Gallery

রেসিপিঃ সাধারন সুজি ও ডিম হালুয়া (মামুন হক ভাই এবং শিবলী ভাইয়ের জন্য)


লিখেছেনঃ সাহাদাত উদরাজী (তারিখঃ ১৯ ডিসেম্বর ২০১১, ৪:০৬ পূর্বাহ্ন)

মামুন হক ভাই এবং শিবলী ভাই। দুইজনই আমার প্রিয়। এদের দুইজনের কথাই আমার প্রায় মনে পড়ে। এক জনের কথা মনে হলে অন্যজন অটোমেটিক চলে আসে। হা ব্লগে দেখা আমার এই দুইজন প্রিয় মানুষ এক জায়গায় মিলে মিশে আছেন! আর সেটা হচ্ছে, এরা দুইজনেই টুইন বেবী ফাদার। মানে দুই জনেরই আছে দুটো করে বেবী।


মামুন ভাইয়ের মায়েরা এষা ও আয়লা।


শিবলী ভাইয়ের মায়েরা জুমানা ও সুনাতা।

আজ রেসিপি লিখতে বসে এই চার মায়ের কথা বার বার মনে পড়ছে। ফলে আজকের রেসিপি মামুন হক ভাই এবং শিবলী ভাইয়ের জন্য। পানির মত সহজ একটা হালুয়ার রেসিপি দিয়ে যাচ্ছি। আশা করি বানিয়ে আমাদের মায়েদের কাছে হাজির করবেন।

উপকরনঃ
– হাফ কাপ সুজি
– হাফ কাপের চেয়ে কম চিনি (প্রথমবার বানাতে কম দিতে পারেন, ওরা কেমন মিষ্টি পছন্দ করে তার উপর)
– চার/পাঁচ চামচ তেল, এক চামচ ঘি বা বাটার
– দুইটা দারুচিনির টুকরা, কয়েকটা কিসমিস ও কয়েকটা এলাচি।
– একটা মুরগি ডিম।

প্রনালীঃ

পরিস্কার সুজি, দুইটা দারুচিনির টুকরা, কয়েকটা কিসমিস ও কয়েকটা এলাচি নিন।


তেল/ঘি গরম করে তাতে সুজি ও মশলা দিন। নাড়াতে থাকুন, থেমে যাবেন না। সামান্য (খুব কম) লবন চিটিয়ে দিন, না হলেও চলে।


চিনি দিন। তিনকাপ পানি দিন (এখানে পানির বদলে দুধ দিতে পারেন, তাহলে আরো স্বাধ বাড়বে)। নাড়াতে থাকুন। কিসমিস ফুলে উঠবে। (ইচ্ছানুযায়ী নানা পদের বাদাম পেষ্টও দিতে পারেন)


নাড়িয়ে যান। থেমে যাবেন না। নন স্টিকি না হলে পাতিলে লেগে যাবে সুতারাং খেয়াল রেখে।


ঘনত্ব বেড়ে যাবে। এই সময় ডিম ভেঙ্গে দিন এবং ভাল করে মিশিয়ে ফেলুন। খুন্তি চাওড়া হলে নিমিষের মিশে যাবে।


জ্বাল কমিয়ে আরো ভাল করে নাড়িয়ে ভাজা ভাজা করে নিন।


ব্যস হয়ে গেল সাধারন সুজির হালুয়া। একদম খাঁটি দেশী হালুয়া।


সকালের নাস্তা হিসাবে মায়েদের মাসে এক/দুই দিন নিশ্চয় এই হালুয়া ভাল লাগবে। সুখে ও আনন্দে কাটুক মায়েদের সময়।

Advertisements

4 responses to “রেসিপিঃ সাধারন সুজি ও ডিম হালুয়া (মামুন হক ভাই এবং শিবলী ভাইয়ের জন্য)

  1. middle a add gulo na thakle valo lagto vaia. otherwise a great job indeed.

    Like

    • ধন্যবাদ বোন।
      আসলে আমাদে এই চেষ্টা সম্পুর্ন ফ্রী এবং আমাদের এই সাইট চলেও ফ্রী ওয়ার্ডপ্রেস এবং ফটোবাকেটের হেল্পে। তাই ওয়ার্ড প্রেস এবং ফটো বাকেটের কিছু বিজ্ঞাপন আমাদের হজম করে নিতেই হচ্ছে। উপার নাই। টাকা দিয়ে এমন ব্লগ চালানো আমাদের উপায় নাই।

      ধন্যবাদ বোন। আশা করছি মাঝে মাঝে আমাদের দেখে যাবেন। কোন সর্টকাট রেসিপি থাকলে আমাদের জানাবেন। আমরা চেষ্টা করে দেখবো।

      শুভেচ্ছা।

      Like

  2. Wow, this piece of writing is fastidious, my sister is
    analyzing these kinds of things, so I am going to let
    know her.

    Like

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s