৎসবের দিন বলেন বা নিত্যদিন বলেন, বাঁচতে হলে খেতে হবেই। আর সেই খাবার ভাল হলে তো কোন কথাই নেই। ভাল খাবার না হলে শিশু থেকে বুড়ো কারো মুখেই হাসি ফুটে উঠে না!

চলুন, ভেজিটেবল রাইস দেখে নেই। খুব সহজ রান্না। কয়েক পদের ভেজিটেবল আর কিছু রাইস দিয়ে আপনিও সহজে এই রান্না করে নিতে পারেন। বন্ধের বা ছুটির দিন গুলোতে জম্বে বেশ।

প্রয়োজনীয় উপকরনঃ
– হাফ কেজি পোলাউ চাল (চার জন খেতে পারবে)
– নানা প্রকারের কিছু সবজি (আমরা নিয়েছিলাম গাজর, পেঁপে, বেগুন, মিষ্টি কুমড়া, ঝিঙ্গা এবং কিছু পুঁইশাক। আপনি চাইলে আরো নানা পদের ভেজেটেবল যোগ করতে পারেন)
– সস মিক্স (সয়াসস এক টেবিল চামচ, টমেটো সস দুই টেবিল চামচ, চিনি ১ চা চামচ, গোল মরিচ গুড়া আধা চা চামচ)
– পেঁয়াজ কিউব, হাফ কাপ
– আদা বাটা, এক চা চামচ
– কাঁচা মরিচ কয়েকটা ফালি (সব্জির সাথে দিতে পারেন, আমরা দিয়েছিলাম)
– তেল/পানি (পরিমান মত)
– লবন, পরিমান মত

প্রনালীঃ 

এটা দুই ধাপের রান্না। প্রথম পোলাউয়ের চাল ধুয়ে এক চামচ লবন দিয়ে চাল হাফ সিদ্ব করুন।


ঝাঁজরিতে নিয়ে পানি ঝরিয়ে চাল রাখুন।


তেল গরম করে আদা বাটা ও পেঁয়াজ দিয়ে ভেঁজে নিন।


তার পর সবজি দিয়ে দিন। (সবজি গুলো কেটে মিক্স করে আগেই ধুয়ে রাখুন)


ভাল করে মিশিয়ে নিন।


সবজি গুলো মজে এমন দেখাবে।


এবার সস মিক্স (সয়াসস, টমেটো সস, চিনি, গোল মরিচ গুড়া) দিয়ে দিন।


ভাল করে মিক্স করার পর হাফ সিদ্ব চাল ঢেলে দিন।


এবং স্টার ফ্রাই (বেশী আগুনে ভাল করে ভাঁজা) করুন।


এবার হাড়িটা তাওয়ার উপর বসিয়ে হালকা আঁচে রাখুন, দমে। এবং ঢাকনা দিয়ে রাখুন, মিনিট ১৫ লাগতে পারে। মাঝে মাঝে নেড়ে দিতে ভুলবেন না।


এই অবস্থায় আসতে দেরী লাগবে না। ফাইন্যাল লবন দেখুন, লাগলে দিয়ে ভাল করে আবারো নাড়িয়ে নিন। ব্যস হয়ে গেল!


পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।


যে কোন চিকেন, বিফ বা অন্য কিছুর সাথে খেয়ে নিন। শিশু, বুড়ো সবাই পছন্দ করবে।

সবাইকে শুভেচ্ছা।

কৃতজ্ঞতাঃ মানসুরা হোসেন।

Advertisements

8 responses to “রেসিপিঃ ভেজিটেবল রাইস (সাধারন)

  1. এর চেয়ে আরো বিস্তারিত দেখতে নিম্মের পোষ্ট দেখতে পারেন।
    রেসিপিঃ চিকেন ফ্রাইড রাইস উইথ মিক্স ভেজিটেবলস এন্ড এগ
    http://wp.me/p1KRVz-EV

    Like

  2. এটা আমার খুব পছন্দের! 😀

    Like

  3. আমার ছোটভাই যখন স্কুল এ পড়ত তখন তাকে আম্মা বাইরে যেতে দিতেন না ( স্কুল ছাড়া ) । স্কুল শেষে বাসায় ফিরে বোরিং ফিল করতো তাই রান্না করার চেষ্টা করত । একদিন সে আমাকে জিজ্ঞেস করলো সবজি দিয়ে কি পোলাও করা যায় ? আমি বললাম হ্যা করা যায় তো । তখন বাসায় যা যা সবজি ছিলো সেগুলো দিয়ে দুই ভাইবোনে মিলে সবজি পোলাও রান্না করতাম ।( শীতের সিজন ছিল ) আপনার ভেজিটেবল রাইস (সাধারন) রেসিপি দেখে সেই কথাই মনে পড়ে গেল । ভালো লাগলো । শুভেচ্ছা নিবেন ।

    Like

    • ধন্যবাদ বোন।
      আপনাদের ভাইবোনের কথা শুনে ভাল লাগল। আমি এখন দুঃখ করি এই ভেবে যে, আমি অনেক সুযোগ পেয়েও কখনো ছোট বেলায় রান্নাঘরে প্রবেশ করি নাই। আগে থেকে যদি রান্না জানতাম, আজ হয়ত আমি অন্য কোথায়ও থাকতাম।

      রান্না জানাটা আনন্দের এবং এটা একটা চমৎকার কাজ এটা বুঝতে পেরেছি বেশী দিন আগে নয়। এমন কি বিবাহের পরও রান্নাঘরে প্রবেশ করতাম না, এখন মনে পড়ে কত ভুল এই জীবনে।

      রান্না করা জানাটা গর্বের ব্যাপার। আপনি ভাল রান্না করেন জেনে ভাল লাগে।

      আপনাদের জন্য শুভেচ্ছা।

      Like

  4. পিংব্যাকঃ রেসিপিঃ চিকেন ফ্রাইড রাইস উইথ মিক্স ভেজিটেবলস এন্ড এগ | রান্নাঘর (গল্প ও রান্না)

  5. Apnake thanks na diea thaka jachse na. Karon ami amon akta ranna-e korte chachsilam.recipe ta dekhe onek help holo. thank you once again……

    Like

  6. পিংব্যাকঃ এক নজরে সব পোষ্ট (https://udrajirannaghor.wordpress.com) | BD GOOD FOOD

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s