Gallery

রেসিপিঃ মিক্স সবজি (ইফতারের জন্য)


ইফতারে আমরা বেশী খাবার খাই না বা খেতে চাই না। সারা বছর যেভাবে চলে সেভাবেই। নাস্তার বদলে ইফতার এটাই আমার কাছে চিন্তা হয়। ইফতার এবং সেহরি নিয়ে আমার অভিজ্ঞতা বেশ ভাল চলে না। আমি প্রবাসে এবং ব্যচেলর লাইফে ইফতার এবং সেহরি নিয়ে যে কষ্ট পেয়েছি, তা নিয়ে লিখলে হয়ত একটা ‘কান্নার বই’ হয়ে যাবে। কত দিন ইফতারেও কিছু খাই নাই, আবার সেহরিতেও কিছু খাই নাই। এটা প্রবাস জীবন এবং ব্যচেলর লাইফে (মেসে/হোটেলে) বেশী হয়েছে। কাজে কাজে রোজা আসলেই আমার সেই সব কথা মনে পড়ে যায়। এখনো যে ভাল আছি, সেটাও না। চাকুরীতেও ইফতার নিয়ে অনেক সমস্যা হয়!

অনেকে হয়ত বলতে পারেন, কেন এমন হয়। হা, হাতের কাছে খাবার থাকলেও অনেক সময় খেতে পারা যায় না, হয় টাকার অভাবে নতুবা সন্মানের ভয়ে নতুবা অন্য কিছু। প্রবাসে থাকতে রান্না না জানার কারনে সাধারন খাবার জুটাতেই সব সময় ভয়ে থাকতাম! ইন্ডিয়ান হোটেলে কত খাওয়া যায়। হোটেলে খাবার খেতে টাকাও লাগে বেশী এমন অবস্থায় হোটেলে ইফতার না করে সামান্য কিছু কিনে বাসায় বসে থাকতাম। এদিকে মসজিদে ইফতারের জন্য যেতেও ইচ্ছা হত না, কেহ দেখে ফেলবে? ফ্রী ইফতার খেতে আসছি, এটা অন্যকেহ পারলেও আমি পারি নাই কোন দিন। না খেয়ে থাকা সম্ভব আমার পক্ষে কিন্তু খাবারের জন্য ছোট (কখনো বিবেকের কাছে) হতে পারি নাই কোন দিন।

যাই হোক, ব্যচেলরদের জন্যও এই সমস্যা। আত্মীয় কারো বাসায় ইফতারে যাওয়াও বেশ মুস্কিল, ভাব্বে ফ্রী ইফতার করতে এসেছে। তা ছাড়া আজকাল সবাই কেমন আছে, কি খাচ্ছে কে জানে? অন্যের স্থানে ভাগ বসানো চলে না। তবে ব্যচেলররা মজা পায় কোন পার্টি মার্কা/ সম্মিলনী মার্কা ইফতার অনুষ্ঠান হলে। গর্ব করে যাওয়া যায়, আড্ডা দেয়া যায়। যাই হোক, আজ ফেইসবুকে একটা স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম, রোজায় বেশী কষ্ট পায় প্রবাসী এবং ব্যচেলররা। সবাই আমাকে সাপোর্ট করছেন। আপনারা দেখে আসতে পারেন।

আমি ইফতারে বেশী কিছু একদম পছন্দ করি না। ভাল কিছু এবং পুষ্টিকর কিছু। মোটা রুটি এবং সবজি ইফতারে আমার ফেবারেট! সাথে যদি থাকে এক গ্লাস শরবত এবং কয়েকটা খেজুর। ব্যস। আজ আমাদের বাসায় ইফতারে হচ্ছে লুচি এবং সবজি। আর খুচরা হিসাবে আছে শরবত, খেজুর। চলুন আমাদের আজকের মিক্স সব্জিটা আপনাদের দেখিয়ে দেই। লুচিটাও দেখিয়ে দেয়ার ইচ্ছা আছে।

উপকরনঃ
– মিক্স সবজি কেজি খানেক (পটল, কুমড়া, আলু, বেগুন, বরবটি, পেঁপে, লাউ)
– মুগের ডালঃ হাফ কাপ (ভেঁজে ধুয়ে নিতে হবে)
– আদা বাটা ১ টেবিল চামচ
– জিরা বাটাঃ এক চা চামচ
– হলুদঃ এক চা চামচ
– পাঁচ ফোড়নঃ আদা চা চামচ
– শুকনা মরিচঃ পাচ/ছয়টা
– চিনিঃ ১ চা চামচ
– লবন
– তেল (হাফ কাপের কম)
– ধনিয়া পাতার কুচি
– কাঁচা মরিচ কয়েকটা
– পানি

প্রনালীঃ

ছবি ১


ছবি ২


ছবি ৩


ছবি ৪


ছবি ৫


ছবি ৬


ছবি ৭


ছবি ৮


ছবি ৯


ছবি ১০


ছবি ১১


ছবি ১২


ছবি ১৩

সবাইকে শুভেচ্ছা।

Advertisements

13 responses to “রেসিপিঃ মিক্স সবজি (ইফতারের জন্য)

  1. ভালো লাগলো। সহজ, সাধারন ইফতার আমারও পছন্দ। ইফতারের সময় মনে পড়ে আমাদের প্রিয় নবীজী(সাঃ) ইফতারে কখনো শুধু পানি পান করেছেন, কখনো মাত্র একটি খেজুর।

    Like

  2. vaijan, sokalle ase apnar post ta dekhe….ROJA halka hoye gelo( karon jive pani ase gese)… ha ha..!

    Like

  3. ইফতারীতে আমাদের বাসায় কেউ খাবেন না সবজি আর লুচি । এটা রোজার পরে নাস্তা হিসাবে করা যাবে । বরাবরই নরম খিচুড়ি আর ছোলা / মটর ভুনা / সাথে আলুনি ।

    Like

  4. ভাইয়া, সবার শেষে সব্জি-টা ঘুঁটে দেয়ার আলাদা কোন সুবিধা/ কারন আছে কি?

    Like

  5. ইফতারে বেশী ভাজি ভুজি এড়িয়ে চলাই ভাল। আমিও আপনার মত চিন্তা করছি।

    Like

  6. পিংব্যাকঃ এক নজরে সব পোষ্ট (https://udrajirannaghor.wordpress.com) | BD GOOD FOOD

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s