গ্যালারি

রেসিপিঃ পৃথিবীর সেরা সহজ শরবত (রূহ আফজা)


পবিত্র রমজান মাস আসলেই যে শরবতের কথা সর্ব প্রথম মনে পড়ে যায় তা হচ্ছে, হামদার্দের ‘রুহ আফজা শরবত’। খুব ছোট বেলা থেকেই ইফতারের সময় এই শরবত দেখে আসছি ইফতারের টেবিলে। সন্ধ্যায় আজানের ধ্বনিতে রোজা ভঙ্গের সময় প্রথম পানীয় হিসাবে এই  হামদার্দের ‘রুহ আফজা শরবত’ আমাদের কাছে একটা জনপ্রিয় নাম ছিলো। বড় হয়ে নিজের সংসারেও ইফতারের এই শরবত রাখতে চেষ্টা করি। ইফতারের এক গ্লাস ঠান্ডা শরবত সত্যি মনে প্রানে এক সজীবতা এনে দেয়। তবে ছোট বেলার নাকে-মুখে লেগে থাকা সেই শরবতের ঘ্রাণ আর এখন পাই না!

সে যাই হোক, আমার মনে হয় এর চেয়ে দুনিয়াতে আর সহজ শরবত হতে পারে না। শুধু ঠাণ্ডা পানিতে গুলিয়ে নেয়া কিংবা পানিতে গুলিয়ে কিছু বরফ ছেড়ে দিলেই হল। যারা হালকা ফ্লেবার চান তারা শুধু একটু চিনি মিশিয়ে নিতে পারেন।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

দিন দিন দাম বেড়েই চলছে! আর কোয়ালিটি কমে যাচ্ছে!


ঠাণ্ডা পানিতে কিংবা গুলিয়ে বরফ কুচি/কিউব দিন।


কেমন রং আপনি চান সেটা আপনি নিজেই নির্ধারন করতে পারেন।


যার যে ভাবে পছন্দ! পরিবারের সবাই পছন্দ করবে এটা আশা করা যায় না। আমাদের পরিবারেরও আমার আম্মা আমাদের জন্য বানাতেন কিন্তু তিনি নিজে পান করতে পছন্দ করতেন না। আর এখন! আমার ব্যাটারীও এই শরবত পছন্দ করেন না! তিনি এর ঘ্রাণ সইতে পারেন না। আমি আর আমার ছেলে খুবই পছন্দ করি, বিশেষ করে ট্যাং বা কৃত্রিম কমলা লেবুর শরবত থেকে এটা আমার কাছে ভাল লাগে! হা হা হা… তবে হাতে বানানো লেবু শরবতই বেশী ভাল লাগে।


জাফরানি রংটা হৃদয়ে দোলা দেয়।


চুমুকেই শান্তি।


আহ…।


শরবত বানিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিলে গ্লাসের গা বেয়ে যে পানি জমে তা দেখেই মন ভরে যায়। এতে অবশ্য একটা পরীক্ষাও হয়ে যায়, বাতাসে কি পরিমাণ জলীয় বাষ্প আছে তা বুঝা যায়!


সারা দিন রোজা রাখার পর এমন সন্ধ্যায় ইফতারে এমন শরবত দেখে নিজকে আজান পর্যন্ত সংযত রাখাও একটা সংযম।


আহ…।


শরবত শুধু মনের ক্লান্তি দূর করে না, শরবত হচ্ছে একটা ভালবাসার নাম!

রেসিপি প্রিয় সকল ভাই বোন বন্ধুদের জানাই রমজানের শুভেচ্ছা। এই সংযমের মাসে আমার চাওয়া, আমরা সবাই যে আরো ভাল মানুষ হয়ে উঠতে পারি।  খোশ আমদেদ মাহে রমজান। আপনারা সবাই ভাল থাকুন।

(ধর্মের ব্যাপারে আমার অভিমত হচ্ছে, পৃথিবীর প্রতিটা ধর্মই হচ্ছে এক একটা সামাজিক শৃংখলা ও জীবনবোধের  নাম। ধর্ম পালনে ব্যক্তি ও সমাজ ভাল থাকে। যে যে ধর্মে জন্মে সেই ধর্ম পালন করাই উচিত। অন্য যে কোন মানুষ বা প্রাণীর জন্য নিজকে প্রতিবন্ধক হিসাবে দাঁড়িয়ে ফেলা কোনমতেই উচিত নয়।)

(PhotoBucket to Google)

Advertisements

46 responses to “রেসিপিঃ পৃথিবীর সেরা সহজ শরবত (রূহ আফজা)

  1. রূহ-আফযার শরবতের প্রধান যে জিনিসটা সেটা হলো, শরীরটা বেশ ঠান্ডা হয়ে যায় আর গরমের সময় ঘামও শুকিয়ে যায়। অনেকেই এটা জানেনা। আর সাথে লেবুর রস দিলেও কথাই নেই। আরেকটা আছে, টক দইয়ের সাথে রূহ-আফযা মিশিয়ে, লেবুর রস. চিনি আর বরফকুচি মেশালে পুরোই বেহেস্তী শরবত তৈরি হয়ে যায়।

    রমযানুল মোবারক প্রিয় সাহাদাদ ভাই।

    Like

    • ধন্যবাদ সাইফ ভাই, আপনাকেও রমজান মাসের মোবারকবাদ জানাই।

      হা, এটা শরীর মনকে একটা বিশেষ শান্তি এনে দেয় বলেই এত জনপ্রিয়। ঘামের ব্যাপারটা আমি লক্ষ করি নাই। জেনে ভাল লাগল।

      রুহ আফজা দিয়ে আরো বেশ মজাদার রেসিপি আছে। আসছে… যদি ইফতারে বাসায় থাকতে পারি তবে আপনাদেরও দেখাতে পারব।

      ভাল থাকুন।

      Like

  2. রান্নাতো ভাই, ফেবুতে রান্নাবান্না নামে একটি গ্রুপ আছে, ওরা দেখি নান রুটির রেসিপির সাথে সব আপনার ছবি ব্যাবহার করেছে। আপনি কি তাদের দিয়েছেন? আমি অবশ্য ছবির নিচে লিখেছি যে এগুলো সব আপনার তোলা ছবি। 😀

    Like

  3. আপনার ফেবু ওয়ালে লিঙ্ক দিয়েছি।

    প্রথম রোজা ভালোই কাটলো আলহামদুলিল্লাহ!

    Like

  4. হুমম, অপেক্ষায় রইলাম।
    রূহ-আফযা দিয়ে আমি বেশ ক’রকমের শরবত তৈরি করতে পারি। তবে আপনারগুলোর ধারে কাছে না যাবারই সম্ভাবনা বেশি। জলদি দেবেন সাহাদাত ভাই।

    Like

  5. পোস্টের প্রথম শব্দের বানানে ‘র’ ফলা লাগিয়ে পবিত্রতার পরিমাণ বাড়িয়ে দিয়েছেন, ওটা কমান। রুহ আফজা শব্দের অর্থ কী জানা থাকলে জানাবেন।

    Like

  6. ঐ পোস্টে শেষ পর্যন্ত আপনার নাম দেয়া হয়েছে।
    আমি ও হুদা ভাই যেভাবে লেগেছিলাম, একেবারে কচ্ছপের কামড়ের মতো। :p

    Like

  7. আহ! রুহ আফজা! চুমুকেই শান্তি! 🙂

    Like

  8. বরাবরের মত মধুর-ভালবাসাময়………।
    শেয়ার দিলাম- http://forum.tarunnobd.com/viewtopic.php?pid=1395#p1395
    ফোরামের অনানুষ্ঠানিক উদ্বোধনে আমরা ক’জন- http://forum.tarunnobd.com/viewtopic.php?id=154

    Like

  9. সরবত!!! এটা না হলে তো ইফতারই চলে না। তবে লেবু মিশিয়ে দিলে একদম অমীয়!! তবে বরফ কুচি দেই না কারণ আমার টাং সিল টা বেশি রাগী, ঠান্ডা করতে গেলে আমাকেই ছাড়ে না। হা হা …

    Like

  10. সারাদিনের রোযা শেষে আমার কাছে লেবুর শরবত অসাধারণ লাগে। বরফ টুকরো মিশিয়ে রুহ আফযার শরবত খেতেও দারুণ লাগে। 🙂

    Like

  11. অনেক ভালো লেগেছে আপনার পুরা ব্লগটি । । ।

    Like

  12. এটি খুব মজাদার

    Like

  13. অনেক ভালো

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s