Gallery

ব্লগার ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের পার্টি থেকে ফিরে…


ব্লগে লিখে লিখে ও কমেন্ট করে করে অনেক বন্ধু বানিয়ে ফেলেছি! শুরুতে ব্লগে নিজের পরিচয় গোপন রাখতাম, কাউকে কাছে আসতে কিংবা নিজেও যেতাম না। ভাবতাম লিখতে আসছি লিখেই যাই। কালের আবর্তে মনে হচ্ছে লিখা লিখির পাশাপাশি কারো সাথে যদি পরিচয় হয় তাতে ক্ষতি কি! আর এই জন্যই আমি সবার কাছে উন্মুক্ত এবং আমি যে সকল ব্লগে লিখি তাতে আমার একটাই নাম বা নিক। ব্লগে লিখি অনেক দিন হয়ে গেল এখনো কোন ব্লগে দুইটা আইডি খুলি নাই কিংবা নিজের নামের বাইরে অন্য কোন নিক বা নাম ব্যবহার করি নাই। এটা আমার গর্বের একটা দিক। কোন কোন ব্লগে আর লিখি না নানান কারনে (আমি ব্যান হয়েছি!) তবুও আর নুতন নিক খুলি নাই। মোটকথা ব্লগে লিখে আমি অনেক অনেক পেয়েছি। আর ব্লগে রেসিপি লিখে আমি যা পেয়েছি তা বলতে গেলে শেষ হবে না! সাগরের পানি কালি হয়ে গেলেও কাহিনী লেখা শেষ হবে না!


যাই হোক, এমনি করে ব্লগে কোথায় কি করে ডাঃ নিয়াজ মাওলা ভাইয়ের সাথে পরিচয়! যিনি ব্লগে ‘ডাক্তারের রোজনামচা’ নামে পরিচিত। প্রথম একটা আড্ডাতেই দেখলাম বিরাট খোলা দিলের মানুষ, জমবে বেশ। আমি নিজেও খোলা মনের মানুষ তাই আর দেরী হল না। এই খোলা দিলের জন্য ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের অনেক অনেক বন্ধু আছে বলে আমার মনে হয়। ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের প্রচেষ্টায় আমরা বারজন মিলে (নাজমুল হুদা, আকাশগঙ্গা, ডাক্তারের রোজনামচা, জুলিয়ান সিদ্দিকী, সাহাদাত উদরাজী, শব্দপুঞ্জ, পাপতাড়ুয়া, নাঈফা চৌধুরী অনামিকা, আরিশ ময়ূখ রিশাদ, আমিন শিমুল, অপাংক্তেয় এবং জ. ই মানিক ) চতুর্মাত্রিক ব্লগে একটা বারোয়ারী উপন্যাস লিখে ফেললাম (সরলরেখা বক্ররেখা) এবং তা বই আকারে গত বইমেলায় বের হয়ে বেশ পাঠক প্রিয়তা পেয়েছে তাও কম ইতিহাস নয়! আমি মনে করি এই বার জায়গার বার জন ব্লগার/লেখক একত্রিত করা সম্ভব হয়েছিল একমাত্র ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের কারনেই। আসলে ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের গুনের কথা বলে শেষ করা যাবে না। এক কথায় – ‘অসাধারণ’।

পরের কথায় আসি, এর পর ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের ব্যক্তিগত ‘সুড়ঙ্গঃ নিয়াজের ভুবন’ ব্লগ পেল ডয়েচে ভেলে ব্লগ প্রতিযোগিতা ২০১২ মনোনয়ন। এবং যথারীতি ‘শ্রেষ্ঠ বাংলা ব্লগ বিভাগে’ প্রথম হলেন! তার লেখায় দেখুন –

জাকির ভাইয়া, শব্দনীড়ে উনি লিখেন ‘ভালোবাসার দেয়াল’ নামে, বর্তমানে সম্ভবত ব্লগারস ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক। একদিন সকালবেলায় উনার কাছ থেকেই প্রথম জানলাম সুড়ঙ্গের মনোনয়নের ব্যাপারটি।

প্রথম দিকে শূন্য দেখতে দেখতে যখন আমি হতাশ প্রায়, লন্ডন থেকে আমাকে ফোন করে আশার বানী শোনালো বন্ধু মনোয়ার, আমার লেখার একজন সমালোচক! ফিনল্যান্ড থেকে বন্ধু হারুন যোগালো শক্তি। দেশে থেকে উৎসাহ দিতে এগিয়ে এলো রাহাত, নাজমুল হীরক, শিহান, নাজমুল বারী, টিউলিপ, পাভেল। আমার নৌকার হাল শক্ত করে এসে ধরলো ফয়েজ, সঙ্গে ছিলো ফয়সাল সিজার, তারেক আনাম, সাইফ আলম জিসান, বনি আমিন, পাপন, চাটিকিয়ান রুমান, রুবেন ভাইয়াসহ অনেকেই।

ভোটের যে সময়টা ছিলো সবচেয়ে বিপদজনক, সেটাকে খুব সুন্দরভাবে অতিক্রম করা হলো শব্দপুঞ্জ (ফয়সল কাদের চৌধুরী) আর জ ই মানিকের দুটি অসাধারণ পোস্টে, আর সর্বত্র আমার নাম ছড়িয়ে দিতে লাগলেন প্রিয় উদরাজী ভাইয়া।

আমি যেদিকেই তাকাই, দেখতে পেলাম- চতুর্মাত্রিকের নাজমুল হুদা ভাইয়া, সুরঞ্জনা আপু, বাপী হাসান ভাইয়া, আব্দুর রাজ্জাক শিপন ভাই, আব্দুল করিম, আকাশগঙ্গা (পলাশ), নয়ন, নুশেরা আপু, নাঈফা আপু, জয় কবির ভাইয়া, সাদাকালো৯২ ভাইয়া, আচার্যদা, জুলিয়ান সিদ্দিকি ভাইয়া, অঙ্ক ভাইয়া, রোবট নানা (আমিও সবার মতো নানা বলে ডাকলাম), বাতিঘর, একুয়া রেজিয়া, দারুচিনি লবঙ্গসহ অনেক চতুরকে, পাশে পেলাম মুক্তব্লগের কারিম ভাই, দেবুদা (দেবদাস), নাজমুল আহসান মুক্ত, মুকিত ভাই, পুনপুনিসহ অনেক মুক্ত ব্লগারকে, সাড়া দিলেন শব্দনীড়ের ডাঃ দাউদ ভাইয়া, বিষণ্ণময়ী আপু, আজমান আন্দালিব, সাইক্লোন ভাইয়া, রাজিন, রেজওয়ান তানিম ভাইসহ অনেক শব্দকল্পদ্রুম, এগিয়ে এলেন অন্তরনামার কবির য়াহমদ ভাইয়া, কবি ভাইয়াসহ অনেক অন্তরমনা, উৎসাহ দিলেন নাগরিক ব্লগের ডাঃ আতিক ভাইয়া, রিপন মজুমদার ভাইয়া, অধরা, নুর নবী দুলাল ভাইয়া, ছায়া মানবসহ অনেক নাগরিক, অনুপ্রেরণা দিলেন সবার ব্লগের ইমেল, আবির, স্বপ্নবাজসহ অনেক সবাক, ভরসা দিলেন আমার ব্লগের ডাক্তার আইজুদ্দিন, সানজিদা যূথী, ইমরান আহমেদসহ অনেক ব্লগার। শুভেচ্ছা জানাতে এগিয়ে এলেন সামহোয়ার ইনের আসিফ মহিউদ্দিন ভাইয়া আর বিডিনিউজ২৪.কমের আবু সুফিয়ান ভাইয়া।

গনহারে ভোট দিয়ে সমর্থন জানালো জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের ছাত্র/ছাত্রী/ইন্টার্ণ ডাক্তার/ডাক্তার আর খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজের আমার প্রিয় ছাত্ররা।

সবার কাছ থেকে এই এতো এতো ভালোবাসা পেয়ে আমি সবশেষে বিহ্ববল হয়ে পড়েছিলাম আমার সবথেকে প্রিয় বন্ধু, প্রিয় মানুষ, প্রিয় সাথী, আমার অর্ধাঙ্গীনি লিসার অসাধারণ সাপোর্ট পেয়ে। এই সবকিছুর জন্যই আজ “সুড়ঙ্গঃ নিয়াজের ভুবন” বাংলা ভাষার শ্রেষ্ঠ ব্লগ। সবার এই ভালোবাসা আমি সইবো কেমনে?

এবার আর আমাদের আনন্দ আর কে দেখে! আমরা তাকে ধরলাম আমাদের পার্টি চাই! শুধু ভালবাসাতে কি আর মন ভরে! পেটে দানা না পড়লে কি আর মুখ খুলে! খোলা মনের মানুষ ডাঃ নিয়াজ ভাই এখানেও না করেন নাই। আমাদেরকে ডাকলেন এক বিকাল সন্ধ্যায়, ধানমন্ডীর ডিঙ্গি নামক রেষ্টুডেণ্টে! আমরা খেলাম পেট পুরে, আড্ডা দিলাম মন ভরে!

আসলে খাবার দাবার যেখানে আমি আছি সেখানে! রেসিপি লিখে লিখে এখন খাবার দাবারের প্রতি আমার খুব মনোযোগ! হা হা হা… তবে আমাদের সুদর্শন ডাঃ নিয়াজ ভাই আর আগের মত নেই! প্রথম দেখা ডাঃ নিয়াজ ভাই এখন ইয়া ভুড়ী বানিয়ে ফেলছেন! ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের সহধর্মিনী আমাদের লিসা বোন ব্যাপারটা দেখেও দেখছেন না বলে আমার মনে হয়! আশা করি আমাদের লিসা বোনের ধমক খেয়ে তিনি আগামীতে ভুড়ী কমিয়ে আমাদের আবারো চমক দিবেন! চলুন কথা আর না বাড়িয়ে ছবি দেখি।


শিক কাবাব।


চিকেন কাবাব।


বিফ ভুনা।


আলুর দম।


ডাল ভুনা।


বাটার নান।


পেপসি, যার যত ইচ্ছা!


হা হা হা…।। খাবারের সময়ের ছবি! (ধাঁধাঁ – এই ব্লগারের নাম বলতে পারবেন?)


অনুমতি না থাকায় অন্য ব্লগারদের ক্লোজআপ ছবি প্রকাশ করা গেল না!

রেসিপি প্রিয় ডাঃ নিয়াজ ভাই, আপনি আনন্দে বাঁচুন। আপনার প্রতিটা দিন হউক আনন্দের। শুধু প্রতি বছর আমাদের জন্য এমন একটা পার্টি দিয়ে যাবেন, বছরে এমন একটা পার্টি চাই আমরা!

Advertisements

85 responses to “ব্লগার ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের পার্টি থেকে ফিরে…

  1. সত্যি কথা বলতে গেলে নিয়াজ ভাইয়ের লেখা আমাকে চুম্বকের মত টানে। যখন খবরটা পেলাম তখন থেকেই নিয়মিত ভোট দিতাম। প্রথম কিছুদিন যখন ভাইয়া পিছিয়ে ছিলেন তখন কেন জানি বিস্বাস ছিল উনি প্রথম হবেন। আর তিনি হলেন। সবার ব্লগে ওনার লেখা অনেক মিস করি।
    ওনার জন্যে অনেক শুভ কামনা রইলো।

    Like

    • ধন্যবাদ নাঈম ভাই। ডাঃ নিয়াজ ভাইয়ের মত মানুষ এই দুনিয়াতে যত বেশী হবে ততই দুনিয়ার মঙ্গল। তিনি কিন্তু নিউরো সার্জন, মাথার তার ছিঁড়ে গেলে জোড়া লাগান! হা হা হা…।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  2. এই পোষ্টটা লিখে ছিলাম মুক্তব্লগে পোষ্ট করার জন্য কিন্তু কেন যে সেখানে পোষ্ট দিতে পারলাম না তা বুঝে উঠতে পারলাম না। খাবার দাবার বিষয়ক বলে তাই এখানেই এই পোষ্ট রেখে দিলাম। আশা করি রেসিপি প্রিয় পাঠক/পাঠিকা বন্ধুদের খাবারের ছবি দেখে ভাল লাগবে।

    আমাদের হোটেল গুলো ভাল সার্ভিস দেয় না কিন্তু ভাল দাম রাখতে চায়। মানুষকে না খাইয়ে ওরা টাকা নিতে চায়। কোন হোটেলে খেতে গেলে আমার তা বার বার মনে হয়। কয়েকদিন আগে চট্রগ্রামে ‘পিটষ্টপ’ এ খেতে গিয়েও আমার এই কথা মনে হয়েছিল। দাম আকাশ ছোঁয়া, সার্ভিস শূন্য!

    Like

  3. প্রিয় উদারজী ভাই, এই পার্টির সময় আমরা কোথায় ছিলাম? ডাকু ভাই এর চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা বিশাল ব্যাপার। আর উনার পার্টিতে শামিল হওয়া তো আরও ব্যাপক। আপনার কাছে আমর নাম্বার ছিল। কেন যে ভুল করে একটা কল দিলেন না। কি যে আফসুস!

    Like

    • আরে এযে দেখছি আমাদের সাদাকালো ব্রাদার! আমিও আসলে অবগত ছিলাম না… নিয়াজ ভাই ফোন করে আমাকেও ডেকে নিলেন… আরো কত পার্টি আছে সামনে।। আশা করি দেখা হয়ে যাবে… আমরা চরম আড্ডাবাজ। আড্ডা না দিলে আমাদের ঘুম হয় না পেটের ভাত হজম হয় না…। হা হা হা…।

      (আশা করি মাঝে মাঝে এসে দেখে যাবেন। খুশি হব… আপনি নিজেও ওয়ার্ড প্রেস একটা ব্লগ বানিয়ে নিতে পারেন। এটা অনেকটা নিজের মোবাইলের মত। খুব সহ্জ… এসে পড়ুন… )

      শুভেচ্ছা।

      Like

  4. কি বলব বুঝে উঠতে পারছি না! আপনার এতো এতো ভালোবাসায় আমি আসলেই নির্বাক।
    খাবারের ছবিগুলো অসাধারণ হয়েছে। ভাইয়া, আমি পোষ্টটি আমার ফেসবুক পাতায় শেয়ার করলাম- আপনার অনুমতি ছাড়াই (আশাকরি সেজন্য আমাকে ঝাড়ি দিবেন না!)

    Like

    • রাত জেগে আছেন? আমার আজ নাইট শিফট… আমিও জেগে আছি… আপনার ব্লগ দেখছিলাম… আরো ঠিক করুন… পরে মতামত জানাব…

      আরে কি যে বলেন? ব্যাপার না…। মুখে না হয় কথা একটু বেশী বলি… আমার অন্তর কিন্তু সাদা… হা হা হা…

      আশা করি এগিয়ে যাবেন। সাথে আছি সব সময়…।

      শুভেচ্ছা…

      Like

  5. আমিও জেগে আছি, কারণ ভোর পাচটায় হাসপাতালের গাড়িতে সিরাজগঞ্জ যাব। আর কলকাতার খেলা দেখছিলাম।

    ভাবছি থিম চেইঞ্জ করবো।

    Like

  6. কইস্যা মাইনাস। দাওয়াত পাইনাই, আমাকে ছাড়া পার্টি মানি না মানবো না। 😦

    Like

  7. আমরা তো ভাই না, চাইলেও পাইনা!

    Like

    • আরে এ যে, আমাদের করিম ভায়া! কেমন আছেন? আপনাকে দেখে খুশি হলাম। চট্রগ্রাম থেকে ডাঃ ফয়সাল ভাই জয়েন করেছিলেন! হা হা হা…

      আশাকরি আগামীতে আবারো নিয়াজ ভাই পার্টি দেবেন!

      শুভেচ্ছা থাকল। মাঝে মাঝে এসে দেখে ও কমেন্ট করে যাবার আমন্ত্রণ জানিয়ে গেলাম।

      Like

  8. আমি জ্বরে কোকাচ্ছি, আর আপনারা কি সুন্দর মজার খাবার সহযোগে আড্ডা দিলেন। 😦
    তবে আমার স্বভাব মতই আপনাদের আড্ডায় খুশী হলাম।

    Like

    • আরে একি রান্নাতো বোন। আবার জ্বর! এই বছরটায় খেয়াল করলাম আপনার ও আপনার পরিবারের জন্য বেশ ধকল যাচ্ছে। যাক। আশা করি আল্লাহর মেহেরবানীতে সব ঠিক হয়ে যাবে।

      আসলে আপনার ডাকু ভাই হঠাত করেই আমাদের ডেকে নিলেন… আমরা তার সাফল্য কামনা করি।

      আড্ডা জয়যুক্ত হয়েছে। শুভেচ্ছা।

      Like

  9. আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। 😦

    তবে অতিসত্ত্বর আরেকটি পার্টি দিলে এবং আমাকে দাওয়াত দিলে তখন এই প্রতিবাদ প্রত্যাহার করা হইবেক। 😉

    Like

    • হা হা হা…। রুমান ভাই, পার্টি আবার! অবশ্য নিয়াজ ভাই মালদার আছেন! এটা কোন ব্যাপার না! চাইলেই আবার দিতে পারেন… আমরা আবার ভাল খেতে পারব…।

      আপনি প্রতিবাদ চালু রাখেন। আমিও সাথে আছি…।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  10. স্লামালিকুম সাহাদাত ভাই,

    আজ থেকে আমি ‘গল্প ও রান্না’র ফলোয়ার হয়ে গেলাম নিজের ই-মেইল অ্যাড্ড্রেস যোগ করে!!!!!!!!!!!!!!!!!!! (নাঈফা/ অনামিকা)

    Like

    • ধন্যবাদ বোন। আপনাকে দেখে খুশির সীমা নাই।
      আশা করি মাঝে মাঝে দেখে যাবেন এবং কমেন্ট করবেন। কোন ব্লগে লিখি বা না লিখি আমি এখানে আছি! হা হা হা…। রেসিপির প্রতি একটা আলাদা মায়া জন্মে গেছে!

      আপনার ভাতিজাসহ চট্রগ্রাম বেড়িয়ে আসলাম। সাগরের পানিতে ওর জলকেলি (!) দেখে আমি হাসতে হাসতে শেষ। আপনার কথা কয়েকদিন আগে ও আমাকে জিজ্ঞেস করছিল।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  11. পড়লাম। ছবি দেখলাম। আবার কবে কখন দেখা হবে কে জানে? আদৌ কী আর দেখা হবে কখনও কারো সাথে?

    Like

    • হুদা ভাই এটা কি বলছেন? একবার যখন পরিচয় হয়েছে তখন মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দেখা/কথা চলতেই থাকবে। দুই দিনের দুনিয়া!

      আশা করি মাঝে এসে দেখে যাবেন এবং দুই একটা কমেন্ট করে যাবেন। আপনার কমেন্ট আমার কাছে পাথেয় হয়ে থাকে…

      শুভেচ্ছা নিন। সাথে থাকুন।

      Like

  12. ব্যতিক্রমী পোস্ট।
    বেশ ভাল লাগলো। এভাবেই তো তৈরি হয় চমৎকার বন্ধুত্ব।
    সব সময়ের জন্য শুভকামনা রইল সাহাদাত ভাই, আর ডঃ নিয়াজ ভাইকেও শুভেচ্ছা।

    Like

    • ধন্যবাদ দাইফ ভাই। আসলে আগে গর্তেই থাকতে ভালবাসতাম কিন্তু মনে হয় গর্তে থাকা ভুল। বন্ধুত্বে হারাবার কিছু নেই, আছে পাবার অনেক কিছুই।

      আপনিও ভাল বন্ধু বলে আমি মনে করি। আশা করি একদিন আপনার সাথে বসেও আড্ডা দিয়ে চা পান করব।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  13. ্প্রিয়, নিয়াজ ভাই – আপনার লিখা আমি খুব পছন্দ করি।াপনি অনেকদিন ধরে চতুরে লিখছেননা।প্লিজ নিয়াজ ভাই,আপনার চমৎকার সব লিখা থেকে আমাদের বনচিত করবেন না।
    আমি আপনার লিখার একজন গূনমুগ্ধ পাঠক।
    অভিনন্দন নিয়াজ ভাই।
    প্রিয় উদু ভাই, চমৎকার একটি পোস্ট দেবার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

    Like

    • আপনার কমেন্ট আমাকে খুব আবেগী করে তুলেছে। আমি আসলে পেশাগত কাজে বর্তমানে খুব ব্যস্ত আছি। আর চতুর্মাত্রিকে এই মুহূর্তে লিখছি না- একজন শ্রদ্ধেয় মানুষকে সম্মান দেখিয়ে। হয়তোবা কখনো আবার লিখতেও পারি! আসুন না আমার ব্লগে– http://www.niazmowla.com — ঘুরে আসুন, কেমন লাগলো জানিয়ে আসুন। ভালো থাকুন খুব।

      Like

    • ধন্যবাদ শেলী আপা।
      অনেকদিন পর উদু ভাই শুনে কানে তালা লেগে গেল।
      কেমন আছেন? বেক্সিমকো কেমন চলছে?
      একদিন সময় করে দেখে যাবেন। আমি এখনো আপনার বাসার কাছেই আছি!
      শুভেচ্ছা।

      (নিয়াজ ভাই আপনার কমেন্ট পড়েছেন এবং উত্তর দিয়েছেন। নিয়াজ ভাই আপনার কমেন্ট পেয়ে আমাকে ফোন করেছিলেন। হা হা হা)

      Like

  14. dukkhito,choturmatrik hobe.

    Like

  15. শ্রদ্ধেয়,হুদা ভাই-চতুর্মাত্রিকের বন্ধুরা সবাই আপনাকে মিস করছে।নতুনদের আপনি যেভাবে উতসাহ,উদ্দীপনা দিয়ে তাদের প্রতিভা বিকাশে প্রেরণা দিতেন-এর কোনো বিকল্প নেই।সবাই আপনার সাহচ্রয থেকে বনচিত হচ্চে।উদু ভাইয়ের কল্যাণে চতুর্মাত্রিক এবং আপনাদের জানার সু্যোগ হয়েছে-সেই দাবীতে কিছু কথা বললাম।অনাধীকার চরচা হলে ক্ষমা করবেন ( নতুন লিখিয়ে তাই অনিচ্ছাক্রিত বানান ভুলের জন্য দুখিত।)ভাল থাকুন,সুস্থ্য থাকুন প্রিয় হুদা ভাই।

    Like

  16. শ্রদ্ধেয়,হুদা ভাই-চতুর্মাত্রিকের বন্ধুরা সবাই আপনাকে মিস করছে।নতুনদের আপনি যেভাবে উতসাহ,উদ্দীপনা দিয়ে তাদের প্রতিভা বিকাশে প্রেরণা দিতেন-এর কোনো বিকল্প নেই।সবাই আপনার সাহচ্রয থেকে বনচিত হচ্চে।উদু ভাইয়ের কল্যাণে চতুর্মাত্রিক এবং আপনাদের জানার সু্যোগ হয়েছে-সেই দাবীতে কিছু কথা বললাম।অনাধীকার চরচা হলে ক্ষমা করবেন ( নতুন লিখিয়ে তাই অনিচ্ছাক্রিত বানান ভুলের জন্য দুখিত।)ভাল থাকুন,সুস্থ্য থাকুন প্রিয় হুদা ভাই।

    Like

    • ধন্যবাদ বোন। অভ্র দিয়ে বাংলা টাইপ চেষ্টা চালিয়ে যান। আমরা অনেকেই এখন সেরা বাংলা টাইপ মাষ্টার!

      লিখে যান, যা খুশি……

      শুভেচ্ছা।

      Like

    • শেলী রহমান? চিনতে পারছি না তো! চতুরের নিক জানালে হয়তো চিনতে পারতাম!!

      Like

      • তিনি গ্রীন রোডে থাকেন, বড় চাকুরী করেন বেক্সিমকোতে। লিখা শুরু করেন নাই, তবে পড়েন। বাংলা টাইপিং শিখে নিচ্ছেন।

        Like

        • বুঝতে পারছি যে শেলী রহমান খুবই উদার মনের একজন মানুষ! চতুরের কেউ না হয়েও তিনি যে ভাবে চতুরের একনিষ্ঠ পাঠক হিসেবে আমাকে আপন করে নিয়েছেন, তাতে আমি রীতিমত মুগ্ধ! তার আন্তরিকতাপূর্ণ মন্তব্যে আমি খুবই আবেগ প্রবণ হলাম। তাঁকে আমার শ্রদ্ধা আর সালাম জানাবেন।
          [দাওয়াত বা পার্টি, যা-ই হোক না কেন আশা করি আমাকে বাদ দিয়ে কিছুই হবে না।]

          Like

  17. প্রিয়,নিয়াজ ভাই-আমি আপনাকে অসম্ভব পছন্দ করি।আপনার লিখার একনিষ্ঠ ভক্ত আমি।আমি অবশ্যই আপনার সাইট থেকে ঘূরে আসব।ভাল থাকুন,সুন্দর থাকুন।অনেক-অনেক শুভেচ্ছাসহ ধন্যবাদ ভাইয়া।

    Like

  18. উদু ভাই,আপনাকে অনেক-অনেক ধন্যবাদ।
    আপনার শৌজন্যে আমি অনেক আনন্দের শরীক হতে পেরেছি।আসুন ঘুরে যান আপার বাসা থেকে।আমি কিন্তু চমৎকার রান্না করতে পারি।আশা করি আপনারা নিরাশ হবেন না।

    Like

  19. বন্ধু উদরাজী, তোমার ব্লগে দেখি এলাহী কারবার! হায় আমার ব্লগটা কবে এভাবে জমবে ! নিয়াজ ভাইয়ের পার্টি নিয়ে চমৎকার পোস্ট দেয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ তোমাকে। সে সঙ্গে নিয়াজ ভাইকেও ধন্যবাদ এমন আন্তরিক একটি পার্টি আয়োজনের জন্য। শেলী রহমানকে চিনি চিনি মনে হচ্ছে।:-) তিনি যে চতুর্মাত্রিকের একনিষ্ঠ ভক্ত, এটা জেনে খুবই ভালো লাগলো। আর হাঁ, হুদা ভাই, নিয়াজ ভাই এবং তুমি চতুরে ফিরবা কবে। তোমাদের ছাড়াতো চতুরে মজা পাচ্ছি না। আবার চতুরের প্রতি এতো ভালোবাসা অনুভব করি যে, ছাড়তেও পারছি না। আমি সহ পুরো চতুর বাসী(দু-এক জন বাদে) তোমাদের প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষায়…।:-)

    Like

    • ঈশান, যাবো তোমার ব্লগেও।
      চতুরে আমার ফেরা কী ঠিক হবে ভাই? ঐ যে ‘দু’একজন’, তারা তো মোটেও অবহেলার নয়! কাঁটার আঘাত সহ্য হয়, ফুলের আঘাত বড্ড বেশী পীড়া দেয়!

      Like

    • ধন্যবাদ বন্ধু। তোমার কমেন্ট পেয়ে মনে একটা আলাদা আনন্দ লাগল।
      – নিয়াজ ভাই না থাকলে এমন পার্টি হত না, আমিও ধন্যবাদ জানিয়ে গেলাম।
      – শেলী আপাকে চিন্তে পারছ না, এটা শুনলে তিনি তোমাকে খুন করে ফেলবে! চিত্রালীর সেই দিন গুলো ভুলে গেলে! বোন অনামিকার বড় বোন।
      – আমি চতুরে আছি তবে এখন আর বেশি যাচ্ছি না, চতুরের ব্যাপারে কেমন একটা লজ্জায় পড়ে আছি। চতুরে নিজকে বেমানান মনে হয় এখন। এত বিজ্ঞ হয়ে উঠতে পারি না বলে, নিজকে গুটিয়ে রেখে চুটিয়ে বাঁচতে চেষ্টা করছি!
      – দু-একজন মাত্র! হা হা হা… ছোট একটা ভাইরাস পুরা দেহই নষ্ট করে ফেলে! অন্যের লজ্জা না থাকতে পারে আমার আছে!
      – দুনিয়া আসলে বিরাট বড়। আর অনলাইনের দুনিয়া! এত বিশাল যে, একজন্মে কিছুই দেখা হবে না!

      ফিরে আসবো। তবে এখন আমি আমার এই ব্লগ সামলাতেই হিমসিম খাচ্ছি। আর সময় পাচ্ছি না…

      বন্ধু ভাল থেকো। মাঝে মাঝে দেখে যাবে…।

      Like

  20. খাওয়া দাওয়াটা বেশ জমজমাট ছিল।

    Like

  21. নিয়াজ ভাই কি বি. এ. ফ. শাহিন কলেজ থেকে SSC (1996) পাস করেছেন? তাকে খুব পরিচিত লাগছে……

    Like

  22. ইয়াল্লা! আপনি তো দেখি পাপারাজ্জিকেও আর মানাইবেন !!!!!!!!!!
    এত চমৎকার পোস্ট – আমারে ফেবুতে ইট্টু ট্যাগাই দিলেই পার্তেন! কি জমজমাট আড্ডা এখানেও হয়ে গেল, আমি চিরকালের লেট লতিফ, বরাবরের মতই মিস করলাম। তবে, শান্তি পাচ্ছি এই ভেবে, যে আড্ডা নিয়ে এই পোস্ট – সেইটা তো আর মিসাই নাই!!!
    ইনশাল্লাহ, যখনই ঢাকা আসব, অন্তত আপনার এবং নিয়াজ ভাইয়ের সাথে আড্ডা না পিটিয়ে ফিরব না!

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s