গল্প ৮, সলিম সাহেবের যন্ত্রনা


সলিম সাহেবের আসলে বলার আর কিছু নাই, কাকে কি বলবেন! করোনা ভাইরাস নিয়ে সরকারের এখনো কোন কার্য্যকর ব্যবস্থা তার চোখে চোখে পড়ে না বা মনে লাগে না যে, তিনি মনকে সান্ত্বনা দিবেন বা সরকারকে বাহাবা দিবেন। কি নিদারন চিন্তা নিয়ে এরা ক্ষমতায় বসে আছে, ক্ষমতাসীন দলের উচ্চু পর্যায়ের কথা বাদ দিয়ে সলিম সাহেব এদের সাধারণ সমর্থকদের সাথে (সলিম সাহেবের অফিসেও এই দলের সমর্থক আছে) কথা বলেও হতাশ হয়ে পড়েন, কি বিকট চিন্তা ও হাসি এদের, এখনো!

সলিম সাহেব অনেক কিছু চিন্তা করেন, প্রথমেই তিনি দেখেন হাসপাতাল গুলোর ডাক্তার নার্স টেকনিশিয়ান কারো জন্যই সামান্য সুরক্ষা নাই, করোনা ভাইরাস প্রটেক্টিভ ড্রেস, মাস্ক, সু কিছুই তো কোন হাসপাতালের কাছে নেই। আক্রান্ত জনগণের চিকিৎসা ঔষধ চিন্তা তো দূরের কথা! সলিম সাহেব আর চিন্তা বাড়াতে পারেন না! তিনি বিধাতা ছাড়া আর কোন উপায় দেখতে পারছেন না, বিধাতাই এখন এই যাত্রা থেকে প্রিয় জন্মভূমি রক্ষা করতে পারেন মাত্র। তবে তিনি এমন ভাবেন, মরতে তো হবেই, মানব জীবনে মৃত্যু অবধারিত সত্য!

তবে ঠিক এই সময়ে সলিম সাহেবের বিধাতার কাছে দুটো চাওয়া আছে। যারা এটাকে গুরুত্বের সাথে দেখে নাই, যাদের সুযোগ ছিল অন্তত সাধারণ মানুষের মনে একটা সাহস যোগানোর, তাঁরা তা করে নাই, সলিম সাহেব তাদের কারো আগেই মরতে চান না! তাদের মৃত্যু গুলো দেখে যেতেই হয়, তাদের সেই বিকট হাসির মলিন মুখ গুলো দেখা ছাড়া মরে যাওয়া চলে না!

আর হ্যাঁ, সলিম সাহেব তার প্রিয়তমা স্ত্রীর আগেও এই ভাইরাসে মরতে চান না, তিনি তাকেও যে কোন সভ্য চিন্তায় এখনো সামিল করতে পারেন নাই, এই আফসোস সহ্য করে মরার কোন মানে হয় না!

সলিম সাহেবের ভাবনার ডাল পালা যন্ত্রনাই হয়ে যাচ্ছে দিনের পর দিন!

https://www.facebook.com/udraji/posts/10214335807103981
https://www.somewhereinblog.net/blog/udraji/30293235