গ্যালারি

রেসিপিঃ ডিম চপ (না খেলে আর খেলেন কি!)


আজ সকালে ডিম বাজারে গিয়ে তাজ্জব! কোন ডিমের দোকানেই দেশী মুরগী এবং হাঁসের ডিম নেই! কারনে ওরা জানালো, সাপ্লাই নেই। ডিম চপ খাবার যে স্বাধ মনে জেগেছিল, তা উবে যাচ্ছিলো। হাঁসের ডিমে চপ ভাল হয় এবং খেতেও বেশ। তবুও আমার ব্যাটারী বললেন, ইচ্ছা যখন করেছো তখন ফার্মের ডিম নাও। রোজায় কয়েকদিন ইফতারিতে এমন চপ খেয়ে আমি অভিভূত। শিশুরা এই ডিমের চপ খেতে খুব পছন্দ করবে বলে আমি মনে করি।

আপনারা একবার চেষ্টা করে দেখুন। ভাল লাগবেই। বিকালের নাস্তায় এই ডিম চপের তুলনা হয় না।

প্রণালীঃ
১
প্রথমে ডিম সিদ্ব করে নিন, সামান্য লবণ যোগে। (বলার পরো দোকানী একটা ডিম হালকা ফাটা দিয়ে দিয়েছে! সবই কোপাল) ১১০ টাকা ডজনে যদি ফাটা ডিম পড়ে তবে কেমন লাগে বলুন।

১
চপের কাই – হাফ কাপ বেসন, চার চামচ ময়দা, পরিমাণ মত হলুদ গুড়া, মরিচ গুড়া, ধনিয়া গুড়া, সামান্য আদা বাটা, রসুন বাটা ও লবণ মিশিয়ে নিন।

১
পানি দিয়ে গুলো এমন কাই করে নিন। বেশি পাতলা যেন না হয়। এই বেসন কাই দিয়ে বেগুনী, আলুনী সহ আপনার যা খুশি দিয়ে চপ বানাতে পারেন।

১
এবার ডিম গুলো বেসনের কাইতে দিয়ে দিন। ডিম গুলো একটু কুচিয়ে দিতে পারেন।

১
সাথে কয়েকটা মরিচও নিয়ে নিতে পারেন।

১
এবার একটা একটা করে গরম তেলে (ডুবো) ভেজে নিন।

১
মন মত ভেজে প্লেটে তুলে নিন। কিন্তু এভাবে পরিবেশন করবেন না।

১
ধারালো ছুরি দিয়ে মাঝামাঝি কেটে ফেলুন। এবং ডিমের ভিতরে সামান্য বিট লবণ লাগিয়ে দিন।

১
ব্যস পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত। এত মজাদার যে আপনাদের বলে বুঝাতে পারছি কি না, নিজেও বুঝতে পারছি না।

আশা করি বানিয়ে দেখবেন। সবাইকে শুভেচ্ছা।

কৃতজ্ঞতাঃ মানসুরা হোসেন।

(Photobucket to Google)

Advertisements

22 responses to “রেসিপিঃ ডিম চপ (না খেলে আর খেলেন কি!)

  1. আরে, এটা পেলেন কোথায়? আমি/আমরা তো এই ক’দিন আগেই খেলাম এই ডিম ভরা চপ!! দারূন লাগে। আমি তো আবার ডিমের ভক্ত, তার উপরে আবার সেই ডিম চপের ভিতরে। খুব মজা করে খেয়েছিলাম সেদিনের ইফতারী!!
    ঈদের শুভেচ্ছা নিবেন।

    Like

    • ধন্যবাদ হুদা ভাই, আপনার সাথে এখানে আমার মতের চরম মিল হয়ে গেল! রোজায় তিন দিন খেলাম, আমার কাছে অসাধারণ লেগেছে। ঘরে তৈরী যে কোন খাবার অসাধারণ।

      আপনাকেও ঈদের শুভেচ্ছা। ঈদের কয়েকদিন মনে হয় কম্পিউটার এর কাছে থাকতে পারব না।

      Like

  2. পছন্দের খাবার ডিম চপ!
    খুব সহজ আর স্বল্প সময়েই তৈরি করা যায়।
    চমৎকার পোস্টের জন্য ধন্যবাদ অফুরন্ত।

    Like

    • ধন্যবাদ দাইফ ভাই। আমরা অনেকে খালি সিদ্ব ডিম খাই বা খেয়ে থাকি। আমার মনে হয় আর একটু কষ্ট করে এইভাবে ডিমের চপ খাওয়া যেতে পারে! আসলেই বেশ মজার এবং জমে উঠতে পারে।

      শুভেচ্ছা আপনার জন্য। এবার ঈদে কি কি নুতন রান্না করলেন।

      Like

      • শুভেচ্ছা আপনাকেও সাহাদাত ভাই।
        ঈদের দিন রান্না না হলেও ঈদের দু’দিন আগে সয়ামিট ভুনা আর ঈদের দু’দিন পর চটপটি বানাই। আপনার কেমন গেলো ঈদ? আর কি কি রান্না করলেন জানাতে ভুলবেননা কিন্তু।

        Like

        • আরে দাইফ ভাই! রান্না মিলে গেল যে!
          আমি ঈদের কয়েকদিন আগে স্বপ্ন থেকে এক বড় প্যাকেট সয়ামিট কিনেছি। আজ কাল সয়ামিট ভুনা করবো বলে বলে পার করছি! ঈদের দিন আমাদের বাসায় আমার ব্যাটারিও চটপটি বানিয়েছিল, সময়াভাবে সেটা বেকর্ড করতে পারি নাই।

          হাতে প্রায় ২০/২৫টা রেসিপি আছে। সময় কম পাচ্ছি কিছুটা। তবে এবার ঈদে একটা বিরাট কাতলা মাছ কিনেছিলাম, নিজ হাতে সেটার কয়েক পদ রান্না করেছি, একদম একা, উইদাউট এনি হেল্প ফ্ররম এনি বডি! হা হা হা…। সামনে দেখাবো।

          ধনিয়া পাতা পেস্টের চিকেন রান্নাটা আবার করেছিলাম। সবাই খেয়ে তারিফ করেছে।

          অনেক অনেক রেসিপি নিয়ে আসছি সামনে।

          শুভেচ্ছা।

          Like

  3. কেমন আছেন ভাইয়া?
    ওয়াও!! ব্লগে ঢুকেই এমন ডিমের চপ! ভাবা যাই! আচ্ছা ভাইয়া ঘুরে ফিরে আপনি আমার প্রিয় খাবার গুলো লিখে ফেলেন? ওহহো আমি যে রোজা আছি!

    ঈদ মোবারক।

    Like

  4. ঈদের দাওয়াত রইল। আসার অনেক অনেক অনুরোধ করছি। আসছেন তো? ঠিকানা দিয়ে দেব যেদিন আসবেন!

    Like

  5. কতবার যে খেয়েছি তার হিসেবে নেই। 🙂

    Like

  6. আহা ব্রাদার, মারাত্মক রেসিপি দিয়েছেন। আজকে ইফতারে ঝটপট বানিয়ে খেয়েছি। খেয়ে আমি ফিদা হয়ে গেছি। হা হা হা। আবারো ধন্যবাদ।

    Like

  7. পিংব্যাকঃ ইফতারিতে সুস্বাদু ডিমচপ | RupCare:: Bangladesh's First Style, Fashion, Beauty care, Skin care, Hair care, Celebs, Women, Health, Home Decor, Recipes Site

  8. দারুন!

    Like

  9. ফটোগুলা প্লিজ আপডেট করেন…
    http://www.imagebam.com/

    Like

  10. আর কিছু বানাই আর না বানাই এই টা বানামু আমি।
    ধন্যবাদ ভাই।

    Liked by 1 person

    • ধন্যবাদ আশরাফ ভাই।
      ইফতারে ডিম চপ বেশ ভাল লাগে। আমি প্রতি বছর কয়েকবার বানিয়ে থাকি। আশা করছি আপনিও ভাল বানাতে পারবেন। রান্না অভিজ্ঞতার বিষয় যত রান্না করবেন ততই হাত ও মন খুলে যাবে।
      শুভেচ্ছা।

      Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s