বর্তমান সময়ের বিশ্বে আমার চোখে সেরা ৫ টেক বিশ্লেষক!


আপনারা নিশ্চয় জানেন যে, এখনকার বিশ্বে মোটামুটি টিভি চ্যানেল গুলো হারিয়ে যেতে বসেছে, আজকাল ইউটিউব চ্যানেল গুলো সব চাইতে জনপ্রিয়। ইউটিউবে সব চেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, আপনি আপনার ইচ্ছানুযায়ী অনুষ্ঠান দেখতে পারেন এবং পুরানো হারিয়ে যাওয়া বা যে কোন তথ্য ভিত্তিক অনুষ্ঠান আপনি দেখতে পারেন।  যারা সামান্য টেকনিক্যাল জ্ঞান রাখেন আপনারা নিশ্চয় এখন আর টিভিতে কিছু দেখতে হবে এই অপেক্ষায় থাকেন না, বরঞ্চ টিভি চ্যানেল গুলো নিজদের সারভাইব করার জন্য নিজেরাও ইউটিউবে চলে আসছে, কখনো লাইভে কিংবা কখনো তাদের পুরানো অনুষ্ঠান গুলো তুলে দিয়ে! ইউটিউবে আরো অনেক মজার দিক হচ্ছে একটি অনুষ্ঠান কত জন দেখছে বা সেই অনুষ্ঠান কেমন হচ্ছে তা নিয়ে আপনিও আপনার কমেন্ট বা মতামত দিতে পারেন, যা আপনার ইচ্ছার প্রতিফলন। এছাড়া আপনি কোন বিষয়ে সিধান্ত নিতে চাইলে বা কেনা কাটায় আপনি ইউটুব থেকে রিভিউ দেখে নিতে পারেন, আপনি সেই বিষয়ে টেকনিক্যাল জ্ঞান নিয়ে সেই জিনিষ কিনতে যেতে পারেন, এটা একজন সাধারণ ক্রেতার অধিকার বটেও!

ফলে বর্তমান বিশ্বে এমন শত শত ব্যক্তি ইউটিউবে এসে গেছেন যারা আপনার আমার জন্য সেই দ্রব্য বা বিষয়ে রিভিউ দেবেন এবং আমরা তা দেখে বুঝতে পারবো। আজকাল সুই থেকে রকেট যে কোন কিছুর রিভিউ মাষ্টার এই ইউটিউবে আছে, এদের চলতি ভাষায় বলা হয় ‘ইউটিউভার’ এবং এদের আয় কম নয়, আমি আপনি দেখছি তাতে এরাও বেনিফিসিয়ারী হচ্ছে মানে আমাদের প্রতি ভিউতে এরা সামান্য হলেও ইউটিউব থেকে আয় করছে! এই আয়ের ফলে এদের জীবন এখন বেশ আনন্দদায়ক এবং সাম্মানীয়ও, এরা যে কোন বড় বড় প্রোডাকশন হাউজ ত্থেকেও দাওয়াত পায় কারন এরা যদি সেই প্রোডাক্টের ভাল রিভিউ দেয় তবে তাদের বিক্রীও ভাল হয়! তবে এই সব টেক জায়েন্টদের বেশ সতর্ক থাকতে হয়, চাইলেই এরা মন্দকে ভাল বা ভালকে মন্দ বলতে পারেন না! তার পরে মামলা মকদ্দমাও এদের পিছনে থাকবে, অন্যায় কিছু বললে ক্যারিয়ার হারিয়েও যেতে পারে! এরা আমাদের দেশের বিরানীখোর রিভিউ নয় যে, খেয়ে টাকা নিয়ে বলে দিবে বেশ হয়েছে!

যাই হোক, আজ আমি আপনাদের বিশ্বে এমন সেরা ৫ জন টেক রিভিয়ারের সাথে পরিচয় করিয়ে দেব, যারা সত্যই হিরো এবং এদের কথা, কলা কৌশল আপনাকে সত্যই আনন্দিত করবে এবং আপনার জ্ঞান বাড়াবেই! চলুন এদের দেখে ফেলি এবং এদের ব্যাপারে সামান্য কিছু তথ্য জানি!

ছবি ১ঃ এই ওস্তাদের নাম ক্যাসি নায়েষ্ট্যাট, দুনিয়ার এমন কোন বিষয় নাই যে, তিনি সেই বিষয়ে জানেন না বা অনর্গল বলতে পারেন না! নিউইয়র্ক বেইড হলেও আজকাল ক্যালিফোর্নিয়া আসা যাওয়া করছেন, স্ত্রী ও সন্তানদের কাছে থাকার চেষ্টা করছেন কিন্তু তা পারেন না। কারন প্রতিদিন তিনি নুতন নুতন বিষয় নিয়ে কাজ করেন, ঘুরে বেড়ান দেশ বিদেশে বলা চলে পাখির মত! দেখতে আমেরিকান হোম্লেস মনে হলেও তা নয়, নিউইউওর্কে তার বিরাট বড় স্টুডিও আছে এবং ইনকাম মন্দ নয়! পুরাই রিয়েল লাইফ হিরো! তার পরনের এই চশমা সারা দুনিয়াতে ট্রেড মার্ক হয়ে আছে! আপনি তার কয়েকটা ভিডিও ব্লগ দেখলে তার ভক্ত না হয়ে পারবেন না! আমি তার বডি ফিটনেসের তারিফ করি! জ্ঞানের কোন অভাব নেই! তার ইউটিউব ব্লগ দেখতে লিঙ্কে ক্লিক করুন। caseyneistat
https://www.youtube.com/user/caseyneistat

ছবি ২, এই ওস্তাদের নাম হচ্ছে মারকিউস ব্রাউনলী। এই ভদ্রলোকের কাজ দেখলে আমার নিজের মাথাই ঘুরে যায়! বিল গেইটস থেকে এলান মাস্ক, প্রায় সবার সাথেই এর যোগাযোগ, সাক্ষাৎকার। মোবাইল থেকে যে কোন টেক বিষয়ে কি সহজ বর্ননা দিয়ে ভিডিও বানিয়ে থাকেন! এই ওস্তাদের খুবসুন্দর স্টুডিও আছে এবং আমার কাছে মনে হয় তিনি সব চেয়ে ভাল ক্যামেরা দিয়ে তার ব্লগ গুলো বানিয়ে থাকেন, তার ভিডিও ব্লগ গুলো খুব ঝকঝকে এবং তার বর্ননা সত্যই চমৎকার! তার ইউটিউব ব্লগ দেখতে লিঙ্কে ক্লিক করুন। MKBHD  https://www.youtube.com/user/marquesbrownlee

ছবি ৩, এই ভদ্র লোকের নাম জ্যাক নেলসন! তিনি যা কিছু হাতের কাছে পান তা ভেঙ্গে বা খুলে খুলে দেখেন এবং সেই জিনিষের ভিতরে কি আছে তা আমাদের দেখিয়ে দেন! মোবাইলের মত যন্ত্র গুলো তিনি কি পরিমাণে খুলে আবার জোড়া দেন তা না দেখলে বিশ্বাস করতে চাইবেন না! সারা দুনিয়ার শত শত মানুষ তার ভিডিও ব্লগ দেখার আগ্রহ নিয়ে পড়ে থাকে! টেকো মাথার এই ভদ্রলোক, কিছু দিন আগে তার গার্ল্গেন্ডকে বিয়ে করেছেন মাত্র! আপনাদের দেখার জন্য তার স্ত্রীর একটা ছবিও দিলাম। তাদের অনেক ভালবাসা। কিন্তু একটা বিষয় না বললেই নয়, তার স্ত্রী দাঁড়াতে বা হেঁটে চলতে পারেন না। কিছু বছর আগে ঘোড়া থেকে পড়ে আঘাত পেয়ে চলার শক্তি হারিয়েছেন তিনি! তার সাইট দেখুন; JerryRigEverything
https://www.youtube.com/user/JerryRigEverything

ছবি ৪, তিনি লুইস জর্জ। আনবক্স থেরোপি নামে পরিচিত, তিনি যে কোন বিষয়ে টেকনিক্যাল ব্যক্তি, অনর্গল কথা বলাতে ওস্তাদ। আমি তার স্টুডিও দেখে অবাক হই, এত সুন্দর স্টুডিও সেট করা যা বর্ননাতীত। তার টীমে চারজন সদস্য, সবাই নিদিষ্ট দায়িত্ব নিয়ে কাজ করেন। দুনিয়াতে বের হওয়া যে কোন হাইটেক নিয়ে তিনি প্রথম ভিডিও ব্লগ পোষ্ট করে থাকেন। সারা দুনিয়ার নিত্য নুতন মোবাইল তিনি প্রায় খুলে সবাইকে দেখান, তার সাইট থেকেই অনবক্স কথাটা এত জনপ্রিয় বলেই মনে হয়! শত শত ভিডিও ব্লগ দেখে আপনি নিজের জ্ঞান বাড়াতে পারেন, সত্যকে সত্য এবং মিথ্যাকে মিথ্যা বলাই তার সাহস! তার লিঙ্ক দেখুন। unboxtherapy https://www.youtube.com/user/unboxtherapy

ছবি ৫, ছবিত ব্যক্তির না, লিনুস। তিনি দুটো ভিডিও সাইট চালিয়ে থাকেন, তবে জনপ্রিয় সাইট হচ্ছে লিনুস টেক টিপস। কম্পিউটারে ওস্তাদের ওস্তাদ তিনি। তার বর্ননা যে কোন লোককে জ্ঞানী করে তুলবেই! কম্পিউটারে তিনি যে সব রিভিউ দেন তা দেখতে থাকলে এই বিষয়ে আর অন্য কাউকে দেখার দরকার হয় না! তার মুল স্লোগান হচ্ছে, টেকনিক্যাল বিষয় গুলো জটিল, কিন্তু আমাদের কাজ সহজ করে আপনাদের জানিয়ে দেয়া! ২০০৮ সালের নম্ভেবর থেকে তিনি রিভিউ দিচ্ছেন, এযাবৎ তার ব্লগ গুলো ভিউ হয়েছে প্রায় তিন শত নয় কোটি বার, কল্পনা করা যায়! সপ্তাহে শনি ও বুধবার তিনি নুতন ভিডিও পোষ্ট দিয়ে থাকেন। কম্পিউটার কেনার আগে আপনি নিশ্চিত মনে তার ব্লগ দেখে দুনিয়াতে যে কোন কম্পিউটার কিনতে পারেন! ক্লিক করুন। LinusTechTips 
https://www.youtube.com/user/LinusTechTips

আশা করি আপনাদের আমার পদত্ত তথ্য ভাল লেগেছে, যে কোন বিষয়ে কাউকে জিজ্ঞেস না করে আপনি নিজেই হয়ে উঠতে পারেন জ্ঞানী! কেনাকাটায় হতে পারেন সতর্ক!

সবাইকে শুভেচ্ছা।

[প্রিয় খাদ্যরসিক পাঠক/পাঠিকা, পোষ্ট দেখে যাবার জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। নিম্মে আপনি আপনার মন্তব্য/বক্তব্য কিংবা পরামর্শ দিয়ে যেতে পারেন। আপনার একটি একটি মন্তব্য আমাদের অনুপ্রাণিত করে কয়েক কোটি বার। আপনার মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা থাকল। অনলাইনে ফিরলেই আপনার উত্তর দেয়া হবে।]

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s