Gallery

আড্ডাঃ কমলাপুরের ইফতার ২০১৩ইং (চেনামুখ)


কমলাপুরের আড্ডা। আমার স্কুল হচ্ছে মতিঝিল মডেল হাই স্কুল। আমি এই স্কুল থেকে এসএসসি পাশ দিয়েছি। দীর্ঘ সময়ে এই কলোনী এলাকায় থাকায় আমার আদি বা স্কুল/কলেজের বন্ধু বলতে এই এলাকার বন্ধুদের বলা হয়ে থাকে। এখন আবশ্য আমার বন্ধুদের কেহই আর এই এলাকাতে থাকেন না, সবাই দেশ বিদেশে চলে গেছেন। তবে অনেক বন্ধুর ভীড়ে এখনো আমরা কয়েকজন বন্ধু যারা ঢাকা শহরে টিকে আছি তারা প্রতি বছর রোজায় ইফতারিতে একদিন মিলিত হই। এটা গত প্রায় ৬/৭ বছর থেকে চলে আসছে। আমরা আমাদের আদি আড্ডাস্থলে একদিন সন্ধ্যায় মিলিত হই এবং আড্ডা দেই। আগের মত হাতে আর কারোই সময় নেই। ফোনে যার সাথে যতটুকু কথা বলা যায় এই আর কি?

(প্রতি ঈদের পর দিন কিংবা সুযোগ পেলেই ছবি তোলা আমাদের শখ ছিল। এখন এমন একটা ছবি তোলা বেশ দুরহ!)

এবার আমি এবং নিয়াজ লিষ্ট করে দেখেছি ১৮ জনকে দাওয়াত দেয়া যায়, যারা এই শহরে আছে। কিন্তু ইফতারের আগে আমি বারবার হিসাব করে দেখলাম, ১১ জনের বেশী আসতে পারছে না। পরিশেষে আমরা ১১ জনেই এবারের ইফতার ও আড্ডা সারলাম। ইফতারের পর মতিঝিল কলোনীতে আমাদের আদি আড্ডার জায়গায় (মডেল স্কুলের পিছনে) কিছু সময় কাটালাম।

সে দিনের সেই কিশোর/জোয়ান গুলো আজ মাঝ বয়সী! আমার বন্ধুদের সেই সুন্দর মুখ গুলো আমার রেসিপি পাঠক/পাঠিকা বন্ধুদের না দেখিয়ে পারলাম না! মানুষের মুখের চেয়ে সুন্দর আর কি আছে?

রেডিও বাংলাদেশে কাজ করে। গল্প হচ্ছে ওর সেরা কাজ! জীবন্ত রেডিও বটে!


বিশিষ্ট সরকারী কর্মকর্তা। আমাদের গাজী সাহেব! গাজী সাহেবের বাস্তব ধর্মী কথা আমি বেশ পছন্দ করি। আই লাভ গাজী স্পিচ!


আরে বেয়াক্কেল বেটা, ছবি তুলতে কি পোজ দিতে হয়! চান্দির মাল তো সব গেছে! এবার থাম!


শান্ত শিষ্ট বন্ধু। মাত্র কয়েকদিন আগে বিবাহ করেছে! দাওয়াত দেয় নাই, পরে বিচার করুম নে!


এই হচ্ছে মুন্না! লাল্টু ছেলে! আগামী দুই দিন অফিস বন্ধ, দুইদিন দাঁড়ি কাটতে হবে না!


আমার বন্ধুদের মধ্যে সবচেয়ে স্টাইলিষ্ট বন্ধু ছিল সামু! এই বছর ও অনেক মোটা হয়েছে! চশমা পরা ওকে আমার এই প্রথম দেখা।


১৯৭১! আমার এই বন্ধুকে কেন আমরা এখনো ১৯৭১ বা নাইন্টিন সেভেন্টিন ওয়ান বলি তা এখনো রহস্য। ওর আসল নাম আমরা অনেকেই জানি না!


কমলাপুরের জসিমুদ্দিন রোড়ের সেই ছেলেটা!


২০ বছর পর এক লোকের সাথে আমাদের বন্ধু বেলালের দেখা। সেই লোকটা আমাদের এই বন্ধুকে চিনলো ক্যামনে? হা, বেলালের ভয়েস! ছোট বেলা থেকেই ওর আছে ‘হিজ মাষ্টার ভয়েজ’! ওর গলার স্বর চিরদিনের জন্যই এক। ভরাট এবং দরাজ! একবার শুনলে আপনার আজীবন মনে থাকবে।


ওর কথা আর কি বলবো! লিখলে সাহিত্য হয়ে যাবে, সাগরের পানি কালি হলেও কম পড়বে!


আমাদের বাবু। ছোট সোনা যাদু মানিক!


ইফতারের আড্ডা।


ইফতারের আইটেম। ভাজিভুজি আর কেহ খেতে চায় না!


মাগরিবের আযান, আমাদের ইফতার।


খাবার ও নামাজ শেষে আমাদের সোনামানিকদের দুষ্টামী!

(পরে আরো কিছুক্ষন রাস্তার ধারের চা দোকানে, মতিঝিল কলোনীর মাঠে, মডেল স্কুলের পিছনে আড্ডা দেই, অন্ধকারের সেই ছবি গুলো তোলা যায় নাই। ছবিগুলো মোবাইলে তোলা, কোয়ালিটি ভাল হয় নাই, তবে চোহারা চেনা যাচ্ছে!)

জীবনে ভাল বন্ধুর খুব দরকার। বন্ধু না থাকলেও বাঁচা যায়, তবে ভাল বন্ধু হলে জীবন আরো সুন্দর হয়। আমার দেশ বিদেশে অনেক বন্ধু, আমার সব বন্ধুরাই চমৎকার, ভালো।

আপনারা নেটের আমার রেসিপি প্রিয় বন্ধুরা, একদিন আপনাদের সাথেও এমন একটা সন্ধ্যা কাটাতে চাই। আপনাদের বন্ধুত্বের তুলনা নেই, আপনারা আমাকে পছন্দ করেন বলেই, আমি এখনো টিকে আছি।

সবাইকে শুভেচ্ছা।

Advertisements

7 responses to “আড্ডাঃ কমলাপুরের ইফতার ২০১৩ইং (চেনামুখ)

  1. হা হা হা! আপনার বন্ধুদের বর্ননা যা দিলেন, হাসতে হাসতে আমি নাই!
    ভাই চান্দি ছিলা নিয়া দুঃখ করেন কেনো? বেচারা উইলিয়াম এর চান্দি ফাঁকা হয়ে গেলো সিংহাসনে বসা হলোনা। তার ছেলেরো বোধহয় চান্দি ফাঁকা হবে পরদাদীর কফিনের অপাক্ষা কর্তে কর্তে! :p

    আপনাদের আড্ডা দেখে কিছুটা মন ভারী হচ্ছে। আসলে বন্ধু বলতে সে রকম নির্দিষ্ট কেও নেই, ছিলোনা আমার। একজন ছিলো যার কথা এক পোস্টে লিখেছি। যাদের সঙ্গে আমার মন মানসিকতা, রুচি, মিলে তারা কেউ আমার আশে পাশে নেই। 😦

    Like

    • ধন্যবাদ আপা, আপনার কথার সাথে একমত। ছেলেদের চোহারা/মুখের মুল সৌন্দর্য্য হচ্ছে চুল! আর সেই চুল যদি না থাকে! হা, টাকা বা রাজা হলেই যে চুল আপনার কথা শুনবে তা নয়! টাকা দিয়ে সব কিছু হয় না, এটা বড় প্রমান! হা হা হা…

      ছেলেদের মধ্যেই বন্ধুত্ব টিকিয়ে রাখা কঠিন, আর আপনারা মেয়েদের তো সেই চান্সই কম, আপনারা যেভাবে বেড়ে উঠেন তাতে বন্ধুত্বের সময় ও সুযোগ হয় না বললেই চলে। আমরা যত বড় হচ্ছি ততই বন্ধুত্বহীন হয়ে যাচ্ছি। স্বার্থ ছাড়া কাউকে আর দেখি না।

      ছোট বেলার বন্ধুদের এখনো ধরে রাখার কৃতিত্ব আমার। আমি এখনো সবার সাথে নিজে যেচে কথা বলি এবং আড্ডার ইচ্ছা প্রকাশ করি। আমি এই কাজ গুলো না করলে, হয়ত এখনো আমাদের বন্ধুত্ব টিকে থাকত না। যারা বিদেশ চলে গেছে সে সব বন্ধুদের মনে পড়ে কিন্তু ওদের কারবার দেখলে পিছিয়ে যাই। হা হা হা… বিদেশ থেকে এসে আমাদের সাথে দেখা করার সময় পায় না! কিছু নিয়ে আসাতো দুরের কথা! হা হা হা…

      যাই হোক, বন্ধু ছাড়া বাঁচা মুস্কিল। আমি মগবাজার, দিলুরোড, বেইলী রোড়ে এখনো আড্ডা দেই। সেখানে এখনো আমার কিছু পেয়ারে বন্ধু আছে।

      আপনার বন্ধুটা এখন কোথায়?

      শুভেচ্ছা।

      Like

  2. Cobi gulo dekeh valo laglo…adda dite cai…!

    Like

    • ধন্যবাদ রেদোয়ান ভাই।
      স্কুলের বন্ধুরা এখনো যখন তুই তুই করে কথা বলে শুনে বেশ মজা পাই।
      হা, একটা আড্ডা হয়ে যেতে পারে। আশা করি সামনে কোন একদিন আমাদের দেখা হয়েই যাবে।

      মালিবাগ, মৌছাক, বেইলীরোডে এলে আমাকে একটা ফোন দিতে পারেন ০১৯১১৩৮০৭২৮। আমি আড্ডা পছন্দ করি।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  3. Yes i hope so… my residnce at Mirpur-6, and 01814981845

    Like

  4. পিংব্যাকঃ আড্ডাঃ কমলাপুরের ইফতার ২০১৪ইং (চেনামুখ) | রান্নাঘর (গল্প ও রান্না)

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s