Gallery

রেসিপিঃ চিংড়ি ভুনা (ঝটপট উৎসাহমূলক রান্না)


রাতে বাসায় ফিরলেন। ক্ষিদেয় পেট চো চোঁ  করছে। হাতের কাছে তেমন কিছু নেই। ফ্রীজ খুলে কিছু চিংড়ি মাছ পেলেন, এখন কি করবেন? এই পরিস্থিতি হলে আমি মনে করি মাত্র বিশ মিনিটেই চিংড়ি দিয়ে একটা কিছু করে গরম ভাত নিয়ে খাবার টেবিলে বসে মজা করে পেট পূজা করতে পারেন।

চলুন কথা না বলে রেসিপি দেখে ফেলি। আমার হাতেও সময় নেই। এক চুলায় ভাত বসিয়ে দিন, অন্য চুলায় চিংড়ি কারি করুন। ঝটপট রান্না এটা, যারা রান্না জানেন না তাদের জন্য এটা একটা উৎসাহ মুলক রান্না। একদিন শুধু সাহস করে রান্না করে ফেলুন দেখুন কেমন মজা পান। নিজের রান্না করা খাবার খেলে মন প্রান কেমন করে তা বুঝতেও পারবেন।

উপকরন ও প্রনালীঃ

চিংড়ি মাছ গুলো ধুয়ে পরিস্কার করে নিন। কড়াইতে তেল গরম করে সামান্য লবন যোগে একটা পেঁয়াজ কুচি ও চিংড়ি গুলো ভাঁজুন। থাকলে কয়েকটা কাঁচা মরিচ দিন। হলদেটে ভাব নিয়ে আসুন।


এবার হাফ কাপ পানি দিয়ে কষান।


এবার সামান্য হলুদ গুড়া এবং সামান্য মরিচ গুড়া দিন (ঝাল বুঝে)।


ভাল করে খুন্তি দিয়ে নাড়ান।


দেখেই প্রান ভরে যায়।


কিছুক্ষন (মিনিট ১০) ঢাকনা দিয়ে কষান।


ফাইন্যাল লবন দেখুন।


থাকলে কিছু ধনিয়া পাতার কুচি দিন।


ব্যস, পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত। (মাত্র ২০ মিনিটেই এই রান্না করা হয়েছে।) অন্য চুলায় নিশ্চয় ভাত রান্না হয়ে গেছে। বসে পড়ুন।

আশা করি আপনারাও এই রান্না করতে পারবেন। যারা এখনো রান্না শুরু করছেন না, তাদের অনুরোধ করছি এই রান্না দিয়েই শুরু করুন। কে জানে, আপনিও একদিন হয়ে যেতে পারেন, সেরা রান্নাকারী। আপনার হাতের যাদুতে আপনার চার পাশের সবাই মুগ্ধ হবে।

শুভ হোক আমাদের জীবন।

27 responses to “রেসিপিঃ চিংড়ি ভুনা (ঝটপট উৎসাহমূলক রান্না)

  1. ai poddhotite amio ranna kori majhe majhe…khub e mojadar ekta ranna.

    Like

  2. তামিম (বাংলার মানুষ)

    রান্না করতে গেলে আম্মু, কাকা, বাবা বকা দিবে 😦 ।

    Like

  3. অসাধারণ এবং খুব সহজ রান্না। তাই সপ্তাহে 2/3 দিন থাকে
    ধন্যবাদ ভাইয়া, সহজ সহজ রেসিপি দিয়ে আমাদেরকে রেস্টুরেন্টের খাবার থেকে বাঁচানোর জন্য।

    Like

    • ধন্যবাদ মানিক ভাই।
      আসলে আমার চেষ্টাই হচ্ছে আমাদের প্রবাসী ভাই/বোনদের রান্নায় হেল্প করা, আমি নিজেও প্রবাসী ছিলাম এবং আমি প্রবাসের কষ্ট বুঝি এবং সে জন্য আমি সহজ ও সাধারন রান্না গুলোই দিতে চেষ্টা করি। কঠিন রান্না গুলো আমিও শিখছি।
      শুভেচ্ছা।

      Like

  4. ফারহা শারমিন

    ভাইয়া রেসিপি শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ । এর পর কু‍ঁচো চিংড়ির নতুন রেসিপি দিলে আমার জন্য খুবই উপকার হয়, (কুমড়া, লাউ বা কচুর লতির সাথে মিক্স না), আমার ফ্রিজে কিছু ছোট চিংড়ি পড়ে আছে অনেক দিন থেকে, কিভাবে রান্না করব বুঝতে পারছি না তাই রান্না করা হচ্ছে না।

    Like

    • ধন্যবাদ বোন। এটা আপনার প্রথম কমেন্ট বলে মনে হচ্ছে। শুভেচ্ছা।
      ১। কুচো চিংড়ি দিয়ে ভর্তা বেশ ভাল হবে। রেসিপিতে আছে।
      ২। কুচো চিংড়ি দিয়ে বড়াও বানাতে পারবেন। পেঁয়াজুর মত করে। চিংড়ি গুলোকে কাঁচা বেঁটে নিয়ে পেঁয়াজ কুচি, কাঁচা মরিচ কুচি, ধনে পাতা কুচি, সামান্য লবন, হলুদ গুড়া, মরিচ গুড়া ও সামান্য চালের গুড়া দিয়ে মেখে পেঁয়াজুর মত করে তেলে ভেঁজে নিন। গরম ভাতের সাথে ভাল লাগবে।
      ধন্যবাদ আবারো। আশা করি মাঝে মাঝে এসে দেখে যাবেন।

      Like

      • ফারহা শারমিন

        ২য় কমেন্ট ভাইয়া। এর আগে রেসিপি: ঢেঁড়স রান্না (সাধারন এবং সহজ) তে কমেন্ট করেছিলাম Farha হিসেবে তবে আপনার ব্লগের নিয়মিত পাঠক অনেক আগে থেকে। পরামর্শের জন্য ধন্যবাদ। কাল কুচো চিংড়ির বড়া বানানোর চেষ্টা করবো।

        Like

    • বোন ফারহা শারমিন, কুচো চিংড়ী বেশী করে পেঁয়াজ দিয়ে ভুনা, বেগুন ছোট ছোট স্কয়ার কাট করে কেটে ভাজি করে নামানোর আগে কুচো চিংড়ী দিয়ে ২ মিনিট ঢেকে রেখে ভাজা জিরার গুড়ো ছিটিয়ে নামিয়ে খেয়ে দেখতে পারেন।
      ঝিঙ্গা দিয়ে কুচো চিংড়ীও দারুন লাগে। আর ভর্তা তো অসাধারন!

      Like

      • ধন্যবাদ রান্নাতো বোন। আশা করি বোন ফারহা শারমিনের কাজে লাগবে। ঘরে কিছু পড়ে থাকা এবং সেটা কাজে না লাগানো বেশ কষ্টের, অনেক সময় তা ফেলে দিতেও হয়। শুভেচ্ছা।

        Like

      • ধন্যবাদ সুরঞ্জনা আপা, আপনার এই রেসিপিগুলো ট্রাই করবো শিঘ্রই। আমি ও আপনার রান্নার অনেক বড় ভক্ত। সাহাদাত উদরাজী ভাইয়ার ব্লগ পড়ে আপনার ব্লগের সন্ধান পাই (এই জন্য ভাইয়াকে ও ধন্যবাদ ) । আপনার ব্লগ ও সামহ্যোয়ার ইন ব্লগে আপনার সব লেখা পড়ে শেষ করে ফেলেছি। কাল আপনার দেয়া রেসিপি: গ্রেট করা চালকুমড়া কালজিরা দিয়ে রান্না করেছিলম, ভালোই হয়েছিল।

        Like

        • সুরঞ্জনা আপা রান্নার ওস্তাদ। যা কিছু দেবেন, তাই দিয়েই আপা একটা না একটা রান্না করতে পারবেন। আমি আপার রান্নার একজন ভক্ত। রান্নার রং আর চোহারাই বলে দেয়। রান্না নিয়ে আপা বেশি এক্সপেরিমেন্ট করে থাকেন।

          ধন্যবাদ বোন ফারহা।

          Like

          • সুরঞ্জনা আপার রান্না কোথায় দেখতে পাব?

            Like

            • ধন্যবাদ বোন,
              আপা এই লাইনের মাষ্টার। আপার রান্নার অনেক অনেক রেসিপি আছে, নানান বাংলা ব্লগে। আপাকে আমি অনেকবার বলেছি, সাজিয়ে সব রেসিপি গুলো একটা জায়গায় করতে, তিনি তা করতে চান না। ‘সুরঞ্জনা’ লিখে গুগুলে সার্চ দিয়ে দেখতে পারেন।

              এ ছাড়া ওয়ার্ডপ্রেস এ একটা ব্লগ আছে সেটাও দেখতে পারেন।
              (লিঙ্ক খুঁজে দিচ্ছি, তিনি আপডেট করেন না বলে ফীডে আসে না)

              শুভেচ্ছা।

              Like

  5. ভাইয়া আমি অনেক দিন আগেই সামু ব্লগ এ আপনার একটি রান্নার লিংক দেখেছিলাম। পরে আর খুঁজে পাইনি কারন আমার ব্লগ একাউন্ট নেই। আবার ২ দিন আগে লিংক পেলাম যেন কোথা থেকে। এই ২ দিন এ আমি আপনার ব্লগ মোটামুটি পুরো পরে ফেলেছি। প্রায় সব কটা রেসিপি পরে ফেলেছি আর সামনের উইকেন্ড এ ৪ টা আইটেম রান্না করবো বলে ঠিক ও করে ফেলেছি। আমি এখানে আসার পর রান্না শিখছি। আপনার ব্লগ দেখার পর মনে হল আরও আগে দেখলে আরও ভাল করে শিখতে পারতাম। আমার আম্মুর কাছ থেকে রান্না শিখা হয় নি। ভাবিনি কখনো একা থাকতে হবে, রান্না করে খেতে হবে । এখন পিএইচডি করার সাথে সাথে রান্না বান্না ও আমার প্যাশন হয়ে গেছে । দোয়া করবেন ।

    Like

    • ধন্যবাদ বোন,
      আপনার কমেন্ট পেয়ে আমাদের চেষ্টা সার্থক বলে মনে করছি। আমাদের রেসিপি লিখার উদ্দেশ্য আজ পেয়েছি বলে মনে করছি। আমাদের টার্গেট হচ্ছেন আপনাদের মত রান্না প্রিয় মানুষেরা। এক সময় আমি প্রবাসে ছিলাম বলে আমি জানি রান্না না জানলে কত কষ্ট হয়। রান্না জানলে জীবন অনেক সুন্দর হয়, ভাল থাকা যায় (টাকাও বাঁচে)। আপনি আমাদের ব্লগে এসেছেন বলে আমরা খুশি হলাম। তা চারটে আইটেম কি কি রান্না করলেন? কেমন হয়েছিল? রান্না জানলে যেমন ভাল খাবার খাওয়া যায়, লেখা পড়াও মন দেয়া যায়, বন্ধুদের কাছেও সন্মান পাওয়া যায়। আপনার জন্য আমাদের দোয়া থাকল। আশা করি আমাদের মাঝে মাঝে দেখে যাবেন। শুভেচ্ছা।

      Like

  6. আমি তাহমিনা ইসলাম সুবর্না। উপরের মন্তব্য টি আমার । কিন্তু নাম পরিচয় সহ মন্তব্য করার জন্য কি করতে হবে ? ধন্যবাদ।

    Like

    • ধন্যবাদ বোন তাহমিনা ইসলাম সুবর্না। আপনি প্রথমে আমাদের ব্লগের ফ্ললোয়ার হয়ে পড়ুন (কোনায় ইমেইল দিয়ে রেজিঃ হয়ে যান। রেসিপি পোষ্টের সাথে সাথে জানতে পারবেন। আর কমেন্ট করার জন্য প্রথমে আপনার নাম, ইমেল (গোপন থাকে) লিখে তার পর কমেন্ট লাইনে গিয়ে কমেন্ট করুন। এছাড়া আপনি ওয়ার্ডপ্রেস এ ব্লগ খুলেও কমেন্ট করতে পারেন।

      প্রতিটা রেসিপির নিচে লক্ষ্য করুন। নাম, ইমেইল একবার লিখলে অটো আসতে থাকবে।

      আপনার জন্য আমাদের ভালবাসা থাকল। রান্নায় আপনার আগ্রহ দেখে আমরা অনেক খুশি হলাম। আশা করি আপনি আমাদের সাথে থাকবেন, তবে পড়াশুনা সবার আগে।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  7. তাহমিনা ইসলাম সুবর্ণা

    ধন্যবাদ ভাইয়া।আমার ছুটি থাকে শনি আর রবিবার। আমি এই ২ দিন রান্না করতে পারি। আমি বাদামী মাংস, হালিম, সুরমা ফিশ ফ্রাই আর মুরগী খোবানী রান্না করবো ইনশাআল্লাহ। আপনাকে জানাব কেমন হোলো ।

    Like

  8. রান্নাতো ভাই, চিংড়ী মাছ বেশী জ্বাল দিলে শক্ত হয়ে যায়। মশলা ৫ মিনিট কষিয়ে মাছ দিয়ে ঝোল দিয়ে ঝোলটা ফুটে গেলেই নামিয়ে নিলে চিংড়ী নরম মোলায়েম থাকবে।

    Like

  9. Chingrir borar kotha shune jive pani chole elo,amar ammu often koren.tobe same system e ammu kachki macher borao banan.ar ete chaler gura na diye moshur dal bata den.thank you

    Shuveccha

    Like

    • ধন্যবাদ ভাতিজা।
      হ্যাঁ, তোমার আম্মুকে শুভেচ্ছা। তোমার কমেন্ট দেখে বুঝা যায়, তিনি তোমাদের জন্য বেশ মজার মজার রান্না করে থাকেন।
      হ্যাঁ, জিবে জল আসার মতই খাবারের নাম। চালের গুড়া না থাকলে অনেকে মুশরীর ডাল বাটা ব্যবহার করেন।
      শুভেচ্ছা।

      Like

  10. পিংব্যাকঃ এক নজরে সব পোষ্ট (https://udrajirannaghor.wordpress.com) | BD GOOD FOOD

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s