রান্নার টিপস


[রান্না করার সময় টুকটাক টিপস জানা থাকলে রান্না ভাল হয়, সুরক্ষা থাকা যায় এবং সময় বাঁচে। রেসিপি দেখে রান্না করতে হলে রান্নাঘরে যাবার আগেই রেসিপিটা প্রিন্ট করে নিতে হবে।]

* মাছ রান্না করে হাতের কাছে কাঁচা ধনিয়া পাতা থাকলে তা কুচি করে কেটে বিছিয়ে দিন, স্বাদ দুইশত গুন বেড়ে যাবে।

* ডালে বাগার দিতেই হবে, রসুন কুচি তেলে ভেজে ডালে দিয়ে দিতে হবে।

* মাংশ জাতীয় রান্না করে শেষে বেরেস্তা (পেঁয়াজ কুচি ভাজি) দিয়ে দিন। স্বাদ বেড়ে যাবে।

* ডিম সিদ্ব করতে পানিতে সামান্য লবন দিন। ডিম খেতে সুস্বাদু হবে। গরমাবস্থায় ডিম ছিলবেন না, ঠান্ডা করে ছিলুন এতে খোসায় লেগে ডিম নষ্ট হবে না।

* চুলায় হাড়ি পাতিলে ঢাকনা থাকলে তা খালি হাতে ধরবেন না। গরম থাকলে হাত পুড়ে যেতে পারে।

* ভর্তা বানাতে মরিচ খালি হাতে ঢলবেন না, হাত জ্বলে আপনি কষ্ট পেতে পারেন।

* যে কোন মাছ ভাঁজতে কড়াই থেকে একটা নিদিষ্ট দূরে থাকুন। মাছে পানি থাকলে কিংবা ফুটে আপনার গায়ে/চোখে তৈলের চিটকা পড়তে পারে। সাবধানে কাজ করবেন। দূর থেকে নাড়ুন।

* শুকনা মরিচ ভাজলে বা পুড়লে বাতাসে একটা ঝাঁজ তৈরী হয় এতে হাচি, কাচি এসে নাস্তা নাবুদ হয়ে যেতে পারেন। ভাজার সময় রান্নাঘরের দরজা জানালা ভাল করে খুলে দিন। প্রয়োজনে এডজাষ্টার ফ্যান থাকলে তা চালিয়ে দিন।

* ভাজিতে তেল বেশী পড়ে গেলে ভাজি কড়াই, প্যানের এক দিকে সরিয়ে কড়াই/প্যান কাত করে রেখে দিবেন ১৫/২০ মিনিট। তারপর ঐ কাত করা অবস্থাতেই ভাজিগুলো বাটিতে নিয়ে নিবেন। আর ঐ বাড়তি তেল পরে অন্য ভাজিতে ব্যাবহার করতে পারবেন। মাংসের তরকারীতেও যদি তেল বেশী হয়, উপর থেকে চামচ দিয়ে তেল উঠিয়ে পরে ভাজিতে ব্যাবহার করলে ভালো লাগে। [এই টিপস টি দিয়েছেন সিলেট থেকে আমাদের রান্নাতো বোন সুরঞ্জনা আপা]

* এলাচ সম্পুর্ণ গুড়ো করে ব্যবহার করা ভাল। গোটা এলাচ কামড়ে পড়লে খাওয়ার মজাই নষ্ট হয়ে যায়। আবার এলাচ ভালো করে না ফাটালে তো সুগন্ধই হবেনা। [এই টিপসটি দিয়েছেন সিলেট থেকে আমাদের রান্নাতো বোন সুরঞ্জনা আপা]

* সবজীর রং ঠিক রাখতে ঢাকনা দিয়ে জ্বাল না দেয়াই ভাল। আর কিছু সব্জী আছে যাদের সামান্য সিদ্ব করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেললে কিংবা বরফ কুঁচিতে রাখলে রান্নার পরও রং ঠিক থাকে।

* কিছু ভাজিতে কড়াইতে তেল গরম হলে যা দেবেন তার সাথে সামান্য লবণ দিয়ে দিন, তেলের ছিটকা উঠবে না।

* ডালের মজা জ্বালে! অর্থাৎ যত বেশি সময় জ্বালানো হবে স্বাদ বেড়ে যাবে ততই। [এই টিপসটি দিয়েছেন খুলনা থেকে আমাদের প্রিয় ব্লগার নাজমুল হুদা ভাই]

* যদি তেলাপিয়া মাছে কোন গন্ধ থাকে তবে তেলাপিয়া মাছ হলুদ ও ভিনিগার/লেবুর রস মাখিয়ে মিনিট ১৫ রেখে ধুয়ে নিলে গন্ধ থাকেনা।  [এই টিপসটি দিয়েছেন সিলেট থেকে আমাদের রান্নাতো বোন সুরঞ্জনা আপা]

* লাল সর্ষে তিতা বা ঝাজ বেশী হয়। হলুদ সর্ষে ব্যাবহার করলে তিতা হয়না। আরেকটি কথাঃ সর্ষে বাটার সময় লবন আর কাচামরিচ এক সাথে বাটলে তিতা হয়না। [এই টিপসটি দিয়েছেন সিলেট থেকে আমাদের রান্নাতো বোন সুরঞ্জনা আপা]

(আপনিও চাইলে টিপস দিতে পারেন। যোগ করে দিব।)

30 responses to “রান্নার টিপস

  1. দরকারী তথ্য। সবার কাজে লাগবে।

    Like

  2. বাহ ! অনেক সুন্দর উদ্যোগ … অনেক দরকারী পোষ্ট।

    Like

  3. রান্নাই লবন বেসি হলে কি করব বলবেন

    Like

    • ধন্যবাদ হিল্লোল ভায়া, আপনার প্রশ্নের জন্য অত্যান্ত আন্তরিক শুভেচ্ছা। আপনি এই প্রশ্ন না করলে আমিও জনতাম না (আমার রান্নায় এখনো কখনো লবন বেশি হয় নাই, বরঞ্চ কম হয় সব সময়!)। এবার কাজের কথায় আসি। আপনার এই প্রশ্ন দেখার পর আমি তিনটে ফোন করেছিলাম। আমার আম্মা, আমার রান্নাতো বোন সুরঞ্জনা আপা এবং আমার ব্যাটারী। উনাদের উত্তর তুলে দিচ্ছি।

      ১। আমার আম্মা ফিরোজা বেগম – যে তরকারীতে লবন বেশি হবে তাতে সেই তরকারীর আরো কিছু উপকরন দিয়ে দেয়া যেতে পারে। যেমন, আরো কিছু আলু, টমেটো, শাক ইত্যাদি। আর অন্যক্ষেত্রে (তরকারী বা তরকারী না হলে) যদি ঘরে কয়লা থাকে তবে তার ছোট এক টুকরা পাতিলে দিয়ে দিলে লবন শুষে নিয়ে নিবে। (আম্মার কাছ থেকে আরো একটা টিপস জানা গেলো, যদি হলুদ বেশী হয়ে যায় তবে ছোট একটা কাপড়ের টুকরা চুবিয়ে দিলে কাপড় কিছু হলুদ টেনে নিয়ে নিবে।)

      ২। রান্নাতো বোন জামিলা হাসান সুরঞ্জনা আপা – যে তরকারীতে লবন বেশি হবে তাতে কিছু আলু কিংবা কুমড়ার শাক দিলে লবন কমে যাবে। তবে তিনি ছোট বেলায় উনার মায়ের কাছ থেকে দেখেছেন, তরকারীতে লবন বেশি হলে কয়লার টুকরা দেয়া হত।

      ৩। আমার ব্যাটারী মানসুরা হোসেন – যে তরকারীতে বা অন্য কিছুতে লবন বেশি হবে তাতে আটা বা ময়দার একটা গোল্লা (রুটি বানাতে যে কাই করা হয়) বানিয়ে এক পাশে রেখে দিতে হবে। উক্ত আটা বা ময়দার গোলা বেশ কিছু লবন শুষে নেবে। তবে তিনি আরো জানালেন যে, আলু বা টমেটো দিয়ে ঝোল বাড়িয়ে নিলেও লবন কমে যায়।

      দেখা যায়, আমাদের আরো রেসিপি পাঠক/পাঠিকা ভাই, বোন, বন্ধু এই বিষয়ে আরো কি কি সাজেশন দেন। আমরা অপেক্ষায় থাকতে পারি।

      শুভেচ্ছা আপনাকে। ভাল থাকুন, আমাদের সাথে থাকুন।

      Like

  4. ghore kacha pepe thakle boro boro dui tukra diye diben. pepe khete na chaile pore fele diben.

    Like

  5. Khub valo valo kichu ranna sukhchi apnader Ei pace theke. asha kori aro valo valo kichu shikhte parbo..ধন্যবাদ apnader..

    Like

  6. ১। রান্নায় হলুদ বেশী হলে খুন্তি চুলায় গরম(লাল) করে তরকারীতে চেড়ে দিলে হলুদ কমে যায়।
    ২। যতটুকু সম্ভব পাতিলে ঢাকানা দিয়ে রান্না করা ভাল, এতে করে খাবারের পুষ্টিমান বজায় খাকে।
    এখন মনে পড়ছে না, মনে পড়লে আবার লিখবো।

    Like

  7. – রসুনের খোসা ছাড়ানোর আগে অল্প পানিতে ভিজিয়ে রাখালে খোসা ছাড়াতে সুবিধা হয়। নখেও ব্যথা লাগে না।
    -আলু গোল না করে কেটে লম্বালম্বি করে কাটলে সহজে সেদ্ধ হয়।
    -যে কাগজি লেবু চিপলে রস বের হতে চায় না, সেই রকম লেবু কিছুক্ষণ গরম পানিতে ডুবিয়ে রাখলে ও চিপলে অনেক রস বের হবে।

    Like

  8. একটা ভালো রান্নার রেসিপি পাওয়া যায় এমন ওয়েবসাইটের গুগল করতে করেতে যখন হাত ব্যাথা হয়ে গেছে তখন এই সাইটের সন্ধান পেলাম, খুব ভালো একটা উদ্যোগ….. ধন্যবাদ যারাই এটার সাথে আছেন তাদের সবাইকে….

    Like

  9. আসলে গুগলে সার্চ দিতে দিতে আমিও পাগল হয়ে গেছি- ধন্যবাদ উদারজী ভাইকে কারন উনার এই উদারতার ফলে রান্নার ক্ষেত্রে আমাদের উদাসীনতা দূর করে মনোযোগ বাড়াবে !!

    Liked by 1 person

  10. সর্ষে হলুদ. লবণ দিয়ে বাটবার পরেও তেঁতো হচ্ছে
    সাদা ও কালো উভয়ই কি করব

    Liked by 1 person

  11. onek proyojonio tips, ar jara apnake egula diyesen tadersoho apnake dhoonobad

    Liked by 1 person

  12. dale holud besi hole ki korbo?

    Liked by 1 person

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s