Gallery

রেসিপিঃ নুতন সিম এবং নুতন আলু রান্না (বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জন্য)


বাংলাদেশ ক্রিকেট দল দেশের জন্য বিরাট জয় এনে দিয়েছে। গতকালের (১৬/০৩/২০১২ইং) এই জয়ের আনন্দ ভুলে যাবার মত নয়। তাই ক্রিকেট দলকে দাওয়াত দিয়ে খাওয়াতে ইচ্ছা হচ্ছে! কিন্তু কি খাওয়াবো, ভাবছিলাম। আমার একটা প্রিয় খাবারের তরকারী হচ্ছে নুতন আলু এবং সিম রান্না। যদিও এই রান্নাটা আমার বেশ কয়েক মাস আগের রান্না, তবুও চলবে বলে মনে হচ্ছে! এই রান্নাটা আর কিছু দিন পরে দিলে, নিজের কাছে নিজকে বোকাই মনে হবে! কারণ সিম ও আলুর সিজন শেষ হয়ে আসছে! চলুন দেখে ফেলি। এই রান্নাটা আমার মাইয়ের হাতে বেশ মজা হত। আমিও মন্দ করি না! আমার স্ত্রী খেয়ে বলেছিল – বাহ, বেশ! তা হলে, এবার বুঝুন অবস্থা!


পরিমান মত নুতন সিম ও আলু কেটে ধুয়ে রাখুন।


আলু সিমকে লবন গরম পানিতে সিদ্ব করে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রেখে দিন। আলু সিমের রঙ চমৎকার দেখানোর জন্য এই ব্যবস্থা।


একটি পাত্রে তেল গরম করে কিছু পেঁয়াজ কুঁচি, সামান্য রসুন বাটা ও লবন দিয়ে ভাল করে ভাজতে থাকুন। কিন্তু মশলা পুড়িয়ে ফেলবেন না।


আধা চামুচ মরিচ গুড়া (দেখে শুনে বুঝে), এক চামচ হলুদ গুড়া, এক চিমটি জিরা গুড়া ও একটা যে কোন মাছের টুকরা (স্বাদ বাড়ানোর জন্য), কয়েকটা কাঁচা মরিচ এবং পরিমান মত লবন দিইয়ে এক কাপ পানি দিয়ে ভাল করে জ্বাল দিতে থাকুন।


ঠিক এমন একটা রঙ ধরে যাবে। ইচ্ছা হলে মাছটা ভেঙ্গে দিতেও পারেন, না হলে নাই!


এবার সিদ্ব করা আলু ও সিম ঢেলে দিন।


ভাল করে নাড়িয়ে মিশিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন। (যদি ঝোল কম লাগে তবে আরো হাফ কাপ গরম পানি দিতে পারেন)


মিনিট বিশেকের মত জ্বাল দিতে হবে। চেখে দেখুন, লবন লাগলে দিন, নতুবা ওকে।


পাত্রে শেষ রঙটা এমন দেখাবে।


পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।


ভাল পরিশ্রমের পর গোসল দিয়ে এসে গরম ভাতের সাথে ভীষন জম্বে! আর সে জন্য এই তরকারী দিয়ে আমাদের ক্রিকেট টীমকে খাওয়ানো যেতে পারে! মাছ মাংশ কি আর সব সময় ভাল লাগে!


(প্রথম প্রকাশঃ চারিদিক ব্লগকে ভালবেসে)

লিঙ্কঃ http://www.blog.sajjadbd.com/%E0%A6%A8%E0%A7%81%E0%A6%A4%E0%A6%A8-%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%AE-%E0%A6%8F%E0%A6%AC%E0%A6%82-%E0%A6%A8%E0%A7%81%E0%A6%A4%E0%A6%A8-%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A7%81-%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%8D/

23 responses to “রেসিপিঃ নুতন সিম এবং নুতন আলু রান্না (বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জন্য)

  1. ছবি দেখতে দেখতে মনে হচ্ছিল ঘ্রাণ পাচ্ছি। খুব খেতে ইচ্ছে করছে।
    এমন সহজ সহজ রেসিপি ভাল লাগে।

    Like

    • ধন্যবাদ ব্রাদার। আমার চেষ্টা হচ্ছে। সহজ রান্না দিয়ে রান্নার প্রতি সবাইকে নিয়ে আসা। বিশেষ করে প্রবাসী ব্যচেলর ভাই বোনদের কোন উপকারে আসলে ভাল লাগবে।

      Like

      • আপনার চেষ্টার প্রতি সাধুবাদ রইল।
        এমন রিসিপি হলে আমরা যারা বাঙ্গাল রাঁধুনি তাদের একটু সাহস হয়। সবাইতো অনেক দামী দামী খাবারের রেসিপি দেয়।

        Like

        • ধন্যবাদ ত্রাতুল ভাই,
          রান্না আসলে একটা ভালবাসার নাম। আর লাগে সাহস। আপনি ভালবেসে সাহস করে শুরু করলেই হল।

          আমি দামী খাবার দাবার দিতে চাই না, তবে কিছু পলাউ, কোরমা বা বেশী মশলার খাবার দাবারো আছে।

          আমি চাই, রান্নায় স্ত্রীদের স্বামীরা হেল্প করুক এবং ব্যচেলার ছেলে মেয়েরা আবল তাবল হোটেলে না খেয়ে নিজেরা ভাল কিছু বানিয়ে পেট পুরে চালান দিক।

          আমার অভিজ্ঞার আলোকে বলছি।

          তারপর আরো ভাল দিক হচ্ছে, স্ত্রীকে রান্নাঘরে হেল্প করলে, ভালবাসা বেড়ে যাবে কয়েক হাজার গুন। আমি নিশ্চিত।

          Like

  2. aponar ei dhoroner ranna amar val lage…. ranna korte sahos pai..

    aponake dhonbad…

    Like

  3. সাহাদাত ভাইয়ের আরেকটি সুস্বাদু রেসিপি। অনেক ধরনের রান্না মোটামুটি ভাল জানলেও সিমটা সেভাবে রান্না করিনি। একদিন করতে হবে। না জানলেও সমস্যা কি, https://udrajirannaghor.wordpress.com/ সাইটটা তো আছেই।

    ধন্যবাদ রইল সাহাদাত ভাই।

    Like

  4. এখনই রান্না করে খেতে মন চাইতেছে!

    Like

  5. অনেক ধন্যবাদ সাহাদাত ভাই।

    Like

  6. আপনার গরু রচনা জান ছুয়ে গেলো

    Like

  7. ভাই আপনার কাছ থেকে প্র্যাকটিক্যলি একদিন শিখতে হবে। 🙂

    Like

    • ধন্যবাদ হাসান ভাই।
      আমি নিজেও শিখছি। আমাকেও আরো শিখতে হবে। তবে এখন মোটামুটি ভাল রান্না করতে পারি। স্ত্রী তারিফ করেন, তাই মনে শান্তি পাই! হা হা হা।। আসলে রান্না জানাটা একটা গর্বের ব্যাপার, যা আগে বুঝি নাই। তা হলে এত দিনে বিরাট কিছু করে ফেলতে পারতাম।
      শুভেচ্ছা নিন।

      Like

  8. this is the BEST site i have ever found for Recipe !!!!!!! Thank you ! onnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnnakkkkkkkkkkkkkkk thank you! 🙂

    Like

    • ধন্যবাদ বোন।
      আপনার কমেন্ট পেয়ে আমরা অনেক খুশি হয়েছি। আমাদের উদ্দেশ্য হচ্ছে ব্যচেলর এবং প্রবাসীদের কে রান্না দেখিয়ে দেয়া যেন তারা রান্নায় সাহসী হয় এবং রান্না করেন। রান্না সহজ ব্যাপার এবং রান্না হচ্ছে একটা ভালবাসা এটাই আমরা সবাইকে জানাতে চাই।

      বাংলাতে এমন করে ধারাবাহিক ছবি দিয়ে রেসিপি আমরাই প্রথম বলে মনে করি এবং আমাদের এ যাবত ৪৫০ রেসিপি আছে এবং সব গুলোই আমাদের রান্না করা এবং ধারাবাহিক ছবি দিয়ে।

      যাই হোক আমাদের চেষ্টা চলবেই। আশা করি মাঝে মাঝে আমাদের দেখে যাবেন এবং আমাদের রেসিপি দেখে কিছু বলে যাবেন।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  9. অসাধারন একটি খাবার

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s