Gallery

রেসিপিঃ ডেউয়া ভর্তা


দিন দুই আগে নিজ হাতে ডেউয়া ফলের ভর্তা খেলাম। আজ ফেইসবুকে দেখলাম জনপ্রিয় ব্লগার আরজু পনি এই ডেউয়ার ছবি দিয়ে লিখেছেন “শহরের যান্ত্রিকতায় ফার্মের মুরগীর মতো বেড়ে উঠা পোলাপাইন গুলাকি আদৌ জানে আমাদের শৈশব কতো রঙিন ছিল! ডেওয়া/বত্তা নামের এই দেশী ফলটা কয়জনই বা চিনে!”  বোন  আরজু পনি ঠিক বলেছেন। আমাদের ছেলে মেয়েরা কি আজ কাল আর এই সকল ফল খেতে চায়? তারা ফলের নাম জানে না এবং খেতেও চায় না। আমি এই সকল ফল পেলে মাঝে মাঝে কিনি তবে এবারের ডেউয়া এসেছে আখাউড়া থেকে!

আমার পরিস্কার মনে আছে দুপুরের আগে আমার আম্মা এই ডেউয়ার দিনে ডেউয়া দিয়ে এক প্রকারের ভর্তা বানাতেন। আমরা ছোট থাকাতে খেতে চাইতাম না, তবুও কখনো কখনো মুখে দিতাম। সেই স্বাদ এখনো মুখে লেগে আছে! শুধু পোড়া মরিচ এবং লবন দিয়ে মেখে সেই ভর্তা তৈরী হত। আমিও সেইভাবেই বানিয়েছি। চলুন কথা না বলে দেখে ফেলি। রেসিপি প্রিয় পাঠক/পাঠিকাদের জিবে জল এলে আমি দায়ী নই!

উপকরনঃ
– গাছ পাকা কয়েকটা ডেউয়া
– শুকনা মরিচ কয়েকটা (ঝাল বুঝে)
– লবনঃ পরিমান মত

প্রনালীঃ

ছবিঃ বোন আরজু পনি। ডেউয়ার সৌন্দর্য্য বলে বুঝানো যাবে না।


কয়েকটা শুকনা মরিচ টেলে নিন।


ডেউয়া গুলো পরিস্কার করে নিন।


ডেউয়া গুলো মেখে নিন।


শুকনা মরিচ গুলো এবং লবন ডলে গুড়া করে নিন।


ডেউয়াতে মরিচ ও লবন দিয়ে দিন এবং ভাল করে মেখে নিন। লবন এবং স্বাদ দেখে নিন। লাগলে দিন, মরিচ কম হলে আবারো দিতে পারেন।


ব্যস হয়ে গেল ডেউয়া ভর্তা।


আশে পাশের প্রতিবেশীদের না দিয়ে কি এমন ভর্তা খাওয়া যায়! এটা আমাদের এখানকার রেওয়াজ! একটু ভিন্ন কিছু হলেই বিতরন চলবেই।

বি দ্রঃ আমাদের ডেউয়া আখাউড়া থেকে এসেছিল এবং ভুলে ড্রীপ ফ্রীজে (আখাউড়ায়) এক রাত রাখা হয়েছিল বলে আমি সেই স্বাদ পাই নাই! আপনারা পাকা ডেউয়া দিয়ে এভাবে বানিয়ে খেয়ে দেখতে পারেন এবং গরমের দিনে বেলা ১১/১২ টার দিকে খেয়ে দেখবেন! ভীষন ভাল লাগবে।

Advertisements

14 responses to “রেসিপিঃ ডেউয়া ভর্তা

  1. দারুন। কয়েকদিন আগেই খেলাম। আমার বাবা খুব পছন্দ করে এই ফলটা। যদিও আমার অতটা ভালো লাগে না। তবু দেশি ফল কে সুন্দর ভাবে তুলে ধরার জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

    Like

  2. viea, ami ai fol ta khagrachori tay khaya silam.oi jaygay ai fol ta k bolay “BON KATHAL”.fol ta akta midium khathal ar 2 vhag ar 1 vhag hobay. kosh gula lichhi size ar hobay. khub basi tok o na, misti o na. salt, chilli diya khaya silam. khub valo lagasilo.5 yrs agar kotha. akhon o monay porlay onak valo lagay…

    Like

  3. অসাধারণ পোস্ট। আমি আজকে ব্লগে আমার পোস্টে একটা কমেন্টের জবাবে আপনার এই রেসিপি দিয়েছি।
    নিজের নাম দেখে লজ্জাই লাগছে। সাথে কৃতজ্ঞতাতো অবশ্যই।।

    Like

    • ধন্যবাদ বোন।
      আপনি উত্তর দিয়েছেন দেখে ভাল লাগল। দুই দিনের দুনিয়া! আপনার ছবি না দেখলে হয়ত এই রেসিপি আমি দিতাম না। তাই কৃতিত্ব আপনার পাওনা থাকে। আপনার ছবি আমাদের রেসিপি দিতে উৎসাহিত করেছে।

      যাই হোক, আপনি আমাকে না চিনলেও আমি আপনাকে সামু থেকে চিনে থাকি, আপনার লেখা পড়ি। সামুর এক অনুষ্ঠানে আমি আপনাকে দেখে ছিলাম। সামুতে আমি আছি, তবে এখন সময়াভাবে নিয়মিত লেখা হয় না। রেসিপি সাইট চালাতে সব সময় দিয়ে দিচ্ছি।

      সাইট ফ্লোলো করেছেন দেখে আরো খুশি হলাম।
      শুভেচ্ছা। ভাল থাকুন, মাঝে মাঝে আশা করি দেখে যাবেন।

      Like

  4. এটাকে ডেউয়া বলে? আমরা এটাকে বুনো কাঁঠাল বলি।

    Like

  5. পিংব্যাকঃ এক নজরে সব পোষ্ট (https://udrajirannaghor.wordpress.com) | BD GOOD FOOD

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s