Gallery

ডিম বেগুনের যুগলবন্দী! রান্নাতো ভাই সাহাদত উদরাজী ভাইএর জন্মদিনের উপহার! (লেখকঃ সুরঞ্জনা আপা)


(আমার রান্নাতো আপাকে আপনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেবার কিছু নেই। তিনি নেটে একাই একশত, জুড়ি মেলা ভার। আমি সবার সামনে স্বীকার করি, তিনি প্রথম দিকে আমাকে নেটে উৎসাহ না দিলে আমি হয়ত রেসিপি লিখতে পারতাম না। এই জন্য আমি কৃতজ্ঞ। আমার জন্মদিনে তিনি তার নিজস্ব ব্লগে আমাকে উইস করেছেন, তা আমি এখানে তুলে নিয়ে আসলাম। আপনাদের উনার রান্নার ব্লগ সুরঞ্জনার উন্দাল দেখে আসার আমন্ত্রন জানাচ্ছি, সেখানে অনেক মজার রেসিপি আছে এবং আসছে।)

জন্মদিনের উপহারে ডিম, বেগুন! নিশ্চয় অনেকেই কপাল কুচকে ফেলছেন! আমি খুব অসুস্থ্য! যখন মাথা একটু খাড়া করতে পারি তখনই ব্লগ, ফেসবুকে একটু ঢু মারি। আজ ঢু মারতে গিয়েই চোখে পড়লো যে আজ আমার প্রিয় ছোট ভাইটির জন্মদিন। বেঁচে থাকো বাবা ফেসবুক! তোমার কল্যানে চরম ভুলোমনাদেরও আজকাল বন্ধু-বান্ধব, ভাই-বোনদের জন্মদিন মনে পড়বে। রান্নাতো ভাইএর প্রিয় সব্জীর মধ্যে বেগুনও আছে। আর ডিম দিয়ে কি ভাবে বিভিন্ন আইটেম রান্না করা যায় সেটা নিয়েও তার এক্সপেরিমেন্টের শেষ নেই। তাই ডিম বেগুনের যুগলবন্দী রান্নাতো ভাইএর জন্য।

এখন দেখে নেয়া যাক কি করে রান্নাটা করেছি। ডিম ৪টা, বেগুন ২টি, ১ চা-চামচ হলুদ, ১ চা-চামচ মরিচ, আদা বাটা ১-চা-চামচ, রসুনবাটা ১চা-চামচ, জিরা ১চা-চামচ, এলাচ ২টি গুড়ো করা, পিঁয়াজ কুচি ১ কাপ, তেল, লবন পরিমান মত।

ডিম সিদ্ধ চুলায় বসিয়ে বেগুন ২টা ডুমো ডুমো করে কেটে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। ডিম সেদ্ধ হলে খোসার একটি টুকরো দিয়ে ডিমের গায়ে লম্বালম্বি ৩/৪টি আঁচড় দিয়ে দিন। ডিমে হলুদ, মরিচ, লবন মাখিয়ে হালকা করে ভেজে তুলুন। বেশী ভাজলে উপরের চামড়া শক্ত হয়ে যায়। না ভাজলেও চলে তবে এই তরকারীতে দেখার সুন্দরের জন্য আমি ভেজেছি। ডিম ভাজার পর ঐ মসলার মাঝে বেগুনের টুকরোগুলো মাখিয়ে নিন। অল্প একটু লবন দিতে পারেন। এখন বেগুনের টুকরোগুলোও ভেজে তুলুন। একটি কড়াই চুলায় দিন। পরিমান মত তেল দিন। ( তেল কম ব্যাবহার করার চেষ্টা করবেন) তেল গরম হলে পিঁয়াজকুচি ও লবন দিয়ে ভাজুন। হালকা বাদামী রঙ হলে ১ কাপ পানি দিয়ে বাকি সব মসলা দিয়ে ভালো করে কষান। প্রয়োজনে আরো পানি দিয়ে কষান। কষান হলে ডিম ও বেগুন ভাজা দিয়ে এমন আন্দাজে পানি দিন যাতে নামানোর সময় ঝোলটা মাখা মাখা থাকে। তরকারী নামানোর আগে এক চিমটি ভাজা জিরার গুড়ো উপরে ছিটিয়ে নামিয়ে ভাত/রুটির সাথে পরিবেশন করুন।

Image

14 responses to “ডিম বেগুনের যুগলবন্দী! রান্নাতো ভাই সাহাদত উদরাজী ভাইএর জন্মদিনের উপহার! (লেখকঃ সুরঞ্জনা আপা)

  1. ধন্যবাদ রান্নাতো বোন।
    অপূর্ব। ছবি দেখে এখুনি রান্না করতে ইচ্ছা হচ্ছে। সব কিছুই হাতের নাগালে আছে। আমার ডিমের আর একটা রান্না বাড়ল। আমি ডিমের রান্না খুজে ফিরছিলাম অনেকদিন।

    আপনার জন্য শুভেচ্ছা সব সময়েই। জন্মদিনের এই সময়ে আমি যদি আপনাকে রান্না করে খাওয়াতে পারতাম।

    আপনি ভাল থাকুন সব সময়। আপনার জন্য দোয়া করি।

    শুভেচ্ছা।

    Like

  2. salam to u all..this recipe is easy n look nice.l never cook egg n begun before….when l watching suronjona apu’s blog, l thing someone still her duck carry recipe in BENGALI RECIPE EXCHANGE group in facebook,her name is jamila hasan. may be it’s her own account ? l don’t know? but jamila hasan use same picture……anjuman

    Like

    • ধন্যবাদ বোন।
      জামিলা হাসান এবং সুরঞ্জনা একজনই! তিনি সিলেটে থাকেন। বাংলা ব্লগ দুনিয়ায় আমার রান্নাতো বোন জামিলা হাসানকে চিনেন না এমন কেহ নাই। তিনি মাঝে মাঝে রেসিপি লিখেন। রেসিপি ছাড়াও উনার অনেক লিখা আছেন। ‘রান্নাতো ভাই’ এই শব্দটা তিনিই প্রথম ব্যবহার করেছেন আমাকে। যারা নিজেরা রান্না করেন তাদের তিনি উৎসাহ দিয়েই যান। আমার জন্যও তিনি তা করেছেন।

      বাংলা ব্লগে রেসিপি লিখা এখনো অনেকে মেনে নেয় না, সুযোগ পেলেই কটু কথা বলে। আর ছেলেরা রেসিপি দিচ্ছে, রান্নাঘরে যাচ্ছে এটা শুনলে তো অনেকের হার্ট বিট বেড়ে যায়! আমার রান্নাতো বোন জামিলা হাসান ওরফে সুরঞ্জনা আপার কমেন্ট দেখলে ওরা আবার দূরে সরে যায়! হা হা হা…। এমন মারা মারবো যে, হাড্ডিগুড্ডি ভেঙ্গে ফেলবে! হা হা হা…

      আপনাকেও ধন্যবাদ বোন। আপনিও ভাল থাকুন। আমাদের দেখে যেতে ভুলবেন না।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  3. ya ALLAH…..l love her comments on ur post….she rocks ……
    my husbend is very good cook because he leaves Bangladesh long time …..we still think kitchen is women’s department in Bangladesh…that’s
    wrong …all big chafe in the world r man….l love ur cooking……keep up the good work…..sorry to suronjona apu again…..l will say sorry to jamila apu on her face book too….:)….. anjuman (she have lovely family picture in face book)

    Like

    • বোন আঞ্জুমান।
      আজকাল কিছুটা দৃষ্টিভঙ্গি বদলাচ্ছে এবং আমরা সেই চেষ্টাই করে যাচ্ছি। আশা করি আমরা সফল হব। এই রেসিপি ব্লগে আমি যত হিট পাই তা থেকে এটা বুঝা যাচ্ছে কিছুটা পরিবর্তন হচ্ছেই।

      বোন জামিলা হাসান এবং সুরঞ্জনা আপা নিয়ে আশা করি আর কোন কনফিউশন নেই। তিনি আমাদের মুরুব্বী। সব চেয়ে তার বড় গুন যা আমার ভাল লাগে, তিনি সত্য বলেন এবং রেসিপি নিয়ে কম্প্রমাইজ নাই।

      সরি বলে আপনি আপনার মহৎ প্রকাশ করলেন। আমরা সবাই খুশি। কিন্তু আপা এটাতে কোন কিছু মনে করবেন না বলে আমি মনে করি।

      আমাদের সাথে থাকুন। শুভেচ্ছা।

      Like

  4. আনজুমান, প্রথমেই তোমার প্রতিবাদের তারিফ করছি। আমার অনুমতি ছাড়া একটি ব্লগে দেখেছি আমার ইলিশ রসুনের লুকোচুরি রেসিপিটি ছবিসহ দেয়া আছে। কিন্তু কোথাও আমার নামের উল্লেখ নেই। ফেসবুকে রান্নাবান্না গ্রুপে রান্নাতো ভাইএর খাবারের ছবি দিয়েছিলো। আমিই প্রথমে সেখানে প্রতিবাদ করি। পরে তারা সাহাদত ভাইএর পোস্টের লিঙ্কের উল্লেখ করে। ফেবুতে তোমার কমেন্টের নিচেই আমার মেয়ে মহুয়া মৌ উত্তর দিয়েছিলো। তোমার স্যরি বলার কিছু নেই। জামিলা আর সুরঞ্জনা যে একই ব্যাক্তি তা তো তোমার জানার কথা নয়।
    পরে আবার আলাপ হবে। ভালো থেকো।

    Like

    • ধন্যবাদ বোন। আমাদের রান্না গুলো চুরি হয়ে যাচ্ছে! হা হা হা… আঞ্জুমান বোন আপনাকে চিন্তে পারে নাই। দুই নামের কারনে! হা হা হা।। আরো নিক থাকলে বলুন! আমরা সবাই জেনে যাই।

      আমি ফেবুতে বলতে গেলে যাই না! তাই অনেক কিছু আমার মিস হয়ে যায়।

      বোন আঞ্জুমান রান্না বেশ পছন্দ করেন, আশা করি ফেইসবুকে চোর পেলেই ধরবেন। হা হা হা।।

      শুভেচ্ছা। শরীরের খবর আশা করি ভাল আছে।

      Like

  5. ভাই, আপনার রেসিপি গুলি আমার খুব ভালো লাগে, ছবি সহ সহজ,সরল ও অত্যন্ত প্রাঞ্জল ভাষায় লেখা. প্রবাসে নিজেদের রান্না করে খেতে হয়. যদি সব রেসিপি গুলি পিডিএফ বই আকারে লিংক দেন যথেষ্ঠ কৃতজ্ঞ থাকব. পিডিএফ লিংক মেইল এ জানাবেন. ধন্যবাদ.

    Like

    • ধন্যবাদ dhnr brother,
      আপনার কমেন্ট দেখা ভাল লাগল। এত রান্না জমিয়ে ফেলেছি যে, কোনটা ছেড়ে কোনটা রাখি।

      তবে সহজ হচ্ছে আপনি যা রান্না করতে চান সেটা বের করে একটা প্রিন্ট নিয়ে রান্নাঘরে প্রবেশ করুন। পরিমান এদিন সেদিন হলেও প্রদ্ধতি ফলো করুন, রান্না হয়ে যাবে।

      পিডিএফ করার কথা মাঝে মাঝে মনে হয় কিন্তু আবার ভাবি এত সময় কোথায় পাই। পেলে অবশ্যই করে ফেলব।

      শুভেচ্ছা আপনাকে। আশা করি আমাদের মাঝে মাঝে এসে দেখে যাবেন।

      Like

  6. thank’s to u both …..

    Like

  7. ধন্যবাদ সাহদাত ভাই এমন আনকমন একটা রান্না শিখানোর জন্য।

    Like

    • ধন্যবাদ মাসুম ভাই। হা, এই রান্নাটা আমি নুতন দেখছি। আলু ডিম ছাড়া যেখানে অন্য কিছু কল্পনা করা যায় না, সেখানে বেগুন দিয়ে ডিম। দেখে বেশ লাগছে, আমি রান্না করে দেখবো।

      শুভেচ্ছা আপনাকেও। আপার রান্নার জুড়ি নেই।

      Like

  8. পিংব্যাকঃ এক নজরে সব পোষ্ট (https://udrajirannaghor.wordpress.com) | BD GOOD FOOD

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s